সুস্থ রাখবে নারকেল

ছবি: সংগৃহীত

ক’দিন পরই শুরু হবে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজা। এই উৎসবকে কেন্দ্র করে আয়োজন করা হয় নানা রকম মজার সব খাবার। পূজার মৌসুমে নারকেল দিয়ে তৈরি নানা মিষ্টি থাকবেই। নাড়ু, ছাপ সন্দেশ থেকে শুরু করে নারকেলের নানা পদ বেশ লোভনীয়। নারকেলের গুণ জানলে লোভ আরও বাড়বে।

ভাইরাস বধ
ইনফ্লুয়েঞ্জা, মামস বা হারপিস রোগের ভাইরাস ধ্বংস করতেও সক্ষম নারকেল।

হিমোগ্লোবিন বাড়ায়
নারকেলে পর্যাপ্ত পরিমাণে লোহা বা আয়রন পাওয়া যায় যা হিমোগ্লোবিন তৈরি করে ও অ্যানিমিয়ার সমস্যা রোধ করে।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর
নারকেলে মজুত ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্যকে দূরে সরিয়ে রেখে হজমশক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

সতেরোটি অ্যামাইনো অ্যাসিডের জোগান
শরীরের প্রোটিন গঠনে মোট ২০টি অ্যামাইনো অ্যাসিডের প্রয়োজন হয়। এর মধ্যে ১৭টি অ্যামাইনো অ্যাসিডের জোগান দেয় নারকেল। থ্রিওনাইন নামক অ্যামাইনো অ্যাসিড বেশি মাত্রায় পাওয়া যায়, যা লিভার, স্নায়ুতন্ত্র ও কার্ডিওভাসকুলার সিস্টেমকে ঠিক রাখে।

মেটাবলিসম
ফলেট যা কিনা এক ধরনের বি ভিটামিন। যা হজম ক্ষমতা ঠিক রাখে। নিয়মিত নারকেল খেলে দিনে ২০ শতাংশ ফলেট শরীরে পৌঁছে যায়।

স্ট্রেস কমাতে নারকেলের দুধ
নারকেলের দুধে ম্যাগনেশিয়ামের মতো খনিজ পদার্থ থাকায় তা স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করে। এছাড়াও পেশির চাপ কমিয়ে রক্ত চলাচলকে স্বাভাবিক রাখে।

ওজন কমাতে
নারকেলের দুধে ট্রাইগ্লিসারাইডস থাকায় তা মেদ ঝরাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন ২০০ গ্রাম নারকেল খেলে মাত্র ৩ মাসেই কমে পেটের মেদ।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা
নারকেল দুধে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। সর্দি-কাশির সমস্যা কমায়।

হাড়ের গঠনে
নারকেলের পানিতে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালশিয়াম যা হাড় ও দাঁতের গঠনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

ক্যানসার
নারকেলের পানিতে থাকে সাইটোকাইনিন নামক হরমোন যা ক্যানসার প্রতিরোধে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

লাইফস্টাইল এর আরও খবর

//election count down