কেউ বিশ্বাস করবে না জাফর ইকবালের ওপর হামলায় আ’ লীগের হাত রয়েছে  : সেতুমন্ত্রী

সেন্ট্রাল ডেস্ক ৪

  • Font increase
  • Font Decrease
অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলায় আওয়ামী লীগের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ করা হলে তা বাংলাদেশের কেউ বিশ্বাস করবে না বলে দাবি করেছেন ওবায়দুল কাদের। বাংলাদেশকে ‘জঙ্গি রাষ্ট্র বানানোর ষড়যন্ত্রের’ অংশ হিসেবে জাফর ইকবালের ওপর হামলা করানো হয়েছে বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় একথা বলেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। মঙ্গলবার সেতু ভবনে ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী কাদের বলেন, “জাফর ইকবালের উপর হামলায় আওয়ামী লীগের হাত আছে-এটা বাংলাদেশের কেউ বিশ্বাস করবে না। এ ধরনের কথা বললে বিএনপির ভোট ব্যাংকের ক্ষয় হবে। আওয়ামী লীগ জাফর ইকবালের উপর হামলা করবে- এটা বিএনপির মিথ্যাচারের ভাঙা রেকর্ডের অংশ।” সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে গত শনিবার বিকালে এক অনুষ্ঠানে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক জাফর ইকবালের ওপর ছুরি নিয়ে হামলা করে এক তরুণ। এ ঘটনায় ক্ষমতাসীনদের প্রতি অভিযোগের আঙুল তুলে মির্জা ফখরুল বলেন, “আপনারা নিশ্চয়ই ষড়যন্ত্র লক্ষ করেছেন। সেই ষড়যন্ত্র হচ্ছে এই দেশকে একটি সম্পূর্ণভাবে অকার্যকর রাষ্ট্র, ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করবার চক্রান্ত। সেই চক্রান্তের ফলেই দেখা গেল এদেশের সবচাইতে জনপ্রিয় লেখক, বিজ্ঞানী এবং প্রখ্যাত সাহিত্যিক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবালকে ছুরিকাঘাত করা হল প্রকাশ্যে।” বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাবন্দি হওয়ার পর তারা আসলে ‘এলোমেলো’ হয়ে গেছে। “তারা নিজেরা একেক সময় একেক কথা বলে, তাদের নিজেদের মধ্যে কোনো মিল নেই, তাদের নেতাদের মধ্যে কোনো মিল নেই, তারা একেক জন একেক সময় একেক কথা বলে। তাদের কর্মসূচির ঠিক নেই। কোনো মিনিংফুল কর্মসূচি তারা দিতে পারেনি। তাদের ডাক জনগণ শোনে না।” খালেদা জিয়া কারাবন্দি হওয়ার পেছনে সরকারের কোনো হাত নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, “বেগম জিয়াকে আদালত দণ্ড দিয়েছে। জেলে আছেন আদালতের আদেশেই। এখানে সরকারের কোনো বিষয় নেই। আদালত যদি তাকে মুক্তি দেয়, দণ্ড থেকে খালাস দেয়, আমাদের কোনো কিছু বলার নেই, এখানে সরকারের কোনো কিছু করার নেই।” বিএনপি ভোটে এলে নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “এতে আমাদের লস কোথায়? আমরা একটা ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ইলেকশন চাই।”