Alexa

খেলোয়াড়রা বিদেশে গেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানাতে হবে

খেলোয়াড়রা বিদেশে গেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানাতে হবে

জাতীয় সংসদ/ ছবি: বার্তা২৪.কম

ঢাকা: বাংলাদেশি ডেলিগেটসদের নিরাপত্তার সুবিধার্থে কিছু প্রস্তাব করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা নিউজিল্যান্ড সফরে থাকা অবস্থায় ১৫ মার্চ দেশটির ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে বন্দুকধারীর গুলিতে মৃত্যু হয় ৫০ জনের। এর প্রেক্ষিতে এমন সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

এখন থেকে সরকারিভাবে বাংলাদেশি কোনো ডেলিগেট ও খেলোয়াড় বিদেশ সফরে গেলে তা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানাতে সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়কে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিতে বলেছে সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

জাতীয় সংসদ ভবনে মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির তৃতীয় বৈঠকে এ প্রস্তাব করা হয়। এ বিষয়টি নিশ্চিত করা গেলে বিদেশে যাওয়ার পর বাংলাদেশি ডেলিগেট বা খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার ব্যাপারে সফররত দেশের মিশনগুলো তৎপর থাকবে বলে কমিটি মনে করে। এতোদিন খেলোয়াড়রা বিদেশে গেলে শুধু বিসিবি বা সংশ্লিষ্ট বোর্ডই জানতো।

এছাড়া সফররতদের নিরাপত্তার বিষয়ে মিশনগুলো যাতে সব সময় তৎপর থাকে সেজন্য মন্ত্রণালয় থেকে মিশনে চিঠি দেওয়ার সুপারিশ করা হয় বৈঠকে।

বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ২০১৯ সালের কর্মপরিকল্পনা, বাস্তবায়ন ও অগ্রগতি প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। সেই সঙ্গে এসব পরিকল্পনা দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ, অর্থ বরাদ্দ এবং দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়ারও সুপারিশ করা হয়।

এসময় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন চলমান আটটি প্রকল্প বাস্তবায়নের অগ্রগতি প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয় এবং প্রকল্পগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য সুপারিশ করা হয়।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিদেশ সফরের পর কেবিনেটে যেমন প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়, স্থায়ী কমিটিতেও একইভাবে প্রতিবেদন উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়। বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সারাবিশ্বে অর্থনৈতিক কূটনীতি জোরদার করতে বিদেশে নিযুক্ত বাংলাদেশি মিশনগুলোকে পদক্ষেপ নেওয়ারও সুপারিশ করা হয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ. কে. আব্দুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, নুরুল ইসলাম নাহিদ, গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, মো. হাবিবে মিল্লাত, নাহিম রাজ্জাক এবং কাজী নাবিল আহমেদ অংশ নেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মাহবুবুজ্জামান, মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব খোরশেদ আলম, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :