Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

এ কোন কাঙ্গালিনী সুফিয়া?

এ কোন কাঙ্গালিনী সুফিয়া?
কাঙ্গালিনী সুফিয়া
বিনোদন ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

রূপ নাকি গুণ? কোনটির কদর করবেন আপনি? গানে গানে এই পুরনো বিতর্ক উসকে দেবেন লোকগানের জনপ্রিয় শিল্পী কাঙালিনী সুফিয়া। ‘প্রেমিক বাঙাল’ নামের বিশেষ এই গানটিতে তার সঙ্গী হয়েছেন এ প্রজন্মের সংগীতশিল্পী কণা ও মার্সেল।

‘ওরে ও প্রেমিক বাঙাল/ হইস না তুই রূপের কাঙাল’-এমন কথার গানটি লিখেছেন সোমেশ্বর অলি। মার্সেলের সুর ও সংগীতে এতে কাঙালিনী ও কণার পাশাপাশি কণ্ঠও দিয়েছেন তিনি।

সিএমভি’র প্রযোজনায় ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রকাশ হবে ‘প্রেমিক বাঙাল’-এর মিউজিক ভিডিও। গল্পধর্মী বড় বাজেটের এই ভিডিওতেও থাকছে চমক। রাজু রাজের পরিচালনায় ‘প্রেমিক বাঙাল’-এ মডেল হয়েছেন কাঙালিনী নিজেই। এতে বিশেষ ‘লুক’ নিয়ে হাজির হচ্ছেন ‘মডেল’ কাঙালিনী! ভিডিওতে চমক হয়ে আরও থাকছেন নৃত্যশিল্পী ও মডেল হৃদি শেখ, শিল্পী-সুরকার মার্সেল ও একদল নৃত্যশিল্পী।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/18/1558181341786.jpg‘প্রেমিক বাঙাল’ সম্পর্কে সুরকার-শিল্পী মার্সেল বলেন, ‘গানটিতে অনেকগুলো মানুষের দীর্ঘদিনের শ্রম জড়িয়ে আছে। আমরা চেয়েছি, এই গানের মাধ্যমে কাঙালিনী সুফিয়াকে নতুন করে এ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে। এতোটুকু বলতে পারি, ভিডিওতে সবাই নতুন এক কাঙালিনী সুফিয়াকে দেখতে পাবেন।’

বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছেন কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী কাঙালিনী সুফিয়া। দীর্ঘদিন পর তাকে পাওয়া যাচ্ছে নতুন গান ও ভিডিওতে। গানটি নিয়ে উচ্ছ্বসিত শিল্পী নিজেও।

এদিকে গানটির গীতিকার সোমেশ্বর অলি বলেন, বছর দেড়েক আগে এই গানটির পরিকল্পনা করা হয়। লেখার পর সুর, সংগীতায়োজন ও ভিডিও কেমন হবে- এ নিয়ে ভালোই কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে। সবচেয়ে বড় কথা, কাঙালিনী সুফিয়ার মতো জীবন্ত কিংবদন্তির সঙ্গে কাজ করার এই অভিজ্ঞতা নিশ্চয়ই দারুণ প্রাপ্তি।

সিএমভির অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলসহ দেশের উল্লেখযোগ্য অডিও-ভিডিও শেয়ারিং সাইটে ঈদ উপলক্ষে গান-ভিডিওটি উন্মুক্ত হবে শিগগিরই।

আপনার মতামত লিখুন :

উজমা হবেন শ্রদ্ধা

উজমা হবেন শ্রদ্ধা
শ্রদ্ধা কাপুর ও উজমা আহমেদ

উজমা আহমেদকে যারা চেনেন না তাদের জন্য শুরুতেই একটা সত্যি ঘটনা বলা যাক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে তাহির আলি নামে একজনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়েছিলো। বন্ধুত্বের টানে তাহিরের সঙ্গে দেখা করতে পাকিস্তানের ইসলামাবাদ গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানে গিয়ে বন্দুকের মুখে পড়তে হয় তাকে।

দিল্লির এই তরুণীর মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে জোরপূর্বক বিয়ে করেন তাহির। এমনকি উজমা যেনো কখনও দিল্লিতে ফিরতে না পারেন সেজন্য তার পাসপোর্টসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আটকে রেখেছিলেন তাহির। কিন্তু কোনো একভাবে পাকিস্তানি আদালতের শরণাপন্ন হন উজমা। পান সুবিচার।

রূপালি পর্দায় উজমা আহমেদের চরিত্র ফুটিয়ে তুলবেন বলিউড অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুর। ইতোমধ্যে তিনি কাজটি করতে সম্মতি জানিয়েছেন।

শিবম নায়ার পরিচালিত নাম চূড়ান্ত না হওয়া ছবিটিতে ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের চরিত্রটি রাখা হবে। তবে তার ভূমিকায় কে অভিনয় করবেন তা এখনও জানা যায়নি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561564688203.jpg
পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে উজমা আহমেদ

 

শ্রদ্ধা কাপুর এখন ‘সাহো’ ছবি নিয়ে ব্যস্ত। এতে তার সহশিল্পী হিসেবে দেখা যাবে ‘বাহুবলী’ তারকা প্রভাসকে। এছাড়া ৩২ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর হাতে আছে রেমো ডি’সুজার ‘স্ট্রিট ড্যান্সার থ্রিডি’ (বরুণ ধাওয়ান) ও নিতেশ তিওয়ারির ‘ছিচ্চোরে’ (সুশান্ত সিং রাজপুত)।

ভাইয়ের সঙ্গে ঝগড়ায় পুলিশ ডেকেছিলেন একতা

ভাইয়ের সঙ্গে ঝগড়ায় পুলিশ ডেকেছিলেন একতা
একতা কাপুর ও তুষার কাপুর

পরিবারের সঙ্গে তিরুপাতি ঘুরতে গিয়েছিলেন প্রযোজক একতা কাপুর। আর সেসময় কোনো এক কারণে ছোট ভাই তুষার কাপুরের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। দুই ভাই-বোনের ঝগড়া নাকি এতোটাই বেড়ে গিয়েছিল যে একতাকে বাধ্য হয়ে পুলিশ ডাকতে হয়েছিল।

সোনি এন্টারটেইনমেন্ট চ্যানেলে প্রচারিত কমেডি শো ‘দ্য কপিল শর্মা শো’-এর একটি পর্বের শুটিং করতে এসে এমনটা নিজে মুখেই স্বীকার করেছেন একতা কাপুর।

এ প্রসঙ্গে একতার ভাষ্য, ‘অন্যান্য ভাই-বোনদের মতো আমার ও তুষারের মাঝেও অনেক ঝগড়া হয়। আপনারা যেনে অবাক হবেন যে, একবার আমরা পরিবারের সবাই মিলে তিরুপাতি গিয়েছিলাম। সেখানে কোনো এক কারণে তুষারের সঙ্গে আমার অনেক ঝগড়া হয়। এমনকি ও আমার নাকে ঘুষিও মেরেছিল সেসময়। পরে আমি পুলিশকে ফোন দেই।’
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561559452507.jpgযোগ করে একতা আরও বলেন- যদি কখনও কোনো ফ্যামিলি ট্রিপ হয় তাহলে এই দুই ভাই-বোন এক গাড়িতে চড়েন না। ঝগড়া এড়ানোর জন্য নাকি তারা এমনটা করে থাকেন।

এদিকে, তুষার কাপুর বলেন- ‘আমরা যখন একসঙ্গে স্কুলে যেতাম তখনও আমাদের মাঝে অনেক লড়াই হতো। একে অপরের শার্টের বোতাম ছিড়ে ফেলতাম।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র