Barta24

বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

English

ক্রীড়া সামগ্রী নিয়ে সংসদে ক্ষোভ, প্রতিমন্ত্রীর আশ্বাস

ক্রীড়া সামগ্রী নিয়ে সংসদে ক্ষোভ, প্রতিমন্ত্রীর আশ্বাস
ছবি: সংগৃহীত
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
ঢাকা
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

প্রতিবছর প্রত্যেক সংসদ সদস্যের নামে কিছু ক্রীড়া সামগ্রী বরাদ্দ করা হয়। এসব ক্রীড়া সামগ্রীর মান নিয়ে সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সরকার দলীয় সংসদ সদস্যরা।

বিষয়টি স্বীকার করে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, 'আমি এই মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি থাকাকালীন সময় এ নিয়ে একাধিকবার প্রশ্ন তুলেছেন সংসদ সদস্যরা। আমরা চেষ্টা করছি, এবার শুধু মান বৃদ্ধি না, সামগ্রী বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছি।'

মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী একথা বলেন।

ক্রীড়া সামগ্রীর মান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে আব্দুল মান্নান বলেন, 'প্রতি বছর এমপিদের নামে ক্রীড়া সামগ্রী (ফুটবল, জার্সিসহ) যে সকল খেলাধুলা সামগ্রী বরাদ্দ দেওয়া হয়, সেগুলো এতো নিম্নমানের এগুলো মান বৃদ্ধি করতে না পারলে বন্ধ করে দেওয়া উচিত। না হলে সরকারের বদনাম হবে, মন্ত্রণালয়ের বদনাম হবে।'

জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, 'প্রশ্নটি যুক্তিযুক্ত। বিষয়টি আমি এই মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি থাকাকালীন বার বার সদস্যরা প্রশ্ন তুলেছেন। আমরা অনেকবার চেষ্টা করেছি মান উন্নয়ন করার। এবার শুধু মান উন্নয়ন না পরিমাণও যাতে বৃদ্ধি পায় বিষয়টি কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।'

জাসদ একাংশের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য শিরিন আখতারের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, 'জুডো ও তায়কোয়ান্দো খেলায় আমাদের নারীরা এগিয়ে আছে। নিজেদের আত্মরক্ষার প্রস্তুতি হিসেবেই নয় জুডো ও তায়কোয়ান্দো খেলায় দেশীয় আন্তর্জাতিক অনেক পুরস্কার নিয়ে আসছি। এই খেলা যাতে জেলা পর্যায়ে এবং তৃণমূল পর্যায়ে আরও বেশি ছড়িয়ে দেওয়া উচিত। আমাদের তৃণমূল পর্যায়ে খেলোয়াড় বাছাই প্রক্রিয়ায় জুডো এবং তায়কোয়ান্দো খেলাটি যুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে।'

ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুলের অপর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, 'আমরা সারাদেশে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ১৩১টি নির্মাণ করা হয়েছে। আমরা ৪৯১টি উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করব। শিগগিরিই আরও ২০০ টি স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হবে।'

আপনার মতামত লিখুন :

সংসদের চতুর্থ অধিবেশন শুরু ৮ সেপ্টেম্বর

সংসদের চতুর্থ অধিবেশন শুরু ৮ সেপ্টেম্বর
জাতীয় সংসদ ভবন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

আগামী ৮ সেপ্টেম্বর বিকাল ৫টা থেকে একাদশ জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশন কার্যসূচি শুরু হচ্ছে। বুধবার (২১ আগস্ট) রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ সংবিধানের ক্ষমতাবলে এই অধিবেশনের আহ্বান করেন।

বাংলাদেশের সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ অধিবেশন আহ্বান করেন তিনি।

এর আগে গত ১১ জুন একাদশ জাতীয় সংসদের তৃতীয় তথা বাজেট অধিবেশন শুরু হয়েছে। এই অধিবেশন গত ১১ জুলাই শেষ হয়। এই অধিবেশনে গত ১৩ জুন ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব করা হয়, যা গত ৩০ জুন পাস হয়।

আরও পড়ুন: বাজেট অধিবেশন শেষ

সংসদে ঈদ জামাত সকাল সাড়ে ৭টায়

সংসদে ঈদ জামাত সকাল সাড়ে ৭টায়
সংসদ ভবন

প্রতি ঈদের মতো এবারও সংসদে ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ১২ আগস্ট ঈদুল আজহার দিন সকাল সাড়ে ৭টায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় ঈদ জামাত অনুষ্টিত হবে।

যদি বৈরী আবহাওয়া থাকে তাহলে সংসদের টানেলের নিচে জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

সংসদ ভবনের ঈদ জামাত পরিচালনা করবেন জাতীয় সংসদ জামে মসজিদের পেশ ইমাম।

ঈদ জামাতে জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ, অন্যান্য হুইপ, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, সংসদ-সদস্য ও সংসদ সচিবালয়ের কর্মচারীরা অংশ নেবেন। এছাড়াও সংসদের ঈদের নামাজের জামাত সবার জন্য উন্মুক্ত। জামাতে আগ্রহী মুসল্লিদের অংশ নিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র