Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

সুখে কাটেনি নেত্রীর জীবন: মেয়র খোকন

সুখে কাটেনি নেত্রীর জীবন: মেয়র খোকন
শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা | ছবি: সুমন শেখ
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আগামী ২৩ জুন ৭০ বছরে পা রাখছে। দলটিকে ৩৮ বছর ধরে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। এই সময়ে চার বার সরকার গঠন করলেও শেখ হাসিনার জীবন সুখে কাটেনি বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

তিনি বলেছেন, বার বার তার (শেখ হাসিনা) জীবনের ওপর আঘাত এসেছে। বার বার তার প্রাণপ্রিয় সংগঠন আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত এসেছে।

মঙ্গলবার (১১ জুন) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণের মেয়র।

সাঈদ খোকন বলেন, ‘আর মাত্র কয়েকদিন পর ২৩ জুন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী হতে যাচ্ছে। উপমহাদেশে কংগ্রেসের পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ একমাত্র সংগঠন, যে সংগঠন তার ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করতে যাচ্ছে। এই ৭০ বছর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অর্জন শুধু বাংলাদেশে সীমাবদ্ধ থাকে নাই, সীমা ছাড়িয়ে তৃতীয় বিশ্বের নির্যাতিত নিপীড়িত মানুষের কণ্ঠস্বর হিসেবে ছড়িয়ে পড়েছে।’
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/11/1560270453378.jpg
তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জন করলেও একটি পূর্ণ স্বাধীনতা অর্জনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাস্তবায়ন করছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। তিনি আওয়ামী লীগের ৭০ বছরের ইতিহাসের ৩৮ বছর ধরে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন; অর্ধেকেরও বেশি সময় ধরে।’

‘এই ৩৮ বছর সুখে কাটেনি আমার নেত্রীর জীবন; এই ৩৮ বছর হাসিখুশিতে কাটেনি। বার বার তার জীবনের ওপর আঘাত এসেছে। বার বার তার প্রাণপ্রিয় সংগঠন আওয়ামী লীগের ওপর আঘাত এসেছে। ‘৮১ সনে তিনি দলের দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন; সে সময় দলকে সংগঠিত করে স্বৈরচারবিরোধী আন্দোলন করেছেন; নেতৃত্ব দিয়েছেন।’

কলেজছাত্র থাকাকালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বৈরচারবিরোধী আন্দোলন গড়ে উঠতে দেখার স্মৃতিচারণ করে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আন্দোলন গড়ে ওঠে; এই ঢাকা শহরের অনেক সূর্যসন্তান রক্ত দিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে গেছে। ঢাকা শহরের সেই পিচঢালা রাস্তায় গণতন্ত্রের ইতিহাস আওয়ামী লীগের কর্মীদের রক্তে লেখা হয়েছে; এই হলো ইতিহাস। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা; কোনো স্বৈরচারকে কোনো সরকারকে ভয় পায়নি। রক্ত দিয়ে প্রতিষ্ঠা করেছে গণতন্ত্র।’

তিনি বলেন, ‘ছিয়ানব্বইতে সরকার ক্ষমতায় এসে দেশ গড়তে নেতৃত্বে দিলে শুরু হয় বিদেশ ষড়যন্ত্র। তারপর ২০০১ সালে আওয়ামী লীগের ওপর নেমে আসে সেই দুবির্ষহ দিন।’

খোকন বলেন, 'আমাদের নেত্রীর আজকের দিনে মুক্তি লাভ করেন; তৎকালীন সেনা সরকার নেত্রীকে গ্রেপ্তার করে গণতন্ত্রকে হরণ করেছিল। জনগণের অধিকার হরণ করেছিল। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বিশেষ করে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের নানা কর্মসূচির মাধ্যমে নেত্রী মুক্তি পেয়েছেন।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন দক্ষিণ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।

আপনার মতামত লিখুন :

৭০ ইউনিয়নে আ'লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত

৭০ ইউনিয়নে আ'লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত
ছবি: সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভাসহ দেশের ৭০ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ।

বুধবার (২৬ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে দলের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়। গণভবনে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

AL

দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। পরে দলের দফতর থেকে মনোনীত প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়।

‘চিকিৎসা নেওয়ার পয়সা নেই এরশাদের’

‘চিকিৎসা নেওয়ার পয়সা নেই এরশাদের’
বক্তব্য রাখছেন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের চিকিৎসা নেওয়ার পয়সা নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা।

বুধবার (২৬ জুন) মতিঝিল এজিবি কলোনি কমিউনিটি সেন্টারে জাতীয় পার্টির সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের সাংগঠনিক সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

রাঙ্গা বলেন, ‘সাবেক সেনা প্রধান হওয়ায় উনি সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ফ্রি চিকিৎসা পাচ্ছেন। যে লোকটার টাকার অভাবে ঠিকমতো চিকিৎসা হচ্ছে না। তারই দুর্নীতির ধুয়া তুলে আন্দোলন করা হয়। সাবেক রাষ্ট্রপতি সেদিন রক্তপাত দেখতে চাননি তাই স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছিলেন। উনি কোনো দুর্নীতি করেননি।’

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘৯৬ সালে আমরা সমর্থন না দিলে ক্ষমতায় আসতে পারতেন না। এরপরও প্রতিবারেই আমাদের সহযোগিতা নিয়ে ক্ষমতায় গেছেন। আমাদের কর্মীদের ওপর হামলা করার চেষ্টা করবেন না। এটা বন্ধ করেন।’

তিনি বলেন, ‘কোনো জেলায় নেতাকর্মীদের ওপর হামলা হলে খবর দেবেন। আমরা চলে আসবো কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। দলকে সংগঠিত করেন। মতের অমিল থাকতে পারে, কিন্তু দ্বন্দ্ব করবেন না। এখন থেকে আর কোথাও কোনো পকেট কমিটি হবে না। ফেয়ার কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি করা হবে। সাধারণ সদস্য, কাউন্সিলররা যাকে চাইবে সেই নেতা হবে।’

আরও পড়ুন: এরশাদের অবর্তমানে জাপার কী হবে, জানালেন জিএম কাদের

তবে আপনাদের প্রতি অনুরোধ এমন কাউকে নেতা বানাবেন না যাকে দিয়ে দল লাভবান হবে না। দল ক্ষতিগ্রস্ত হয় এমন কাউকে নেতা বানাবেন না। জয় আমাদের সুনিশ্চিত।

নেতাকর্মীরা স্লোগান দেওয়ার চেষ্টা করলে রাঙ্গা বলেন, ‘কারো নামে স্লোগান হবে না, এখন থেকে স্লোগান হচ্ছে, দুই নাগিনীর একই বিষ, নৌকা আর ধানের শীষ।’ অন্যদের তার সঙ্গে স্লোগান ধরার আহ্বান জানান।

জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের'র সভাপতিত্বে সভায় সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের জেলা, মহানগর, উপজেলা, শহর কমিটির নেতারা অংশ নিয়েছেন। এর আগে ২৪ ও ২৫ জুন যথাক্রমে ঢাকা, ময়মনসিংহ, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের নেতারা মতামত দেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র