শপথ না নেওয়ার সিদ্ধান্তে অনড় বিএনপি, নিলেই বহিষ্কার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা, বার্তা২৪.কম
বিএনপির পতাকা, ছবি: সংগৃহীত

বিএনপির পতাকা, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

শেষ হয়ে আসছে একাদশ সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিতদের শপথ গ্রহণের সময়সীমা। ইতোমধ্যে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমান জাহিদ শপথ নিয়েছেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া বিএনপির বাকি নির্বাচিতরা সংসদে যেতে উদগ্রীব হয়ে আছেন। অপেক্ষা করছেন দলের ইতিবাচক সিদ্ধান্তের।

এদিকে দলের দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে, শপথের বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্তে অনড় অবস্থানে রয়েছে বিএনপি। কেউ শপথ নেবে না। এরপরও যদি কেউ শপথ নেন, তাহলে দল তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এরই মধ্যে সোমবার (২৯ এপ্রিল) বিকাল ৪টায় দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি। এর আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটি দুই ঘণ্টা বৈঠক করে। তাতে নির্বাচিত দুইজন উপস্থিত ছিলেন। সেখানে তাদের বোঝানো হয়, তারা যেন শপথ না নেন।

বিএনপির এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, সরকার যেটা চায়, আমরা সেটা কখনোই হতে দেব না। সরকার চায় বিএনপি সংসদে আসুক, যার মধ‍্য দিয়ে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য এবং বৈধতা পাবে। কেউ যদি শপথ নেন, এটা একান্তই ব্যক্তিগত ইচ্ছা। দল তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ও আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

দলের প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী বার্তা২৪.কমকে বলেন, কেউ শপথ নিলে‌ দল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। অটো বহিষ্কার হয়ে যাবেন। শপথ নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্তের কোনো পরিবর্তন হয়নি। আগের শপথ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত বহাল আছে।

আরও পড়ুন: আজই শপথ নিচ্ছেন বিএনপির নির্বাচিতরা

আপনার মতামত লিখুন :