মোশাররফ করিমের জায়গা দখলে নিচ্ছেন নিশো!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
মোশাররফ করিম ও আফরান নিশো

মোশাররফ করিম ও আফরান নিশো

  • Font increase
  • Font Decrease

এবারের ঈদে মোট কয়টি নাটক মুক্তি পেয়েছে—সেই তথ্যের পেছনে দুই দিন ঘুরে সুনির্দিষ্ট কোন জবাব পাওয়া না গেলেও জানা গেলো সংখ্যাটা ৫শ’র বেশি। এত সংখ্যক নাটকে কারা অভিনয় করেছেন আর কারাই বা দেখছেন এত ঈদের নাটক? এমন প্রশ্ন দেশের প্রথম সারির কয়েকজন নাট্য পরিচালককে করে তেমন যুক্তিসংগত উত্তর মেলেনি।

প্রশ্নের উত্তর না পেয়েই খোঁজ নেওয়া শুরু হলো এবারের ঈদ নাটকের। জানা গেছে, এবারের ঈদে টেলিভিশন ও অনলাইন প্ল্যাটফর্ম মিলিয়ে সর্বমোট ৩৭টি নাটকে অভিনয় করেছেন বর্তমান সময়ের ছোটপর্দার সবচেয়ে ব্যস্ত অভিনেতা আফরান নিশো। তৌসিফ মাহবুব অভিনয় করেছেন ৩৪টি নাটকে। জিয়াউল ফারুক অপূর্ব রয়েছেন ২০টির মতো নাটকে।

অন্যদিকে মোশাররফ করিম অভিনয় করেছেন ১৯টি নাটকে। তার চেয়েও কম নাটকে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী ও জাহিদ হাসান। অথচ কয়েকদিন আগেও বাংলা নাটক বলতেই ছিলেন—মোশাররফ করিম, চঞ্চল চৌধুরী ও জাহিদ হাসানরা। তাহলে সংখ্যার বিচারে তাদের নাটকের সংখ্যা কমে যাচ্ছে কেন? নাকি নিশো-অপূর্ব-তৌসিফরা তাদের স্থান নিয়ে নিচ্ছেন?
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/16/1565962613932.jpg

এমন প্রশ্নের উত্তর সরাসরি কেউ দিতে না চাইলেও বাংলা নাটক সংশ্লিষ্ট একাধিক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, গত কয়েক ঈদে মোশাররফ করিম প্রচুর নাটকে অভিনয় করেছেন। একই ধরনের নাটকে কাজ করেছেন বার বার। মোশাররফ করিম দেখলেন প্রচুর নাটকে কাজ করে হয়তো তার নাটকের সংখ্যা আর টাকা বাড়ছে তবে নাটকের মান কমে যাচ্ছে। এবার দেখলাম তিনি স্বল্পসংখ্যক নাটকে অভিনয় করেছেন। তাও ভালো কিছু গল্পের নাটকে। এবার ঈদে তার ‘আশ্রয়’ নাটক দেখে মুগ্ধ হয়েছি। আমার মনে হয় তিনি এখন নাটকের সংখ্যা কমিয়ে নাটকের মানে জোর দিচ্ছেন। যেটি তার ক্যারিয়ারের জন্য বেশ ভালো ফলাফল বয়ে নিয়ে আসবে।

অন্যদিকে আফরান নিশো এখন প্রচুর নাটকে কাজ করছেন। যেটি আগে মোশাররফ করতেন। নিশ্চিতভাবে বলা যায় নিশো একজন দারুণ অভিনেতা। কিন্তু এখন তিনি যে প্রচুর নাটকে কাজ করছেন এটি করতে গিয়ে এক সময় তার নাটকের মান কমে যাবে। যদিও তার নাটক প্রচুর দেখছে এখন দর্শক। কিন্তু একটা সময় তার অবস্থাও মোশাররফের মতোই হবে। দর্শক একই প্যাটার্নের নাটকের জন্য মুখ ফিরিয়ে নেবে। তখন তাকেও নাটকের সংখ্যা কমিয়ে মানের দিকে নজর দিতে হবে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/16/1565962630649.jpg

বাংলা নাটক সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, অন্যদের ক্ষেত্রেও সমীকরণটা প্রায় একই। চঞ্চল চৌধুরী, জাহিদ হাসানরা এক সময় প্রচুর নাটকে কাজ করলেও এখন নাটকের মানের জন্য সংখ্যা কমিয়েছেন আর নতুনরা এখন সেই কাজ পাচ্ছেন। সে কারণে নতুনদের নাটকের সংখ্যাটা বেড়ে যাচ্ছে।

এবারের ঈদ নাটকে ২৪টি নাটকে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন চৌধুরী আর প্রায় একই সংখ্যক নাটকে কাজ করেছেন তানজিন তিশা। অথচ অল্প কিছুদিন আগেও ঈদের নাটকের নায়িকা বলতে দাপট ছিল নুসরাত ইমরোজ তিশার।

এবারের ঈদ নাটকের সংখ্যা নিয়ে নুসরাত ইমরোজ তিশা বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, আমি জানি না ঈদে কয়টি নাটকে কাজ করেছি। আসলে আমি গুণে কাজ করি না। আমি কোয়ান্টিটি না কোয়ালিটিতে বিশ্বাস করি। কোয়ালিটি থাকলে যে কয়টি কাজ আমার কাছে আসে আমি সেই কয়টিতেই কাজ করি, গুণে কাজ করতে পারি না।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/16/1565962643624.jpg

ঈদে দর্শক চাহিদার কথা মাথায় রেখেই নাটক নির্মাণ করেন নাট্য নির্মাতারা। তাদের অনেকেই বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, এখন আফরান নিশো ও অপূর্বদের দর্শক বেশি দেখছে। এর মানে এই না যে, মোশাররফ করিম, চঞ্চল চৌধুরী, জাহিদ হাসানরা জনপ্রিয়তা হারাচ্ছেন। আমাদের দর্শক চাহিদা মাথায় রেখে কাজ করতে হয়, সে কারণে নিশোদের বেশি কাজ করা হচ্ছে। কয়েকদিন আগেও মোশাররফ করিম প্রচুর কাজ করতেন, এই ঈদে কাজ করা কমিয়ে দিয়েছেন। সে কারণে নতুনদের নিয়ে কাজ বেশি করা হচ্ছে। এছাড়া দর্শক কী ধরনের গল্পের নাটক বেশি দেখছে, সে ধরনের নাটকে কাকে মানাচ্ছে, বাজেট কেমন হবে, সময় আছে কিনা—এসব অনেক বিষয়ের কারণে অনেকেই প্রচুর নাটকে কাজ করছেন, অনেকের সঙ্গে এই বিষয়গুলো মিলছে না তাই তারা কাজ কম করছেন। এছাড়াও অনেক অভিনেতা নির্দিষ্ট কয়েকজন পরিচালকের সঙ্গে কাজ করেন, এর বাইরে তারা কাজ করেন না। এর ওপরও নাটকের সংখ্যা ও জনপ্রিয়তা নির্ভর করে।

আপনার মতামত লিখুন :