কেএফসি যে কারণে নাম পরিবর্তন করেছিল!

ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
কেএফসি, ছবি: সংগৃহীত

কেএফসি, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চিকেন ফ্রাই ও কেএফসি যেন একে-অপরের পরিপূরক।

মুখরোচক চিকেন ফ্রাইয়ের জগতে একছত্র আধিপত্য বিস্তার করে রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটি। স্পেশাল প্রেশার ফ্রায়ার ও অতি গোপনীয় ১১টি ভিন্ন মশলার সমন্বয়ে তৈরি এই চিকেন ফ্রাইটি পুরো বিশ্ব জুড়েই পেয়েছে তুমুল জনপ্রিয়তা।

তবে কেএফসি সম্পর্কে একটি বিষয় অনেকের কাছেই অজানা। বেশ কয়েক বছর আগে প্রতিষ্ঠানটির নাম ‘কেন্টাকি ফ্রাইড চিকেন’ থেকে পরিবর্তন করে ফেলা হয়। স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তনের ব্যাপারটি নিয়ে বেশ জলঘোলা করা হলেও,  সঠিক তথ্যটি সেভাবে উঠে আসেনি কখনোই।

বেশ অনেকগুলো ধারণার একটি হলো, নামের মধ্যে ‘চিকেন’ শব্দটি থাকার জন্য প্রতিষ্ঠানের নামটি পরিবর্তন করার জন্য চাপ দেওয়া হয়েছিল। এদিকে আবার গুজব রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির কেমিক্যালি ইঞ্জিনিয়ার্ড মুরগি ব্যবহারের জন্য এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়েছে।

তবে মুরগীর বিষয়টি বাদে নাম পরিবর্তনের কারণ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, কেন্টাকি ফ্রাইড চিকেন নামের মাঝে ‘ফ্রাইড’ শব্দটি থাকার জন্যেই তাদের নাম পরিবর্তন করে কেএফপি নামকরণ করতে হয়েছে।

এছাড়াও ১৯৯১ সালে অফিসিয়ালি কেএফসি নামে পরিবর্তিত করার পেছনে আরও একটি বড় কারণ ছিল। সেটা হলো বিশাল বড় নামটি সংক্ষিপ্ত করে নেওয়া যেন সকলেই খুব সহজে নামটি বলতে পারে।

যে কারণে এখন প্রতিষ্ঠানটির নাম বলা ক্রেতাদের জন্য সহজ হয়ে গেছে একেবারেই। পছন্দের চিকেন ফ্রাই খাওয়ার জন্য এখন আর বিশাল বড় নাম আওড়ানোর প্রয়োজন নেই। সেই সাথে আন্তর্জাতিক ম্যাগাজিন ম্যাশেবল জানাচ্ছে, যেহেতু কেএফসি এখন শুধুই চিকেন ফ্রাই বিক্রি করে না, সেই অর্থেও নাম থেকে চিকেন ফ্রাই শব্দ দুইটি উঠে যাওয়াটা বেশ কার্যকর।

আরও পড়ুন: চিজবার্গারের সুঘ্রাণযুক্ত সেন্টেড ক্যান্ডেল!

আরও পড়ুন: মাংসের ঝোলের ঘ্রানে কেএফসি’র সেন্টেড ক্যান্ডেল

আপনার মতামত লিখুন :