‘ভ্রমণগদ্য’-র আয়োজনে অনবদ্য সাহিত্যসন্ধ্যা

মেঘদূত ডেস্ক
‘ভ্রমণগদ্য’-র আয়োজনে অনবদ্য সাহিত্যসন্ধ্যা

‘ভ্রমণগদ্য’-র আয়োজনে অনবদ্য সাহিত্যসন্ধ্যা

  • Font increase
  • Font Decrease

পশ্চিমবঙ্গের কবি-লেখক সৌমিত বসুর ঢাকা ভ্রমণকে কেন্দ্র করে ভ্রমণভিত্তিক কাগজ ‘ভ্রমণগদ্য’ আয়োজন করল ভ্রমণগল্প, কবিতা, গানের এক অনবদ্য সন্ধ্যা। মঙ্গলবার (সেপ্টেম্বর) ইস্কাটন গার্ডেনের জাপান-বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে আয়োজিত এ সাহিত্যসন্ধ্যায় দু’পর্বে সভাপতিত্ব করেন কবি ও ভ্রামণিক সৈয়দ আহমদ আলী আজিজ ও কথাশিল্পী আফরোজা পারভীন। পুরো অনুষ্ঠান পরিচালনা ও সঞ্চালনা করেন ভ্রমণগদ্য সম্পাদক কবি পরিব্রাজক মাহমুদ হাফিজ। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ জাপানের সভাপতি শেখ এমদাদ। 

অনুষ্ঠানে কবি সৌমিত বসু তাঁর বিভিন্ন বই থেকে একগুচ্ছ কবিতা পাঠ করেন। অনুষ্ঠানে ঘুরে ফিরে আসে তাঁর কবিতার ভাবগাম্ভীর্যময় কাব্যসম্পদ। সৌমিত বসুর কবিতা নিয়ে আলোচনা করেন কবি হাসান হাফিজ, কবি ফারুক মাহমুদ, কবি-গবেষক বিলু কবীর, মাহমুদ হাফিজ ও কবি শাহীন রেজা। আলোচকগণ বলেন, সৌমিত আশির দশকের এমন মাপের কবি, যাঁর কাব্যপ্রতিভা পশ্চিমবঙ্গ থেকে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশেও পাড়ি দিয়েছে। তিনি সমকালীন জীবনযাপনের আলোকে তাঁর কবিতাকে গড়ে তোলেন এক নতুন সমাজ বিনির্মাণের স্বপ্ন। একজন সৌমিতের সৃজনশীলতাই তাঁকে অন্য সৃজনশীলদের কাছাকাছি নিয়ে আসে, বন্ধু বানিয়ে দেয়।

অনুষ্ঠানে ভ্রমণ অভিজ্ঞতা শোনান ভ্রমণ লেখক, সাবেক রাষ্ট্রদূত ইকতিয়ার চৌধুরী ও কথাশিল্পী আফরোজা পারভীন। ভ্রমণগদ্য সম্পর্কে আলোকপাত করেন কবি ও ভ্রমণলেখক কামরুল হাসান। কবি ও গবেষক ড. রকিবুল হাসান বাংলাভাষার অস্তিত্ব নিয়ে নাতিদীর্ঘ আলোপাত করেন। একগুচ্ছ কবিতা আবৃত্তি করে শোনান পশিমবঙ্গের সফররত বাচিকশিল্পী নুপুর মুখার্জী। কবিতা পাঠ করেন কবি আবাম ছালাহউদ্দিন, ফারুক মাহমুদ, হাসান হাফিজ, কামরুল হাসান, বিলু কবীর, মাহমুদ হাফিজ, রকিবুল হাসান, প্রণব মজুমদার, ইসমত শিল্পী, মুনিরা মিম্মু, কৌমুদী নার্গিস, কাজিম রেজা, আবদুল মান্নান, সুধীর কৈবর্ত। 

নিজের কবিতাকে সুরারোপ করে অনবদ্য গায়কীতে সাহিত্যসন্ধ্যা রাঙিয়ে তোলেন কবি ও সাংবাদিক আবু সাঈদ জুবেরী। তিনি নিজের লেখা বেশ কয়েকটি গান গেয়ে শোনান। সাহিত্যসন্ধ্যার বিশেষ আকর্ষণে পরিণত হন সঙ্গীতশিল্পী পলি রহমান ও সুধীর কৈবর্ত। সুধীর কৈবর্ত পুরনো দিনের গান গেয়ে শোনান। পলি রহমান অনুষ্ঠানের মাঝামাঝি সঙ্গীত পরিবেশন করে উপস্থিত কবিদের এমন এক সুরের আবেশে জড়ান যে, রাত গভীর হতে থাকলেও কারও ওঠার তাড়া ছিল না। সকলের দাবিতে তাকে আবার মাইক্রোফোন হাতে নিতে হয় এবং অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে এই শিল্পীর সঙ্গীতের সুরে সুরে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করার কথা ছিল জাতিসত্তার কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার। অনিবার্যকারণে তিনি না আসলেও উদ্যোক্তারা আগত জৈষ্ঠ্যদের মধ্য থেকে সভাপতি নির্বাচিত করে অনুষ্ঠান সফল করেন। শুরুতে ‘ভ্রমণগদ্য’এর চলতি সংখ্যার পাঠ-উন্মোচন করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :