রংপুর-৩ আসনে জাপার দলীয় মনোনয়ন নিলেন জাহাঙ্গীর

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
রংপুর-৩ আসনে জাপার দলীয় মনোনয়ন নিলেন জাহাঙ্গীর, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রংপুর-৩ আসনে জাপার দলীয় মনোনয়ন নিলেন জাহাঙ্গীর, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ আসনে উপ-নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে জাতীয় পার্টির দলীয় ফরম নিয়েছেন প্রেসিডিয়াম সদস্য শিল্পপতি এসএম ফখর-উজ-জামান জাহাঙ্গীর। এর আগের দিনে এ আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম তুলেছেন রংপুর মহানগর জাপার সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসির।

বুধবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে কয়েকজন নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে বনানী কার্যালয়ে এসে দলীয় মনোনয়ন ফরম কেনেন তিনি।

জাতীয় পার্টির দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয় ২৫ আগস্ট। চারদিনে মাত্র দু’জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন বলে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে নিশ্চিত করেছেন জাতীয় পার্টির যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক এমএ রাজ্জাক খান।

১৪ জুলাই সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়ে পড়ে। উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত না হলেও ২৪ আগস্ট দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রির ঘোষণা দেয় জাপা। একই সঙ্গে আট সদস্যবিশিষ্ট পার্লামেন্টারি বোর্ড গঠন করা হয়। সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদসহ তার অনুসারী সিনিয়র নেতাদের কারোরই ঠাঁই হয়নি বোর্ডে। এরশাদ জীবিত থাকা অবস্থায় যারা বোর্ড সদস্য ছিলেন, তাদেরও অনেকের জায়গা হয়নি বোর্ডে।

দলীয় ফরমের মূল্য ধরা হয়েছে ১৫ হাজার টাকা। ঠিক কয়দিন ফরম বিতরণ করা হবে তা চূড়ান্ত করে ঘোষণা করা হয়নি। জাপার দূর্গখ্যাত এ আসনে হাফ ডজন প্রার্থী রয়েছেন জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী। এরশাদপুত্র সাদসহ পরিবারের চার সদস্য সামিল হয়েছেন মনোনয়ন দৌড়ে। একজন তো মনোনয়ন না পেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়ে মাঠে নেমেছেন।

পরিবার থেকে মনোনয়ন দৌড়ে থাকা প্রার্থীরা হলেন এরশাদপুত্র রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদ, ভাতিজা (ছোট ভাইয়ের ছেলে) সাবেক এমপি আসিফ শাহরিয়ার, ভাতিজা (মামাতো ভাইয়ের ছেলে) জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর (অব.) খালেদ আখতার ও ভাগনি (মেরিনা রহমানের মেয়ে) মেহেজেবুন্নেছা রহমান টুম্পা।

পরিবারের বাইরে থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য শিল্পপতি এসএম ফখর-উজ-জামান জাহাঙ্গীর, রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসির ও রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক। এ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন পেলেই বিজয়ী হবেন এমনটা ধরে নিয়ে লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন প্রার্থীরা।

আপনার মতামত লিখুন :

এ সম্পর্কিত আরও খবর