‘বাজেট পরিচালনা টিমের বেশিরভাগ সদস্য ব্যবসায়ী’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সম্পূরক বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নেন সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম/ ছবি: সংগৃহীত

সম্পূরক বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নেন সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম/ ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় সংসদ ভবন থেকে: বাজেট বাস্তবায়নে সরকারের ত্রুটি তুলে ধরে বিরোধীদল জাতীয় পার্টির দলীয় সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম বলেছেন, ‘এবার অর্থনীতি পরিচালনা টিমের সবাই ব্যবসায়ী। অর্থমন্ত্রী ব্যবসায়ী, বাণিজ্যমন্ত্রী ব্যবসায়ী, প্রধানমন্ত্রীর প্রাইভেট খাতের উপদেষ্টা সংসদ সদস্য আবার ব্যবসায়ী, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ব্যবসায়ী, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী ব্যবসায়ী, খাদ্যমন্ত্রী ব্যবসায়ী, এবার এক অর্থে ব্যবসায়ী মহল দায়িত্বে।

তিনি বলেন, ‘কাজেই অর্থ ব্যবস্থাপনা কারা করছে এটি হচ্ছে বড় কথা। উনারা ব্যবসায়ী উনাদের নতুন কৌশল থাকতে পারে। ভেবেছিলাম আমলাতান্ত্রিক গতানুগতিকতার বাইরে একেবারেই দেখা যাচ্ছে না।’

রোববার (১৬ জুন) বিকালে একাদশ জাতীয় সংসদের তৃতীয় অধিবেশনে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে একথা বলেন জাপা দলীয় সংসদ সদস্য। এর আগে বিকাল ৩টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে দিনের কার্যসূচি শুরু হয়।

ফখরুল ইমাম বলেন, ‘সম্পূরক বাজেট, এই টাকা তো খরচ করা হয়েছে। কিন্তু যারা খরচ করতে পারেননি, তারা কেন খরচ করতে পারলেন না। কী কারণে মন্ত্রণালয়গুলো টাকা খরচ করতে পারল না এটার ব্যাখ্যা থাকা দরকার। ৭৬ শতাংশের বেশি বাজেট বাস্তবায়ন করতে পারেনি।’

ব্যাংকিং খাতের ঘাটতি নিয়ে তিনি বলেন, ‘ব্যাংকে তো টাকা নেই। এবার ২২ হাজার কোটি টাকা মূলধন রাখা হয়েছে। গত ১০ বছরে ১৬ হাজার কোটি টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে। ২০১১ সালে ঋণ খেলাপির পরিমাণ ছিল ২২ হাজার কোটি টাকা। সেটি ২০১৯ সালে দাঁড়িয়েছে এক লাখ ১০ হাজার ১৮৩ কোটি টাকায়। এর মধ্যে অবলোপন করা হয়েছে ৪৫ হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ দেড় লাখ কোটি টাকার ঋণ খেলাপি।’

ব্যাংকে ঋণের সুদের হার এক ডিজিটে না আনায় সমালোচনা করে বলেন, ‘হুকুম দিয়েও ব্যাংক ঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে আনা সম্ভব হয়নি। লোকসানে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান। ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে নিট লোকসান দাঁড়িয়েছে চার হাজার ৩২৪ কোটি টাকা। আর ২০১৯-২০ অর্থবছরে দাঁড়াবে পাঁচ হাজার ৬৭ কোটি টাকা। বিদ্যুৎ খাতে লোকসান ১০ হাজার ২৬১ কোটি টাকা। বাজেট বাস্তবায়নে আরো দক্ষ হওয়া উচিৎ।’

আপনার মতামত লিখুন :