সুখে কাটেনি নেত্রীর জীবন: মেয়র খোকন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা | ছবি: সুমন শেখ

শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা | ছবি: সুমন শেখ

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আগামী ২৩ জুন ৭০ বছরে পা রাখছে। দলটিকে ৩৮ বছর ধরে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। এই সময়ে চার বার সরকার গঠন করলেও শেখ হাসিনার জীবন সুখে কাটেনি বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

তিনি বলেছেন, বার বার তার (শেখ হাসিনা) জীবনের ওপর আঘাত এসেছে। বার বার তার প্রাণপ্রিয় সংগঠন আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত এসেছে।

মঙ্গলবার (১১ জুন) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণের মেয়র।

সাঈদ খোকন বলেন, ‘আর মাত্র কয়েকদিন পর ২৩ জুন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী হতে যাচ্ছে। উপমহাদেশে কংগ্রেসের পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ একমাত্র সংগঠন, যে সংগঠন তার ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করতে যাচ্ছে। এই ৭০ বছর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অর্জন শুধু বাংলাদেশে সীমাবদ্ধ থাকে নাই, সীমা ছাড়িয়ে তৃতীয় বিশ্বের নির্যাতিত নিপীড়িত মানুষের কণ্ঠস্বর হিসেবে ছড়িয়ে পড়েছে।’
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/11/1560270453378.jpg
তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জন করলেও একটি পূর্ণ স্বাধীনতা অর্জনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাস্তবায়ন করছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। তিনি আওয়ামী লীগের ৭০ বছরের ইতিহাসের ৩৮ বছর ধরে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন; অর্ধেকেরও বেশি সময় ধরে।’

‘এই ৩৮ বছর সুখে কাটেনি আমার নেত্রীর জীবন; এই ৩৮ বছর হাসিখুশিতে কাটেনি। বার বার তার জীবনের ওপর আঘাত এসেছে। বার বার তার প্রাণপ্রিয় সংগঠন আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত এসেছে। ‘৮১ সনে তিনি দলের দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন; সে সময় দলকে সংগঠিত করে স্বৈরচারবিরোধী আন্দোলন করেছেন; নেতৃত্ব দিয়েছেন।’

কলেজছাত্র থাকাকালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বৈরচারবিরোধী আন্দোলন গড়ে উঠতে দেখার স্মৃতিচারণ করে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আন্দোলন গড়ে ওঠে; এই ঢাকা শহরের অনেক সূর্যসন্তান রক্ত দিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে গেছে। ঢাকা শহরের সেই পিচঢালা রাস্তায় গণতন্ত্রের ইতিহাস আওয়ামী লীগের কর্মীদের রক্তে লেখা হয়েছে; এই হলো ইতিহাস। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা; কোনো স্বৈরচারকে কোনো সরকারকে ভয় পায়নি। রক্ত দিয়ে প্রতিষ্ঠা করেছে গণতন্ত্র।’

তিনি বলেন, ‘ছিয়ানব্বইতে সরকার ক্ষমতায় এসে দেশ গড়তে নেতৃত্বে দিলে শুরু হয় বিদেশ ষড়যন্ত্র। তারপর ২০০১ সালে আওয়ামী লীগের ওপর নেমে আসে সেই দুবির্ষহ দিন।’

খোকন বলেন, 'আমাদের নেত্রীর আজকের দিনে মুক্তি লাভ করেন; তৎকালীন সেনা সরকার নেত্রীকে গ্রেপ্তার করে গণতন্ত্রকে হরণ করেছিল। জনগণের অধিকার হরণ করেছিল। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বিশেষ করে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের নানা কর্মসূচির মাধ্যমে নেত্রী মুক্তি পেয়েছেন।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন দক্ষিণ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।

আপনার মতামত লিখুন :