Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

'বহিষ্কার' তোয়াক্কা না করে শপথের পথে মনসুর-মোকাব্বির

'বহিষ্কার' তোয়াক্কা না করে শপথের পথে মনসুর-মোকাব্বির
(বাম থেকে) সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ ও মোকাব্বির খান/ ছবি: সংগৃহীত
মুজাহিদুল ইসলাম
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
ঢাকা
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

একাদশ জাতীয় সংসদে সাংসদ হিসেবে শপথ নিতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিনের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন গণফোরামের নির্বাচিত দুই বিজয়ী প্রার্থী সুলতান মোহাম্মদ মনসুর ও মোকাব্বির হোসেন খান। তাদের শপথ নেয়াকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে চলছে নানা গুঞ্জন।

গণফোরাম সূত্র বলছে, দলের সিদ্ধান্ত কেউ শপথ নিবে না। নির্দেশনা অমান্য করে কেউ শপথ নিলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে গণফোরামের নির্বাচিত প্রার্থী মোকাব্বির হোসেন খান বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘শপথ নেয়ার বিষয়ে আমাদের বিভিন্ন ফোরামে আলোচনা হয়েছে। দু তিনজন ছাড়া সবাই সংসদে যাওয়ার পক্ষে ইতিবাচক মতামত দিয়েছে। সেই হিসেবে এটাকে বলা যায়, দলের আকাঙ্ক্ষার জন্যই আমি যাচ্ছি। এটা আমার নির্বাচনী এলাকার মানুষের আকাঙ্ক্ষা ও প্রত্যাশা।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রথমদিকে ড. কামাল হোসেনের উপস্থিতিতে যে আলোচনাগুলো হয়েছে, সেখানে পক্ষে বিপক্ষে মতামত দিয়েছে। দু তিনজন ছাড়া সবাই সংসদে যাওয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক অবস্থান নিয়েছেন। সুতরাং উনি কি ভাবেন তা উনিই বলতে পারবেন।’

শপথ নিলে বহিষ্কার হতে পারেন এমন আলোচনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘যারা এমন কথা বলছেন তাদেরকে বলেন তাদের যদি ক্ষমতা থাকে তাহলে ব্যবস্থা নিতে বলেন, কী নিতে পারে দেখি, তারা দেখুক কি করতে পারে।’ 

এ প্রসঙ্গে প্রেসক্লাবের এক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটি সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আমাদের ঐক্যফ্রন্টের সিদ্ধান্ত ছিল আমরা যেহেতু নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছি, সেহেতু বিএনপি এবং ঐক্যফ্রন্টের যারা নির্বাচিত হয়েছেন কেউ শপথ নেবেন না। এখন শুনছি ঐক্যফ্রন্টের দুইজন সংসদে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারা শপথ নিলে আমরা আমাদের যে বিধি বিধান আছে এবং ঐক্যফ্রন্টের যে সিদ্ধান্ত আছে সেই পেক্ষাপটে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এর পেক্ষিতে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সের এ সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে তারা সংসদে আসুক। তাদের শপথ গ্রহণে বাধা দিচ্ছেন কেন। তাদের বাধা দেয়া গণতান্ত্রিক অধিকার হতে পারে না। তারা তো জনগণের ভোটে নির্বাচিত। তারা সংসদে এসে আপনাদের পক্ষে কথা বলুক।

আপনার মতামত লিখুন :

অ্যাড. মনিরের বহিষ্কারাদেশ তুলে নিল বিএনপি

অ্যাড. মনিরের বহিষ্কারাদেশ তুলে নিল বিএনপি
অ্যাড. মনির হোসেন/ ছবি: সংগৃহীত

জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সুপ্রিম কোর্ট শাখার সহ-সভাপতি অ্যাড. মনির হোসেনের বহিষ্কারাদেশ তুলে নিয়েছে কেন্দ্রীয় বিএনপি।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের চিঠির অনুলিপি হাতে পেলেও গত ১১ জুলাই বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাড. রুহুল কবির রিজভী এতে স্বাক্ষর করেন।

চিঠিতে বলা হয়েছে, দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থি কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে দলের গঠনতন্ত্রের ৫ (গ) ধারা মোতাবেক মনির হোসেনকে প্রাথমিক সদস্যপদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। মহাসচিবের নির্দেশক্রমে এ বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করা হলো।’

প্রসঙ্গত সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির গত ১৩ ও ১৪ মার্চের নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের বাইরে স্বতন্ত্র সম্পাদক প্রার্থী হন অ্যাড. মনির হোসেন। দলের সমর্থিত প্যানেলের বাইরে নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় গত ১২ মার্চ আইনজীবী মনির হোসেনকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় বিএনপি।

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে একাংশের অবস্থান

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে একাংশের অবস্থান
গৌরিপুর ছাত্রলীগের সাবেক কমিটির অবস্থান, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা ও পৌরশাখা ছাত্রলীগের নতুন দুটি কমিটি বাতিলের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে সদ্য সাবেক হওয়া কমিটির নেতাকর্মীরা।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকালে পৌর শহরের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিফলক বিজয় একাত্তর প্রাঙ্গণে এই কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেন সদ্য সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জিল্লুর রহমান।

এর আগে দুপুরে উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে গৌরীপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ওয়াসিকুল ইসলাম রবিনের নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে পৃথক বিক্ষোভ মিছিল করে ছাত্রলীগের একাংশ।

উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, 'গঠনতন্ত্র অমান্য করে বয়স্ক, বিবাহিত, ইউনিয়নের বাসিন্দাকে পৌর কমিটিতে অন্তর্ভুক্তি ও হত্যা মামলার আসামি দিয়ে ছাত্রলীগের উপজেলা ও পৌর শাখার দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। গত এক সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়েছি। অচিরেই কমিটি বাতিল না হলে কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব আমরা।'

উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন সভাপতি আল মুক্তাদির বলেন, 'নতুন কমিটি ঘোষণার পর দলের ৯০ ভাগ নেতাকর্মী আমাদের সাধুবাদ ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। অথচ সাবেক কমিটির একটি পক্ষ ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে কমিটি নিয়ে বিশৃঙ্খলার চেষ্টা চালাচ্ছে।'

প্রসঙ্গত, গত ৯ জুলাই গৌরীপুর উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল মুক্তাদির ও সাধারণ সম্পাদক পদে ইমতিয়াজ সুলতান জনি, পৌরশাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক পদে মোফাজ্জল হোসেন মনোনীত করে কমিটি ঘোষণা করে জেলা ছাত্রলীগ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র