রি-ইনভেস্টের কথা বলে ২০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
২০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক পলাশ, ছবি: বার্তা২৪.কম

২০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক পলাশ, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রেক্স আইটি ইনস্টিটিউট নামে একটি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন মো.আব্দুস সালাম পলাশ। প্রতিষ্ঠানটিতে আউট সোর্সিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, এসইও, ওয়েব ডিজাইন ও ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রশিক্ষণ দেওয়া হত।

প্রশিক্ষণের আড়ালে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিং পেইড মার্কেটিং প্রচারণা চালাতেন আব্দুস সালাম পলাশ৷ শিক্ষার্থীরা যদি এখানে বিনিয়োগ করে তাহলে ৫০-১০০ শতাংশ রিটার্ন পাবেন বলেও আশ্বাস দিতেন পলাশ।

পলাশের এমন আশ্বাসে প্রতিষ্ঠানটির পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী বিভিন্ন অংকের টাকা বিনিয়োগ করে। প্রথমে যারা বিনিয়োগ করত বেশি বেশি লাভ দেখিয়ে তাদের পেমেন্ট করা হত। পরবর্তীতে বেশি লাভের আশায় তারা আরও মোটা অংকের টাকা বিনিয়োগ করে। আর এই সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন পলাশ। সেই এই মোটা অংকের টাকা কোথাও ইনভেস্ট না করে নিজে হাতিয়ে নেন।

রি-ইনভেস্টের কথা বলে ২০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক

পরে শিক্ষার্থীরা টাকা চাইলে সে বলে টাকা রি-ইনভেস্ট করা হয়েছে। এই কথা বলে বলে ২-৩ মাস পর ২০০ কোটি টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় পলাশ।

গত বৃহস্পতিবার (১০ মে) এক ভিকটিমের অভিযোগের ভিত্তিতে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে আব্দুস সালাম পলাশকে গ্রেফতার করে ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি)।

এ সময় তার কাছ থেকে একটি টয়োটা সেলুন কার, পাঁচটি ল্যাপটপ, তিনটি হার্ড ডিস্ক ও ৬ লাখ ৭১ টাকাসহ বিদেশি মুদ্রা এবং নন ব্যাংকিং কাগজপত্র জব্দ করা হয়।

রোববার (১২ মে) রাজধানীর মালিবাগে সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল ইসলাম।

রি-ইনভেস্টের কথা বলে ২০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক

মোল্লা নজরুল ইসলাম বলেন, 'সবাইকে মনগড়া একটি হিসেবে দেখিয়ে পলাশ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা আত্মসাৎ করে। তার এসব ভুয়া আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা বেশি বেশি টাকা বিনিয়োগ করতে থাকে। পরবর্তীতে টাকার পরিমাণ বেশি হয়ে গেলে বিনিয়োগকারীদের আংশিক পেমেন্ট দেওয়া হতো আর বলা হত বাকি টাকা রি-ইনভেস্ট করা হয়েছে। আসলে সে কোনো মার্কেটিং না করে এমএলএম ব্যবসার মতো মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে অন্যদের লাভ দিত। তার এই প্রতারণা বিষয়টি অনেকে বুঝতে পারায় পলাশ গা ঢাকা দেয়। পরে আমরা তাকে গ্রেফতার করি।'

তিনি বলেন, '২০১০ সালে পলাশ আউটসোর্সিং এর কাজ শুরু করে। ২০১৬ সালে সে আইটি ভিশন এ ট্রেনার হিসেবে ৯ মাস কাজ করে। পরে ২০১৭ সালে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে সে রেক্স আইটি ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করে। প্রথমে সে শিক্ষার্থীদের ট্রেনিং করালেও পরবর্তীতে সে প্রতারণার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে।'

তিনি আরও বলেন, 'পলাশের বিরুদ্ধে ধানমণ্ডি থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও মানি লন্ডারিং আইনে মামলা করা হয়েছ। বিষয়টি আমরা তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি।'