যে কারণে মশা আপনাকে বেশি কামড়ায়!

ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আমাদের প্রত্যেকের পরিচিত এমন একজন বা কয়েকজন রয়েছে যাদেরকে মশা তুলনামূলক বেশি কামড়ায়।

কোন স্থানে একত্রে অনেকজন থাকলে দেখা যাবে নির্দিষ্ট কোন একজন ব্যক্তিকেই মশা বেশি কামড়াচ্ছে। এমন সমস্যাটিকে অনেকে মনের ভ্রান্তি ভেবে উড়িয়ে দেন। কিন্তু এর পেছনেও রয়েছে যথেষ্ট কারণ ও বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা।

মশারা কেন মানুষের প্রতি আকর্ষিত হয়?

মশা কামড়ানোর পেছনে থাকে মানুষের ত্বকের উপাদানসমূহ বা কম্পাউন্ডসের উপস্থিতি এবং শরীরের গন্ধ। ভেক্টর বায়োলজিস্ট বার্ট ক্যানলস মশা ও মশা কামড়ানোর কারণের উপরে তার গবেষণা করেছেন। তিনি জানান, মানুষ কার্বন ডাই অক্সাইড গ্রহণের সাথে শরীরে ব্যবহৃত বেশ কিছু কেমিক্যাল উপাদানও নিঃশ্বাসের মাধ্যমে গ্রহণ করে। যা মানব শরীরে এক ধরনের ‘ওডর প্লাম’ তৈরি করে। এই ওডর (গন্ধ) মশা ১০০ ফিট দূর থেকেও শনাক্ত করতে পারে। তিনি আরও জানান, প্রতিটি মানুষের শরীর থেকে কমবেশি ৩০০ ধরনের কেমিক্যাল উপাদান নিঃসৃত হয়।

নির্দিষ্ট কারোর উপরে মশা কেন বেশি আকর্ষিত হয়?

মশার প্রজাতি ও মানুষের শরীরের ত্বক, গন্ধের উপর নির্ভর করে মশা নির্দিষ্ট মানুষের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়ে থাকে। যেমন- এশিয়ান টাইগার মসকুইটো ল্যাকটিক অ্যাসিডের উপস্থিতি বেশি আছে এমন মানুষের ত্বকের প্রতি বেশি আকৃষ্ট হয়। অন্যদিকে আফ্রিকান ম্যালেরিয়া মসকুইটো ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ ত্বকের দিকে তুলনামূলক বেশি আকৃষ্ট হয়।

ক্যানলস জানান, মশার প্রজাতি এবং মানুষের শরীরের নিজস্ব ঘ্রাণ ও তার নিঃশ্বাসের সাথে কী ধরনের কেমিক্যাল মিশছে- এইসকল বিষয়ের উপর নির্ভর করে মশারা নির্দিষ্ট মানুষের প্রতি বেশি আকৃষ্ট হয়।

এর সাথে জেনেটিক্যাল গঠন, স্বাস্থ্যের অবস্থা, খাদ্যাভ্যাস, ত্বকের আর্দ্রতা, মাইক্রোফ্লোরাসহ প্রভৃতি বিষয়গুলোও সংযুক্ত থাকে।

ক্যানলস বলেন, ‘আমাদের লোমকূপ থেকে যে সকল উপাদান নির্গত হয়, তা ত্বকে থাকা ব্যাকটেরিয়ার মাধ্যমে বিক্রিয়া ঘটায়, যা মশাকে আকৃষ্ট করার মতো ঘ্রাণ তৈরি করে। সেক্ষেত্রে বলা যায়, আমাদের প্রতি বা আমাদের ত্বকের প্রতি নয়, মশারা আমাদের ত্বকে থাকা ব্যাকটেরিয়ার প্রতি আকৃষ্ট হয়।’

ক্যানলস আরও যোগ করেন, অনেকের মাঝেই ভ্রান্ত ধারণা থাকে যে, রক্ত মিষ্টি হওয়ার দরুন নির্দিষ্ট ব্যাক্তিকে মশা বেশি কামড়ায়। কিংবা রক্তের গ্রুপের উপর নির্ভর করে মশা কম-বেশি আকর্ষিত হয়। অথচ পরীক্ষা করে কিংবা গবেষণা করে এ ধরনের তথ্যের নির্ভরযোগ্য সত্যতা পাওয়া যায়নি বলে ক্যানলস জানায়।

কীভাবে মশাকে দূরে রাখতে হবে?

যদি আপনার প্রতি মশা তুলনামূলক বেশি আকর্ষিত হয়ে থাকে তবে নিজেকে সবসমপ্য পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করতে হবে। সাথে লেমন অয়েলে ব্যবহার করতে হবে ও লেবুর রস মিশ্রিত পানি পান করতে হবে। সকল প্রজাতির মশাই লেবুর গন্ধে দূরে থাকে থাকে।

আরও পড়ুন: মশা তাড়াবে যে গাছগুলো!

আরও পড়ুন: যেভাবে মশা দূরে থাকবে আপনার কাছ থেকে!

আপনার মতামত লিখুন :