ফেরার সময় কাঁদলেন এরশাদ 

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ অসুস্থ, তবে তাকে চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যেতে দেওয়া হচ্ছে না এমন বক্তব্য সত্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন সহোদর ভাই, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) জাপার বনানী কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

জিএম কাদের বলেন, উনি বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ। বয়সের কারণে এ সময়ে মানুষের শরীরে যেমন নানা রকম সমস্যা দেখা দেয় তারও তেমন নানান সমস্যা হচ্ছে। যে কারণে মাঝে মধ্যেই সিএমএইচএ যান চিকিৎসা নিতে। ওখানে গেলে তিনি ভালো ফিল করেন। ডাক্তাররা তাকে নানা রকম বিধিনিষেধ দেন। অন্যান্য রোগীর ক্ষেত্রেও যেমন দেওয়া হয়। যেমন এটা করতে পারবেন না, ওটা করতে হবে। উনি খেলাধুলা করতে চায়, সভাসমাবেশে যোগ দিতে চান।

উনার চিকিৎসার জন্য বোর্ড গঠন করা হয়েছে। যদি ডাক্তাররা বলে আজকেই দেশের বাইরে নিতে হবে। তাহলে আজকেই নেওয়া হবে।এটা নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি করা উচিত হবে না। তাঁর নির্দেশমতেই জাতীয় পার্টি চলছে। তবে আশঙ্কা করতে পারেন। কারণ গতবার এমনটা রটেছিলো।

পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙা বলেন, ৯ তারিখ যেহেতু প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। সে কারণে আমরাও উনাকে বলেছি দুচারদিন পরে যেতে। উনি পার্টির চেয়ারম্যান, তিনি দেশের বাইরে গেলে আমাদের খারাপ লাগে।

পার্টি অফিসের সামনে থেকে এরশাদের ফিরে যাওয়া প্রসঙ্গে টেনে বলেন, স্যার এখানে এসেও অফিসে নামতে না পারার জন্য খুব কষ্ট পেয়েছেন। ফিরে যাওয়ার সময় কান্না করেছেন। আমরা তাকে বুঝিয়েছি, আপনার শরীর খারাপ ঝুঁকি নেওয়া ঠিক হবে না।

কিন্তু এরশাদ টেলিকনফারেন্সে বলেন, কঠিন সময় পার করছি, ভেঙে পড়িনি। সামনে আরও কঠিন সময় আসছে। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে ও পার্টি ছেড়ে না যাওয়ার অনুরোধ করেন।

নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই অনেকটা রহস্যজনক আচরণ শুরু করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। প্রায় প্রায় সিএমএইচএ ভর্তি হচ্ছেন। এ নিয়ে চলছে নানা কানাঘুষা।

রাজনীতি এর আরও খবর

//election count down