সরকার শুধু ভাবে নিজের পকেট ভরার কথা: মির্জা ফখরুল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঠাকুরগাঁও
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

‌‌এই সরকার শুধু ভাবে কিভাবে নিজের পকেট ভরা যায় এমন অভিযোগ তুলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আজকে ধানের দাম নেই, কেন এই অবস্থা? এই সরকার কৃষকদের কথা ভাবে না, জনগণের কথা ভাবে না। যদি কৃষকদের নিয়ে ভাবতো তাহলে আজ সকলে এভাবে হতাশ হতো না। সরকার শুধু ভাবে কি করে নিজেদের পকেট ভারি করা যায়।

রোববার (১৬ জুন) সন্ধ্যায় ঠাকুরগাঁও রুহিয়া থানা বিএনপির আয়োজনে আবু নূর চৌধুরীর মিল মাঠে এক কর্মী সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

ফখরুল বলেন, তারা যানে একবার যদি ক্ষমতা থেকে সরে যায় তাহলে বাংলাদেশের মাটিতে তাদের কোন জায়গা থাকবে না। জনগণের কাছে তাদের কোন আস্থা নেই। তারা জনগণের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। যার কারণেই রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে তারা সবকিছুকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে।

তারা আজ জনগণকে সম্পূর্ণ বাহিরে রেখে দিয়ে তাদের ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখার জন্য কাজ করছে।

পার্লামেন্টকে অবৈধ দাবি করে ফখরুল বলেন, অনেকেই প্রশ্ন করেছে বিএনপি প্রথমে বলেছিলো পার্লামেন্টে যাবে না। তাহলে আবার গেলেন কেন। আমি সকলকে বলতে চাই “আমার এই পার্লামেন্টকে স্বীকৃতি দেই না”। আমার সেই পার্লামেন্টকে বলি অবৈধ পার্লামেন্ট। কারণ এটা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ফখরুল বলেন, আপনারা কেউ হার মানবেন না, আমারা আছি। শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাবো। একদিন অবশ্যই বিজয় অর্জন করবো। ১৯৯১ সাল থেকে আমি আপনাদের নির্বাচনী এলাকাগুলোতে এসেছি অনেকগুলো নির্বাচন করেছি। কোনটা হেরেছি কোনটা জিতেছি। কিন্তু কোনদিন আপনাদের ছেড়ে যাই নাই। বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল।

বিএনপির মহাসচিব আরো বলেন, আমার বন্দুক-পিস্তল নিয়ে দাঁড়াই নাই। আমরা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দাঁড়িয়েছি। সবসময় একই কথা বলেছি জনগনের শক্তির কাছে কোন শক্তি টিকতে পারে না। সেই শক্তি সঞ্চয় করতে হবে আমাদের। আমরা সঠিক পথেই আছি। আমারা জনগণের অধিকারকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্তি করতে চাই, সেই সাথে স্বাধীন সর্বভৌম বাংলাদেশ গড়তে চাই। সেজন্য আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে থাকতে হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল আমিন, রুহিয়া থানা বিএনপির আহবায়ক আনছারুল হক সহ জেলা/ইউনিয়ন বিএনপির নেতাকর্মীবৃন্দরা।

আপনার মতামত লিখুন :