‘জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে সরকারের পতন ঘটানো হবে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা : জাতীয় ঐক্য সৃষ্টির মাধ্যমে উপযুক্ত কর্মসূচি দিয়ে সরকারের পতন ঘটানো হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

তিনি বলেন, জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করা হবে এই সরকারের পতন করার জন্য।  জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি হলে তখন আর নেতা-কর্মীদের ঘরে বসে থাকতে হবে না, যেমন এখানে আছেন। তখন আপনারা আন্দোলনের থাকবেন। সেই আন্দোলনের কর্মসূচি  উপযুক্ত সময়েই দেয়া হবে।

শনিবার (৩০ জুন) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয় নাগরিক অধিকার মঞ্চের আয়োজনে ‘খালেদা জিয়ার জামিন ও চিকিৎসা নিয়ে সরকারের নোংরা কৌশল বন্ধ’  বিষয়ক এক প্রতিবাদ সভায় মওদুদ আহমদ এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, একটি নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য করে সরকারের পতন ঘটানো হবে। আমাদের সামনে একটা কঠিন পথ। সেটা হল জাতীয় ঐক্য। আওয়ামী লীগ ও ১৪ দল ছাড়া সকল রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের মধ্যে যারা ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে চায়, তাদের নিয়ে জাতীয় ঐক্য গড়তে হবে। এই প্রক্রিয়া চলছে। ঐক্য হয়ে গেলে আপনাদের এখানে বসে থাকার দরকার হবে না। আপনারা সবাই রাস্তায় থাকবেন।

মওদুদ আহমদ বলেন, তারাই বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর সংবিধানকে খণ্ড-বিখণ্ড করেছে। একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছে। তাদের মন মানসিকতা এতদিনে মোটেও পরিবর্তন হয়নি। সেই সময়ে সংবিধান সংশোধন করে বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছিল । এখন যেটা করা হয়েছে এটা অনেক প্রতারণামূলক ও প্রবঞ্চনা মূলক একটি ব্যবস্থা। কাগজে কলমে বলছে সবই আছে কিন্তু আসলে কিছুই নাই। জনগণের সঙ্গে এই প্রতারণার জন্য ইতিহাসে তারা দায়ী হয়ে থাকবে। এই কলঙ্ক থেকে আওয়ামী লীগ কোনদিন মুক্ত হতে পারবে না।

সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে বলেন, আগামীতে রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে। এই নির্বাচনগুলো সরকার ও নির্বাচন কমিশনের জন্য হবে পরীক্ষা। যদি এখানেও খুলনা ও গাজীপুরের মতো একই রকম নির্বাচন হয় তাহলে আমাদের নতুন করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে কোন দলীয় সরকারের অধীনে সাধারণ নির্বাচনে অংশ নেব কি-না।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নির্বাহী কমিটির সদস্য এডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরী প্রমুখ।