জাতীয় পার্টিতে দ্বন্দ্ব-বিভেদ নেই: জি এম কাদের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
জাতীয় পার্টির সংবাদ সম্মেলন

জাতীয় পার্টির সংবাদ সম্মেলন

  • Font increase
  • Font Decrease

 

‘মিডিয়াকর্মীরা যেকোন তথ্যের জন্য আমার সঙ্গে কিংবা আমার প্রেস শাখার সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। প্রকাশ উপযোগী কোন তথ্য আপনাদের কাছে কখনোই গোপন রাখা হবে না’, বলেছেন জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যান জি এম কাদের।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দুপুরে জাতীয় পার্টির বনানী কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। এদিন জি এম কাদেরকে দলের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়।

জি এম কাদের বলেন, আমাদের এই বিপদের দিনে আপনারা আমাদের পাশে ছিলেন। বিপদে যে পাশে থাকে সেই তো প্রকৃত বন্ধু। তাই মিডিয়াকর্মীরা প্রমাণ করলেন, আপনারা আমাদের একান্ত আপন এবং প্রকৃত বন্ধু। আমাদের দুঃখে-সুখে সবসময় এভাবেই আমাদের পাশে থাকুন—আজ শোকাতুর হৃদয় নিয়ে আপনাদের কাছে এ আবেদন জানাতে চাই।

তিনি বলেন, ওনার (হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করার পর রংপুরে তার দাফন পর্যন্ত আপনারা মিডিয়াকর্মীরা যে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন তা আমার কাছে বর্ণনাতীত। এর জন্য শুধু কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলে খুব কম হয়ে যাবে। আমরা আপনাদের এই অবদানের কথা কোনদিন ভুলতে পারব না।

জি এম কাদের আরও বলেন, একটি বিষয় আমি আপনাদের সুস্পষ্টভাবে অবহিত করতে চাই, জাতীয় পার্টির মধ্যে কোনো ধরনের বিভেদ, দ্বন্দ্ব, মতানৈক্য নেই। আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি এবং থাকব। ওনার শোককে আমরা শক্তিতে রূপান্তরিত করে তার আদর্শ ও কর্মসূচি বাস্তবায়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাব।

তিনি বলেন, এরশাদের দাফন করার ব্যাপারে ঢাকার বনানীস্থ সেনা কবরস্থান ও রংপুরে তার নিজ বাসভবন পল্লী নিবাসের প্রস্তাব ছিল। শেষ পর্যন্ত রংপুরবাসীর ভালোবাসার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমরা পারিবারিকভাবে রংপুরেই তাকে সমাহিত করেছি। সেখানে সম্পূর্ণ রাষ্ট্রীয় এবং সামরিক মর্যাদায় তাকে দাফন করা হয়েছে। আমরা অচিরেই একটি স্মরণসভার আয়োজন করব।

জিএম কাদের বলেন, ওনার (এরশাদ) অসুস্থতা ও মৃত্যুর কারণে গত এক মাসে আমরা কোন সাংগঠনিক কাজে মন দিতে পারিনি। অচিরেই আমরা পার্টি থেকে সাংগঠনিক টিম গঠন করে প্রত্যেক বিভাগ ও জেলায় সংগঠনকে শক্তিশালী করার কাজ শুরু হবে।

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ আমৃত্যু দলের চেয়ারম্যান ছিলেন। গত রোববার (১৪ জুলাই) ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মারা যান তিনি। এর আগে গত ৪ মে ছোট ভাই জি এম কাদেরকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন এরশাদ।

আপনার মতামত লিখুন :