Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ফরিদপুরে চেয়ারম্যান পদে পরীক্ষিত নেতাদের মনোনয়ন

ফরিদপুরে চেয়ারম্যান পদে পরীক্ষিত নেতাদের মনোনয়ন
আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা / ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
ফরিদপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ফরিদপুর জেলায় চারটি সংসদীয় আসনে মোট নয়টি উপজেলা। আসন্ন পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এসব উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে পরীক্ষিত নেতাদের মনোনীত করেছে আওয়ামী লীগ।

মনোনয়নপ্রাপ্তদের নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ফরিদপুর-১

আসনটি মধুখালী, বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গা এই তিনটি উপজেলা নিয়ে গঠিত। এর মধ্যে আলফাডাঙ্গা উপজেলা থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এস এম আকরাম হোসেন মনোনয়ন পেয়েছেন। তিনি এর আগে আলফাডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন।

বোয়ালীমারী থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এম মোশাররফ হোসেন মুছা। তিনি ওই উপজেলা থেকে পরপর দুই বার নির্বাচিত হয়ে বর্তমান চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন।

মধুখালী থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মির্জা মনিরুজ্জামান বাচ্চু।

ফরিদপুর-২

এ আসনের দুটি উপজেলার মধ্যে নগরকান্দা থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. মনিরুজ্জামান সরদার মনোনয়ন পেয়েছেন। তিনি এর আগে তিনবার উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন।

সালথা উপজেলা থেকে মনোনীত হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেন। তিনি সালথা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও ভাওয়াল ইউনিয়নেরও সাবেক চেয়ারম্যান।

ফরিদপুর-৩

সদর উপজেলা পরিষদ নিয়ে গঠিত এ আসনটি। সদর উপজেলা থেকে কোতয়ালী আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহা. আব্দুর রাজ্জাক মোল্যা মনোনয়ন পেয়েছেন। তিনি ফরিদপুর জেলা পরিষদের সদস্য।

ফরিদপুর-৪

এ আসনের তিনটি উপজেলার মধ্যে ভাঙ্গা উপজেলা থেকে মনোনীত হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. জাকির হোসেন। তিনি উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান।

সদরপুর উপজেলা থেকে কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য এইচ এম শায়েদীদ গামাল লিপু মনোনয়ন পেয়েছেন। ফরিদপুরের নয়টি উপজেলার প্রার্থীদের মধ্যে অপেক্ষাকৃত তরুণ প্রার্থী লিপু। তিনি আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তার পিতা সাবেক সংসদ সদস্য মোশাররফ হোসেন ও মাতা সাবেক সংসদ সালেহা মোশাররফ।

চরভদ্রাসন উপজেলা থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. কাউছার মনোনয়ন পেয়েছেন। গত উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিয়ে তিনি পরাজিত হয়ে তৃতীয় অবস্থানে ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :

অ্যাড. মনিরের বহিষ্কারাদেশ তুলে নিল বিএনপি

অ্যাড. মনিরের বহিষ্কারাদেশ তুলে নিল বিএনপি
অ্যাড. মনির হোসেন/ ছবি: সংগৃহীত

জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সুপ্রিম কোর্ট শাখার সহ-সভাপতি অ্যাড. মনির হোসেনের বহিষ্কারাদেশ তুলে নিয়েছে কেন্দ্রীয় বিএনপি।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের চিঠির অনুলিপি হাতে পেলেও গত ১১ জুলাই বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাড. রুহুল কবির রিজভী এতে স্বাক্ষর করেন।

চিঠিতে বলা হয়েছে, দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থি কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে দলের গঠনতন্ত্রের ৫ (গ) ধারা মোতাবেক মনির হোসেনকে প্রাথমিক সদস্যপদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। মহাসচিবের নির্দেশক্রমে এ বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হলো।’

প্রসঙ্গত সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির গত ১৩ ও ১৪ মার্চের নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের বাইরে স্বতন্ত্র সম্পাদক প্রার্থী হন অ্যাড. মনির হোসেন। দলের সমর্থিত প্যানেলের বাইরে নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় গত ১২ মার্চ আইনজীবী মনির হোসেনকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় বিএনপি।

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে একাংশের অবস্থান

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে একাংশের অবস্থান
গৌরিপুর ছাত্রলীগের সাবেক কমিটির অবস্থান, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা ও পৌরশাখা ছাত্রলীগের নতুন দুটি কমিটি বাতিলের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে সদ্য সাবেক হওয়া কমিটির নেতাকর্মীরা।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকালে পৌর শহরের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিফলক বিজয় একাত্তর প্রাঙ্গণে এই কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেন সদ্য সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জিল্লুর রহমান।

এর আগে দুপুরে উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে গৌরীপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ওয়াসিকুল ইসলাম রবিনের নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে পৃথক বিক্ষোভ মিছিল করে ছাত্রলীগের একাংশ।

উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, 'গঠনতন্ত্র অমান্য করে বয়স্ক, বিবাহিত, ইউনিয়নের বাসিন্দাকে পৌর কমিটিতে অন্তর্ভুক্তি ও হত্যা মামলার আসামি দিয়ে ছাত্রলীগের উপজেলা ও পৌর শাখার দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। গত এক সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়েছি। অচিরেই কমিটি বাতিল না হলে কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব আমরা।'

উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন সভাপতি আল মুক্তাদির বলেন, 'নতুন কমিটি ঘোষণার পর দলের ৯০ ভাগ নেতাকর্মী আমাদের সাধুবাদ ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। অথচ সাবেক কমিটির একটি পক্ষ ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে কমিটি নিয়ে বিশৃঙ্খলার চেষ্টা চালাচ্ছে।'

প্রসঙ্গত, গত ৯ জুলাই গৌরীপুর উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল মুক্তাদির ও সাধারণ সম্পাদক পদে ইমতিয়াজ সুলতান জনি, পৌরশাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক পদে মোফাজ্জল হোসেন মনোনীত করে কমিটি ঘোষণা করে জেলা ছাত্রলীগ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র