Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

জাতীয় পার্টিতে দ্বন্দ্ব-বিভেদ নেই: জি এম কাদের

জাতীয় পার্টিতে দ্বন্দ্ব-বিভেদ নেই: জি এম কাদের
জাতীয় পার্টির সংবাদ সম্মেলন
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

 

‘মিডিয়াকর্মীরা যেকোন তথ্যের জন্য আমার সঙ্গে কিংবা আমার প্রেস শাখার সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। প্রকাশ উপযোগী কোন তথ্য আপনাদের কাছে কখনোই গোপন রাখা হবে না’, বলেছেন জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যান জি এম কাদের।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দুপুরে জাতীয় পার্টির বনানী কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। এদিন জি এম কাদেরকে দলের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়।

জি এম কাদের বলেন, আমাদের এই বিপদের দিনে আপনারা আমাদের পাশে ছিলেন। বিপদে যে পাশে থাকে সেই তো প্রকৃত বন্ধু। তাই মিডিয়াকর্মীরা প্রমাণ করলেন, আপনারা আমাদের একান্ত আপন এবং প্রকৃত বন্ধু। আমাদের দুঃখে-সুখে সবসময় এভাবেই আমাদের পাশে থাকুন—আজ শোকাতুর হৃদয় নিয়ে আপনাদের কাছে এ আবেদন জানাতে চাই।

তিনি বলেন, ওনার (হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করার পর রংপুরে তার দাফন পর্যন্ত আপনারা মিডিয়াকর্মীরা যে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন তা আমার কাছে বর্ণনাতীত। এর জন্য শুধু কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলে খুব কম হয়ে যাবে। আমরা আপনাদের এই অবদানের কথা কোনদিন ভুলতে পারব না।

জি এম কাদের আরও বলেন, একটি বিষয় আমি আপনাদের সুস্পষ্টভাবে অবহিত করতে চাই, জাতীয় পার্টির মধ্যে কোনো ধরনের বিভেদ, দ্বন্দ্ব, মতানৈক্য নেই। আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি এবং থাকব। ওনার শোককে আমরা শক্তিতে রূপান্তরিত করে তার আদর্শ ও কর্মসূচি বাস্তবায়নে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাব।

তিনি বলেন, এরশাদের দাফন করার ব্যাপারে ঢাকার বনানীস্থ সেনা কবরস্থান ও রংপুরে তার নিজ বাসভবন পল্লী নিবাসের প্রস্তাব ছিল। শেষ পর্যন্ত রংপুরবাসীর ভালোবাসার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমরা পারিবারিকভাবে রংপুরেই তাকে সমাহিত করেছি। সেখানে সম্পূর্ণ রাষ্ট্রীয় এবং সামরিক মর্যাদায় তাকে দাফন করা হয়েছে। আমরা অচিরেই একটি স্মরণসভার আয়োজন করব।

জিএম কাদের বলেন, ওনার (এরশাদ) অসুস্থতা ও মৃত্যুর কারণে গত এক মাসে আমরা কোন সাংগঠনিক কাজে মন দিতে পারিনি। অচিরেই আমরা পার্টি থেকে সাংগঠনিক টিম গঠন করে প্রত্যেক বিভাগ ও জেলায় সংগঠনকে শক্তিশালী করার কাজ শুরু হবে।

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ আমৃত্যু দলের চেয়ারম্যান ছিলেন। গত রোববার (১৪ জুলাই) ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মারা যান তিনি। এর আগে গত ৪ মে ছোট ভাই জি এম কাদেরকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন এরশাদ।

আপনার মতামত লিখুন :

‘রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে কোন সম্পর্ক নেই’

‘রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে কোন সম্পর্ক নেই’
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এখন দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে কোন সম্পর্ক নেই। সামাজিক কর্মসূচিতেও পরস্পরের থেকে দূরে থাকতে হয়, এমনকি কথা বলাবলিও বন্ধ থাকে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের রক্ষা করে খুনিদের বিচার বন্ধ করতে যেয়ে যে অলঙ্ঘনীয় দেয়াল তৈরি করা হয়েছে তা এখন আরও উঁচু হয়েছে।

রবিবার (২৫ আগস্ট) রাজধানীর নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ’৭৫-এর ঘাতকদের আমরা চিনি। পেছন থেকে কারা তাদের সহযোগিতা করল, পৃষ্ঠপোষকতা দিল, বিদেশে চলে যেতে সাহায্য করল—তাদেরও আমরা চিনি। তবে বঙ্গবন্ধু ও দেশের মানুষের সঙ্গে জিয়া ও তার পরিবার যে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, তারা সেই বিশ্বাসঘাতকতাই পেয়েছে। ’৭৫-এর হত্যাকারীদের যদি সেই সময় পৃষ্ঠপোষকতা করা না হতো তাহলে ’৮১-তে আরেকটি হত্যাকাণ্ড হতো না। জেনারেল জিয়াকে হত্যার সাহস করতো না। যারা ’৭৫-এর খুনি তাদেরই বুলেটে খালেদা জিয়া বিধবা হয়েছেন।

১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড এবং ২১ আগস্টের হত্যাকাণ্ড একই সূত্রে গাঁথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে প্রাইম টার্গেট ছিলেন শেখ হাসিনা। হরকাতুল জিহাদের নেতা মুফতি হান্নান স্বীকারোক্তিতে বলেছেন যে, হাওয়া ভবনের নির্দেশেই এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। সত্যকে এড়ানোর উপায় নেই। ইতিহাসের প্রথম রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডের শিকার ছিলেন রোমান সম্রাট জুলিয়াস সিজার। শেক্সপিয়র যেটিকে নৃশংসতম হত্যাকাণ্ড বলেছেন। আমি বলব, শেক্সপিয়ার বেঁচে থাকলে ’৭৫-এর হত্যাকাণ্ডকে নৃশংসতম বলতেন।

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির চেয়ারম্যান শেখ কবির হোসেন, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান বেনজীর আহমেদ। সভা সঞ্চালনা করেন পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের পরিচালক জামিল আহমেদ।

সরকারি না, আমি রাষ্ট্রীয় সুবিধা চেয়েছি: রুমিন

সরকারি না, আমি রাষ্ট্রীয় সুবিধা চেয়েছি: রুমিন
ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা

সংসদকে আবারও অবৈধ বলে আখ্যায়িত করলেন সংরক্ষিত নারী আসনে বিএনপির সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। তবে সম্প্রতি নিজের নামে পূর্বাচল আবাসিক এলাকায় ১০ কাঠার প্লট চেয়ে আবেদন করায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে তার দিকে।

এ বিষয়ে জানতে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে রুমিন ফারহানা বলেন, এটা অবশ্যই অবৈধ সরকার, জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার না। আমি যে সুবিধা চেয়েছি সেটা সরকারি সুবিধা নয়, এটা রাষ্ট্রীয় সুবিধা। সংবিধান আমাকে সেই সুবিধা দিয়েছে। সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত তো সংসদ সদস্য না, তাহলে তিনি কী করে শুল্কমুক্ত গাড়ি সুবিধা পান? আসলে মুহিতের ঘটনা চাপা দিতেই সরকার এটি করেছে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/25/1566725214223.jpg
ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেন, আমার প্রশ্ন মন্ত্রণালয় কিভাবে একটা গোপনীয় চিঠি প্রকাশ করল? তারা আমার মোবাইল নম্বর ভাইরাল করে দিল। এটা কেন করল? এটা সরকারের প্রত্যক্ষ মদদ ছাড়া হয়নি।

শুল্কমুক্ত গাড়ির সুবিধা চেয়েছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে রুমিন বলেন, সবাই চেয়েছে, আমিও চেয়েছি। তবে আমার টাকা না থাকায় আমি এখনও শুল্কমুক্ত গাড়ি আনতে পারিনি। আসলে এই সরকার অবৈধ বলে তারা ভিন্নমত পোষণকারীদের এমন কিছু নাই যেটা করছে না। আমার ফেসবুক পেইজ দুই মাস ধরে হ্যাক করে রেখেছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র