'জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি এজেন্ট ছিলেন, যা প্রমাণিত`

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও স্বৈরশাসক মেজর জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি এজেন্ট ছিলেন, যা ইতিহাসে প্রমাণিত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

সোমবার (১৩ আগস্ট) রাজধানীর ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কার‌্যালয় প্রাঙ্গণে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শ্রমিক লীগ আয়োজিত এক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ মন্তব্য করেন।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি এজেন্ট ছিলেন। কারণ একজন পাকিস্তানি সৈন্য, পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাকে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন অবস্থায় কোননো মুক্তিযোদ্ধার কাছে তার কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করে চিঠি লিখতে পারে না।

‘কোন কাজের জন্য খুশি ছিলেন তিনি?’ মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধরার জন্য নাকি পাকিস্তানির এজেন্ট হয়ে কাজ করার জন্য। সেটা আজকে প্রমাণিত হয়েছে। ইতিহাসে তা প্রমাণ হয়েছে।’

হানিফ বলেন, ‘এই জিয়া কুখ্যাত রাজাকার প্রধান গোলাম আজমকে বিদেশ থেকে বাংলাদেশে এনে রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়েছিলেন। তিনি এই রাজাকার-আলবদর, নিষিদ্ধ জামাতদের নিয়ে রাজনীতি শুরু করেন। এতেই তিনি প্রমাণ করেছেন; তিনি পাকিস্তানি এজেন্ট।

তিনি আরও বলেন, ‘জয় বাংলা’ স্লোগান- মুক্তিযোদ্ধার স্লোগান বঙ্গবন্ধুর হত্যার পর  জয় বাংলা শ্লোগান সরিয়ে দিয়ে পাকিস্তান জিন্দাবাদের আদলে বাংলাদেশ জিন্দাবাদ স্লোগান নিয়ে আসল।

নেতাকর্মীদের সর্তক করে তিনি বলেন, বিএনপি আবার সেই রাজাকার ও নিষিদ্ধ জামাতদের সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আসছে। কিন্তু এই ষড়যন্ত্র আর হতে দেব না। যতদিন এই আওয়ামী লীগ সরকার আছে এবং প্রধানমন্ত্রী আছেন, ততদিন এই দেশে কোনো ষড়যন্ত্র হতে দেয়া যাবে না।’

সুশীল সমাজের সমালোচনা করে তিনি বলেন, সুশীল সমাজে নামে কয়েকজন ব্যক্তি আছে; তাদের সুশীল নয়, কুশীল।নিরাপদ সড়কের আন্দোলনের শিক্ষার্থীদের দাবি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেনে নিয়েছেন এবং তাদের দাবি সঙ্গে সহমত পোষণ করেছিল কিন্তু তারা শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে নিয়ে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছিল। ধরনা দিয়েছিল বিদেশীদের দ্বারে। তাদের সরকারের বিরুদ্ধের সরকার উন্নয়নের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছিল।

 

আপনার মতামত লিখুন :