আইনি বিতর্ক তৈরির চেষ্টায় বিএনপি

মিজানুর রহমান,সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
বিএনপি

বিএনপি

  • Font increase
  • Font Decrease

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভরাডুবির পর ফাঁক-ফোকর বের করে সংবিধান লংঘনের অভিযোগ এনে আইনি বিতর্ক তৈরির চেষ্টা করছে বিএনপি।

মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) বিএনপির নির্বাহি কমিটির সদস্য এবং সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. তাহেরুল ইসলাম তওহীদের পক্ষে সংসদের স্পীকার, প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং মন্ত্রীপরিষদ সচিবকে আইনি নোটিশ প্রেরণ করেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন।

আইনি নোটিশে বলা হয়েছে, সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদ অনুসরণ না করে ১৪৮ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সংসদ সদস্যরা শপথ নিয়েছেন। যা সংবিধানের স্পষ্ট লংঘন।

আইনি নোটিশের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর জাহিদ ইমাম বার্তা২৪ কে বলেন, সংবিধানের ১৪৮ অনুচ্ছেদে নির্বাচনের ফলাফল সরকারি গেজেটে প্রকাশের তিনদিনের মধ্যে শপথ গ্রহণের আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। শুধুমাত্র আলোচনা তৈরি করে বিতর্ক সৃষ্টি করার জন্যই আইনি নোটিশটি প্রেরণ করা হয়েছে। বিএনপি কোন আন্দোলন না করতে পেরে বা নির্বাচনে জনরায় না পেয়ে এখন আইনি বিতর্ক তৈরির চেষ্টা করছে বিএনপি।

সংবিধানের ১৪৮ অনুচ্ছেদের ২ উপ-অনুচ্ছেদের ক তে বলা হয়েছে, ''১২৩ অনুচ্ছেদের ৩ দফার অধীন অনুষ্ঠিত সংসদ সদস্যদের সাধারণ নির্বাচনের ফলাফল সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপিত হইবার তারিখ হইতে পরবর্তী তিন দিনের মধ্যে এই সংবিধানের অধীন এতদুদ্দেশ্যে নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা তদুদ্দেশ্যে অনুরূপ ব্যক্তি কর্তৃক নির্ধারিত অন্য কোন ব্যক্তি যে কোন কারণে নির্বাচিত সদস্যদের শপথ পাঠ পরিচালনা করিতে ব্যর্থ হইলে বা না করিলে, প্রধান নির্বাচন কমিশনার উহার পরবর্তী তিন দিনের মধ্যে উক্ত শপথ পাঠ পরিচালনা করিবেন, যেন এই সংবিধানের অধীন তিনিই ইহার জন্য নির্দিষ্ট ব্যক্তি।''

এ বিষয়ে জানতে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

পরে বিএনপির নির্বাহি কমিটির সদস্য এবং সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. তাহেরুল ইসলাম তওহীদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বার্তা২৪ কে জানান, বিএনপির দলীয় সিদ্ধান্তে নয়, তিনি নিজে সিদ্ধান্ত নিয়েই এই নোটিশ প্রেরণ করেছেন।

তিনি বলেন, সংবিধানের ১২৩ (৩) অনুচ্ছেদে সংসদ ভেঙে দিয়ে পুনরায় সংসদ সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠিত হওয়ার বিধান রয়েছে। কিন্তু সে অনুচ্ছেদ প্রতিপালন না করে পুনরায় সংসদ সদস্যরা শপথ নেওয়ায় বর্তমানে দুইটি সংসদ বহাল রয়েছে, যা সংবিধান পরিপন্থী।

তবে এই বিএনপি নেতা ও আইনজীবী  সংবিধানের ১৪৮ অনুচ্ছেদ বিষয়ে কোন ব্যাখা দেননি।

প্রসঙ্গত, সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদের ৩ এর ক তে মেয়াদ-অবসানের কারণে সংসদ ভেঙে যাওয়ার ক্ষেত্রে, ভেঙে যাওয়ার পূর্ববর্তী নববই দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা বলা হয়েছে।

একই অনুচ্ছেদের ৩ এর খ তে মেয়াদ-অবসান ব্যতীত অন্য কোন কারণে সংসদ ভেঙে গেলে, ভেঙে যাওয়ার পরবর্তী নববই দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা বলা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :