রাজনীতিতে ভয়ের রাজত্ব কায়েম করেছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি দেশের রাজনীতিতে ভয়ের রাজত্ব কায়েম করেছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘রাজনীতিতে ভীতি ও অগ্নিসন্ত্রাস বিএনপির সংযোজন। এটা আমাদের রাজনীতিতে ছিল না। এমনকি উপমহাদেশের রাজনীতিতেও ছিল না।’

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলন তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, 'দেশে ভয়ের রাজত্ব কারা কায়েম করতে চেয়েছে, এটা দেশের মানুষ ভালো করে জানে। ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে বিএনপি মানুষের ওপর পেট্রোল বোমা মেরেছে। হাজার হাজার মানুষকে আগুনে ঝলসে দিয়েছে। ৫০০'র বেশি মানুষকে তারা আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। নিরীহ মানুষের ওপর, অন্তঃসত্ত্বা নারীর ওপর, স্কুল ফেরত বালকের ওপর, এজতেমা ফেরত মুসল্লির ওপর ঘুমন্ত ট্রাকচালকের ওপর পেট্রোল বোমা মেরে হত্যা করেছে। এগুলো মধ্যযুগীয় বর্বরতা।'

তিনি বলেন, 'বিএনপি বলে দেশে গণতন্ত্র নেই। দেশে গণতন্ত্র আছে বলেই তারা সকাল-বিকেল সংবাদ সম্মেলন করে সরকার ও দেশের মানুষের বিরুদ্ধে কথা বলছে। অপপ্রচার চালাচ্ছে।'

এ সময় তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে চিঠি দেয়া প্রসঙ্গে হাছান মাহমুদ বলেন, 'যুক্তরাজ্যের সঙ্গে আমাদের বন্দি বিনিময় না থাকায় তারেক রহমানকে ফেরত পাঠাতে চিঠি দেয়া হয়েছে। এখানে প্রতিহিংসার কোনো বিষয় নেই। আইন আদালতের সম্মান রক্ষার্থেই তাকে ফিরিয়ে আনা প্রয়োজন।'

তথ্যমন্ত্রী বলেন, 'আরেকটি বিষয় হচ্ছে তিনি (তারেক রহমান) যদি মনে করেন, তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার সম্মুখীন হচ্ছেন। তাহলে তো তার এখানে চলা আসা প্রয়োজন। তার সৎসাহস থাকলে আদালতে এসে আত্মসমর্পণ করা উচিত।'

কিন্তু তার সেই সাহস নেই। তার যে দুর্নীতি সেটি বাংলাদেশ সরকার উদঘাটন করেনি। এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই উদঘাটন করেছে বলেও উল্লেখ করেন তথ্যমন্ত্রী।

হাছান মাহমুদ বলেন, '২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, যে মামলায় তিনি সাজাপ্রাপ্ত, শাস্তিপ্রাপ্ত। এটা দিবালোকের ন্যায় সত্য। সাক্ষ্য প্রমাণের মাধ্যমে এটা প্রমাণিত হয়েছে। তিনি ফৌজদারি মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি।'

তিনি আরও বলেন, '২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি, একই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি প্রমাণিত হয়েছে। বিএনপির উচিত ছিল তাকে নেতৃত্ব থেকে বাদ দেয়া। তারা সেটি করেনি। বরং একজন দুর্নীতিবাজ ও হত্যা মামলার আসামি দণ্ডপ্রাপ্তকে সবধরনের রাজনৈতিক সুরক্ষা দেয়ার চেষ্টা করছে। এটা বিএনপি রাজনৈতিক দৈন্যতার বহিঃপ্রকাশ।'

হত্যা, ক্যু-এর মধ্য দিয়ে বিএনপির জন্ম মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, 'বিএনপি সেটি থেকে বেরিয়ে আসেনি। যে বিএনপির নেতৃত্বে দেশ ৫ বার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। সেই গ্লানি থেকে মুক্ত হতে চায় না বিধায়, তারেক রহমান যিনি দুটি মামলার আসামি তাকে রাজনৈতিক সুরক্ষা দেয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এটা ন্যায়ের শাসন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে, রাজনীতিকে কলুষ মুক্ত করার ক্ষেত্রে অন্তরায়।'

আপনার মতামত লিখুন :