রান্নাতে সুস্থ মস্তিষ্ক!

ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
প্রিয় খাবার রান্না শুধু মন নয়, ভালো রাখবে মস্তিষ্ককেও, ছবি: সংগৃহীত

প্রিয় খাবার রান্না শুধু মন নয়, ভালো রাখবে মস্তিষ্ককেও, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আমাদের শরীরে অন্যান্য পেশীর মতো মস্তিষ্কও একইভাবে কাজ করে।

যে কারণে মস্তিষ্কের সুস্থতা ও কার্যকারিতা বৃদ্ধিতে, প্রয়োজন হবে তাকে নিয়ে কাজ করা বা তাকে কাজ করানো। বেশ কয়েক ধরনের উপায় মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করা যায়, যার মাঝে নিত্যদিনের রান্নাবান্নাও রয়েছে। আনন্দ নিয়ে প্রিয় খাবারটি রান্না করাও এক ধরনের মস্তিষ্কের ব্যায়ামের অন্তর্ভুক্ত!

তবে রান্নাবান্নাতে আগ্রহ না থাকলেও সমস্যা নেই, এর সাথে আরও কয়েক ধরনের ভিন্নমাত্রিক কার্যক্রম মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বৃদ্ধিতে অবদান রাখবে।  

বাদ্যযন্ত্র বাজানো শিখুন

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/17/1563339636913.jpg

ব্যস্ততার মাঝেও সময় করে নির্দিষ্ট কোন একটি বাদ্যযন্ত্র বাজানো শেখার ক্লাসে ভর্তি হয়ে যান। যেটা হতে পারে গিটার, বাঁশি অথবা পিয়ানো। বাদ্যযন্ত্র বাজানো শেখার মাধ্যমে মন প্রফুল্ল হয় ও মস্তিষ্কের উপর ইতিবাচক প্রভাব তৈরি হয়।

মনে মনে অংক করুন

কিছু সময় ক্যালকুলেটরকে সরিয়ে নিজ মনে হিসাবনিকাশ সেরে নিতে হবে। মন বলতে বোঝানো হচ্ছে মাথা। ছোটখাটো যোগ-বিয়োগের ক্ষেত্রে নিজে নিজেই হিসাবগুলো করে নিতে হবে। যা মস্তিষ্ককে কর্মক্ষম রাখতে ও দ্রুত কাজ করতে সাহায্য করে।

অতীতের কোন ঘটনা মনে করার চেষ্টা করুন

আগেকার সময়ে ঘটে যাওয়া ভালো ও আনন্দদায়ক কোন ঘটনার স্মৃতিচারণ মনকে ভালোই করবে না, সাথে মস্তিষ্কের চর্চাতেও ভূমিকা রাখবে। স্মৃতি নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটির ফলে নিউরাল সংযোগ দৃঢ় হয়।

পছন্দের খাবার রান্না করুন

অনেকের কাছে অবাক হওয়ার মতো তথ্য হলেও, প্রিয় ও পছন্দের খাবার খুব আয়োজন করে রান্না করাও আপনার মস্তিষ্কের উপরে ইতিবাচক প্রভাব তৈরি করে বলে জানাচ্ছে গবেষকেরা। রান্নার আয়োজনে রেসিপি অনুযায়ী সকল উপাদান সংগ্রহ করা, গুছিয়ে রাখা, পরিমাণ ঠিক রাখা, সময় ধরে জিনিসপত্র ব্যবহার করা, খাবারের দারুণ দৃশ্য, সুগন্ধ ও স্বাদ মস্তিষ্ককে উত্তেজিত করে ও কর্মক্ষম রাখতে কাজ করে। যা মস্তিষ্কের বিভিন্ন অংশের বিভিন্ন কাজে অবদান রাখে।

পাজল গেম খেলুন

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/17/1563339620109.jpg

মস্তিষ্কের পাশাপাশি চোখের কোঅর্ডিনেশনকে সমন্বিত রাখতে চাইলে পাজল গেম খেলতে হবে। মোবাইল বা ট্যাবে পাজল গেম না খেলে বাস্তবের পাজল বক্সের পাজল গেম খেলা হবে উত্তম পন্থা। এতে করে মস্তিষ্ক নানাভাবে চিন্তা করে, সংযোগ খোঁজার চেষ্টা করে, অমিলের ভেতর থেকে মিলকে খুঁজে বের করতে কাজ করে। যা সামগ্রিকভাবে মস্তিষ্কের উপর উপকারী প্রভাব বিস্তার করে।

নতুন ভাষা শেখা শুরু করুন

জানার তো কোন শেষ নেই। সেক্ষেত্রে পছন্দ ও প্রয়োজন অনুযায়ী নতুন কোন ভাষা শেখা শুরু করুন। যা জ্ঞানীয় কার্যকারিতার পাশাপাশি মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বৃদ্ধিতে কাজ করবে।

আরও পড়ুন: হিমশিম খাচ্ছেন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণে?

আরও পড়ুন: বয়সের আগেই বুড়িয়ে যাচ্ছেন?

আপনার মতামত লিখুন :