ফেসবুকে অপপ্রচারের সঙ্গে মির্জা ফখরুল জড়িত: কাদের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা: শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ফেসবুকে যে অপপ্রচার হচ্ছে তাতে বিএনপি‘র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

রোববার (৫ আগস্ট) দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল আওয়ামী লীগ অফিসে সাত জনকে পিটিয়ে আহত করা  হয়েছে জানিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতে প্রমাণ হয় তিনি ফেসবুকে অপপ্রচারের সঙ্গে জড়িত। ফেসবুকে যে ভিডিও পোস্টিং হয়েছে আমাদের বিশ্বাস মির্জা ফখরুল এই ভিডিও পোস্টিং এর সঙ্গে জড়িত। আমরা এটাও বিশ্বাস করছি আওয়ামী লীগ অফিসে যে হামলা হয়েছে, এর পেছনে মির্জা ফখরুল সাহেবের দলের সংযোগ আছে। তাদের নির্দেশনায় এই সব হামলা হয়েছে। আমাদের আর অবিশ্বাস করার কোন কারণ নেই।

কাদের বলেন, ফখরুল তার নেতাকর্মীদের ঢাকায় অবরোধ করার আহ্বান জানিয়েছেন। আমির খসরু কুমিল্লা থেকে নেতা কর্মীদের ঢাকায় এসে ছাত্রদের আন্দোলনে সমর্থন জানানোর আহ্বানও জানিয়েছেন। সমর্থনের অজুহাত দিয়ে তারা ষড়যন্ত্র করছে।

তিনি বলেন, আমি বলব মির্জা ফখরুল ও আমির খসরুর ফোনের বক্তব্য প্রকাশ্যে সমর্থন দিয়েছে আন্দোলনকে। এতে প্রমাণ হয়েছে এটি একটি অরাজনৈতিক আন্দোলনকে রাজনৈতিক রূপ দিয়ে বিএনপি চেষ্টা করছে।

‘এতে বোঝা গেল থলের বিড়াল মিউ করে বের হয়ে এসেছে। বিএনপির দোসর ও জামায়াতের অপশক্তি একের পর এক আন্দোলনের উপর ভর করছে । তাদের নেতা লন্ডন থেকে ফোন করে কোটা আন্দোলনে সমর্থন দিয়েছে।  অবশেষে বিএনপি ছাত্র-ছাত্রীদের ইনোসেন্ট এবং অরাজনৈতক নিরাপদ সড়কের  যৌক্তিক দাবিতে ষড়যন্ত্রের চেষ্টা করছে।

কাদের বলেন, আজকে কিছুক্ষণ আগে আমি আমাদের নেত্রী পার্টির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা তার নির্দেশনা চেয়েছি। আমরা দেশবাসীর কাছে, ছাত্রছাত্রীদের কাছে আমাদের নেতাকর্মীদের কাছে কি নির্দেশনা থাকবে। তিনি পরিষ্কারভাবে অল্প কথায় বলেছেন, ধৈর্য ধরতে হবে, অ্যালার্ট থাকতে হবে। এই দুটি শব্দ তিনি ব্যবহার করেছেন।

তিনি বলেন, যদি কোন প্রকার প্রতিকূল পরিস্থিতি আসে সেই পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। কারণ আজকে আমরা দেখতে পাচ্ছি, ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি। এই বিএনপি জামায়াত আজকে পরিকল্পিতভাবে ষড়যন্ত্রের নীলনকশা তৈরি করেছে। আমরা বিশ্বাস করি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকলে এই ঐক্যবদ্ধ শক্তির কাছে কোন ষড়যন্ত্র কোন চক্রান্ত সফল হবে না।

রাজধানীতে বিভিন্ন স্থানে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আন্দোলনকারীদের উপর হামলা করেছে সে বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, যদি কেউ প্রমাণ দিতে পারে, আওয়ামী লীগ আক্রমণকারী তাহলে অবশ্যই আমরা ব্যবস্থা নেবো।

সংবাদ সম্মেলেন আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে মুকুল বোস, মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, একেএম এনামুল হক শামীম, আবদুস সোবহান গোলাপ, অসীম কুমার উকিল, সুজিত রায় নন্দী, আব্দুস সবুর, ডা. রোকেয়া সুলতানা, বিপ্লব বড়ুয়া, মারুফা আক্তার পপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

আপনার মতামত লিখুন :