Alexa

দুর্বৃত্তের হামলায় বিএনপির ১৪ নেতাকর্মী আহত

দুর্বৃত্তের হামলায় বিএনপির ১৪ নেতাকর্মী আহত

আহত অবস্থায় চিকিৎসা নিচ্ছেন বিএনপির এক নেতা, ছবি: বার্তা২৪

ফরিদপুরে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শহীদ স্মৃতি স্তম্ভে ফুল দিতে গিয়ে দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়েছেন বিএনপি, স্বেচ্ছাসেবক ও যুবদলের নেতাকর্মীরা। এ হামলায় দলটির ১৪ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) সকালের দিকে শহরের ভাঙ্গা রাস্তার মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

হামলায় জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক সৈয়দ জুলফিকার হোসেন জুয়েল (৪৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। তার মাথায় দুটি বড় আকারের জখম হয়েছে বলে জানা যায়। বেলা সাড়ে ১০টার দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জুলফিকারকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এছাড়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদাররেছ আলী ইছা (৬২), জেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক একে কিবরিয়া স্বপন (৫৫), জেলা বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক দিলদার হোসেন (৪৭), পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি লিটন বিশ্বাস (২৯), ছাত্রদল সরকারি ইয়াছিন কলেজের সাবেক এজিএস আল আমীন তুষার (৩১), জেলা যুবদলের প্রচার সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান সেন্টু (৩৪), কোষাধ্যক্ষ ইলিয়াস হোসেন মোল্লা (৩৬), শ্রমিক দলের বিল্লাল তালুকদার (৩২) সহ আরও পাঁচজন নেতাকর্মী এ হামলায় আহত হয়েছেন।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতৃবৃন্দ জানান, সকাল সাড়ে সাতটার দিকে তারা স্বেচ্ছাসেবক দলের ব্যানারে মিছিল সহযোগে শহীদ বেদিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। সেখান থেকে ফেরার পথে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সদস্যরা অতর্কিতে তাদের ওপর হামলা চালায়। স্বেচ্ছাসেবক দলের ওই মিছিলে ছিলেন জেলা বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক দিলদার হোসেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/26/1553600289803.jpg

ঘটনার বিবরণ দিয়ে দিলদার হোসেন জানান, সকালে শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে ফেরার পথে জামান সাহেবের পেট্রোল পাম্পের সামনে এলে ৭/৮ জন যুবক প্রথমে তাদের ব্যানার দিয়ে কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এরপর পেছন থেকে হকিস্টিক ও লাঠিসোঁটা দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে। এ সময় পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এদিকে, বিএনপির আরেকটি অংশ একে কিবরিয়ার নেতৃত্বে শহরের গোয়ালচামট এলাকার হাজরাতলার মোড়ে হামলার শিকার হয়। এখানে লাঠি ও হকিস্টিক দিয়ে কিবরিয়াসহ কয়েকজনকে আহত করা হয়। তারা শহীদ বেদিতে ফুল দিতে পারেনি।

হামলার মুখে যুবদলের একটি মিছিল শহীদ বেদিতে ফুল না দিয়ে ফেরার পথে পূর্ব খাবাসপুর জোড়া সেতুর নিকট হামলার শিকার হয়। এখানে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদাররেছ আলীসহ কয়েকজন আহত হন।

জেলা বিএনপির ব্যানারে সাংগঠনিক সম্পাদক রশিদুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি অংশ ভাঙ্গা রাস্তার মোড়ে জড়ো হয়ে শহীদ বেদিতে ফুল দেওয়ার উদ্যোগ নিচ্ছিলেন। হামলার মুখে তারাও দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

হামলায় আহতরা জানান, রক্তাক্ত অবস্থায় তারা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতাল এবং বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। অস্ত্রধারীদের হামলার পর তারা এখন গ্রেফতার আতঙ্কে আত্মগোপনে রয়েছেন।

এদিকে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদাররেস আলী ইছা ও জেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক একেএম কিবরিয়া স্বপন আহত অবস্থায় বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত ফরিদপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদাররেস আলী ইছা জানান, ১২ থেকে ১৪ জন একটি দল অতর্কিত ভাবে কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোঁটা দিয়ে হামলা চালায়।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, 'আহত অবস্থায় আমাদের নেতাকর্মীরা কোনো হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে সাহস পাচ্ছে না। আমরা এই হামালার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করছি।'

ফরিদপুর কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এফ এম নাসিম বলেন, 'শহীদ বেদির নিকটে ভাঙ্গা রাস্তার মোড় এলাকায় হামলার শিকার হয়ে বিএনপির তিন নেতা ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন। স্লোগান ও পাল্টা স্লোগান দেওয়া নিয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় বিকেল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।'

আপনার মতামত লিখুন :