Alexa

সব শ্রেণীর মানুষের ‘ডোপ টেস্ট’ চায় সংসদীয় কমিটি

সব শ্রেণীর মানুষের ‘ডোপ টেস্ট’ চায় সংসদীয় কমিটি

ছবি: সংগৃহীত

সব শ্রেণীর মানুষের ডোপ টেস্ট করার ব্যাপারে মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দিয়েছে সংসদীয় কমিটি। চাকরিরত অথবা কেউ চাকরিতে যোগদানের আগে ডোপ টেস্টে মাদক গ্রহণের প্রমাণ মিললে তাকে বহিষ্কার বা চাকরিতে না নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।

সেই সঙ্গে মাদকের ব্যাপারে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান আরো জোরদার করারও প্রস্তাব দিয়েছে সংসদীয় কমিটি।

বুধবার (২২ মে) জাতীয় সংসদ ভবনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ প্রস্তাব করা হয়।

বৈঠক শেষে কমিটি সভাপতি মো. শামসুল হক টুকু বলেন, ডোপ টেস্টের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা হলো- ডোপ টেস্টে কেউ ধরা পড়লেই আউট।

এছাড়া রাজধানীর যানজট নিয়ে কমিটি আলোচনা করেছে। যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা নেই সেসব প্রতিষ্ঠানে নির্দেশনা পাঠাতে বলা হয়েছে যেন রাস্তায় গাড়ি পার্কিং না করা হয়।

ডোপ টেস্টের বিষয়ে কমিটির সভাপতি মো. শামসুল হক টুকু বার্তা২৪.কমকে বলেন, যেখানে প্রয়োজন হবে সেখানেই ডোপ টেস্ট করতে হবে। ডোপ টেস্টে কেউ আউট হলে, সে আউট। চাকরিতে নিয়োগ বা চাকরিরত অবস্থায় ডোপ টেস্টে আউট হলে সবাই সর্তক হবে।

আইনশৃঙ্খলা বিঘ্নকারী যে কোনো সম্ভাব্য অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার তথ্যকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে যথাযথভাবে তদারকিরও সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। আলোচনার একপর্যায়ে কমিটির সদস্য পীর ফজলুর রহমান বৈঠকে হেনরী স্বপনের গ্রেফতারের বিষয়টি আলোচনায় আনেন। এ ধরনের ক্ষেত্রে আরো সর্তক থেকে পুলিশকে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয় বৈঠকে।

এছাড়া আসন্ন ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে রাস্তায় বা মার্কেটে যেন কোনোভাবেই চাঁদাবাজি না হয় সে বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে তৎপর থাকতে বলা হয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমনে কঠোর হওয়ার প্রস্তাব করেছে কমিটি। পাশাপাশি পর্নোগ্রাফি বন্ধের জন্যও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

সম্প্রতি রাজশাহীর বনলতা ট্রেনে ঢিল ছোড়ার ঘটনাটি কমিটিতে আলোচনা হয়। রেল পুলিশকে গুরুত্বের সঙ্গে বিষয়টি দেখতে বলা হয়েছে। এসময় কমিটিকে রেল পুলিশ জানায়, পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে। প্রথম দিকে কিছু ঘটনা ঘটেছে ওই এলাকায় ট্রেন না থামার কারণে, আবার কিছু উৎসুক জনতাও ঢিল মেরেছে। তবে যাই হোক আগামীতে যাতে এ ধরনের ঘটনা না ঘটে সেজন্য তারা সতর্ক থাকবে।

কমিটির সভাপতি মো. শামসুল হক টুকুর সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, মো. হাবিবর রহমান, মো. ফরিদুল হক খান, পীর ফজলুর রহমান এবং নূর মোহাম্মদ অংশ নেন।

বৈঠকে জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব, সংশ্লিষ্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক, বাংলাদেশ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :