ছাত্রদলের কাউন্সিলে প্রার্থীদের যা মানতে হবে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের আসন্ন কাউন্সিলে প্রার্থীদের জন্য আচরণ-বিধি প্রকাশ করেছে দলটি।

সোমবার (২৪ জুন) বিকেলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে কাউন্সিলের নির্বাচন পরিচালনা কমিটি পক্ষ থেকে সাতটি আচরণ-বিধি নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে যা সকল প্রার্থীদের মেনে চলতে হবে।

আচরণ-বিধি গুলো হলো- প্রত্যেক প্রার্থীকে ব্যক্তিগতভাবে নির্বাচন করতে হবে। কোনো ভাবেই প্যানেল দেয়া যাবে না; কোনো প্রকার পোস্টার, ব্যানার এবং গণমাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারণা চালানো যাবে না; সভা, সমাবেশ, আপ্যায়ন বা কোনো ধরনের উপহার সামগ্রী দেওয়া যাবে না; গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার, সংবাদ সম্মেলন ও টকশোতে অংশগ্রহণ করতে পারবে না; প্রার্থীরা ভোট চাওয়ার জন্য শুধুমাত্র ভিজিটিং কার্ড বা সাদাকালো এ৪ (A4) সাইজের লিফলেট ব্যবহার করতে পারবেন; নির্বাচনের দিন প্রার্থী বা তার সমর্থকরা কোনো প্রকার মিছিল, সমাবেশ, প্লে-কার্ড, স্লোগান, ভিজিটিং কার্ড এবং লিফলেট বিতরণ করে ভোট চাইতে পারবেন না; কোনো প্রার্থী যদি এসকল আচরণবিধি লঙ্ঘন করে, তাহলে নির্বাচন কমিশন প্রার্থিতা বাতিলসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবেন।

উল্লেখ্য ছাত্রদলের কাউন্সিল আগামী ১৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের মাধ্যমে ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হবে, এতে বিবাহিতরা অংশ নিতে পারবেন না। গতকাল রোববার (২৩ জুন) এ ঘোষণা দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু ও যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন।

নির্বাচনের তফসিলে বলা বয়েছে, ২৪ জুন ভোটার তালিকা প্রকাশ, ২৫ জুন তালিকার বিষয়ে আপত্তি গ্রহণ, ২৬ জুন চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ, ২৭-২৮ জুন প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বিতরণ, ২৯-৩০ জুন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মনোনয়ন গ্রহণ, ১-৩ জুলাই প্রার্থী যাচাই বাছাই, ৪ জুলাই প্রার্থীদের খসড়া তালিকা প্রকাশ, ৫ ও ৬ জুলাই প্রার্থীদের প্রার্থীদের আপত্তি ও আপত্তি নিষ্পত্তি, ৭ জুলাই প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ, ১৫ জুলাই ভোট গ্রহণ করা হবে। প্রার্থীরা ১৩ জুলাই রাত ১২টা পর্যন্ত প্রচারণা চালাতে পারবে।

একই সঙ্গে ২০০০ সাল ও এরপর থেকে যারা এসএসসি পাশ করেছেন কেবলমাত্র তারাই প্রার্থী হতে পারবেন।

আপনার মতামত লিখুন :