ত্যাগ স্বীকারে ব্রতী হওয়াই কোরবানির মর্মবাণী: ফখরুল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর/ পুরনোছবি

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর/ পুরনোছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল মুসলমানকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, ‘আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে ব্রতী হওয়াই কোরবানির মর্মবাণী। পশু কোরবানির পাশাপাশি মনের পশু কোরবানি দিয়ে জীবন-যাপনে শ্রষ্টার সন্তুষ্টি অর্জনে ব্রতী হওয়া আমাদের কর্তব্য।’

শনিবার দুপুরে (১০ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো দেশবাসীর প্রতি দেওয়া এক বাণীতে তিনি এসব কথা বলেন।

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম তার বাণীতে বলেন, ‘বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল মুসলমানের সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি কামনা করি। কোরবানির শিক্ষাকে বুকে ধারণ করে মানব কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করাই আমাদের লক্ষ্য হওয়া উচিত।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশ এখন এক চরম দুঃসময় অতিবাহিত করছে। জনগণ অধিকারহীন ও বাকরুদ্ধ। অগণতান্ত্রিক শক্তির দানবীয় উত্থানে রাষ্ট্র এবং সমাজে ভয় ও আতঙ্ক আধিপত্য বিস্তার করে আছে। কিছুদিন ধরে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরে মানুষ মারা যাচ্ছে। আক্রান্ত হয়ে হাজার হাজার মানুষ চিকিৎসা না পেয়ে হাসপাতালের বারান্দায় কাতরাচ্ছে। অথচ, সরকার নির্বিকার। এই মশা নিধনে কোনো কার্যকর ওষুধ আমদানি করা হয়নি। বিএনপি শত নির্যাতন সহ্য করেও ডেঙ্গু নিয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং আক্রান্তদের সহায়তা দিতে সাধ্যানুযায়ী কাজ করে যাচ্ছে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘উৎসব সমাজের সকল ভেদরেখাকে অতিক্রমের মাধ্যমে মানুষকে সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ করে। তাই স্বার্থচিন্তা পরিহার করে মানব কল্যাণ এবং সমাজে শান্তি, ন্যায়, সুবিচার ও সৌহার্দ প্রতিষ্ঠায় আমাদেরকে সচেষ্ট হতে হবে। আসুন, এই ত্যাগের উৎসবের দিনে অবিচারের নির্মম শিকার গণতন্ত্রের প্রতীক দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে শামিল হওয়ার অঙ্গীকার করি।’

আপনার মতামত লিখুন :