‘বাজেট যেন হয় পরিবেশবান্ধব’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
পবা ও বারসিক আয়োজিত নাগরিক সংলাপ, ছবি: বার্তা২৪

পবা ও বারসিক আয়োজিত নাগরিক সংলাপ, ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

উন্নয়নের নামে দেশের প্রকৃতি ও বৈচিত্র্য বিনষ্ট করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছে ‘পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন’ (পবা) ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘বাংলাদেশ রিসোর্স সেন্টার ফর ইনডেজিনাস নলেজ’ (বারসিক)। এ অবস্থায় ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটকে পরিবেশবান্ধব করার দাবি তাদের।

এ সংক্রান্ত এক গবেষণায় প্রতিবেশ ও প্রাণবৈচিত্র্য সংরক্ষণ বিষয়ক পাভেল পার্থ বলেছেন, পরিবেশ খাতে বাজেট বাড়ছে না, কমছে। এই বিতর্কের চেয়েও গুরুত্ব দেওয়া দরকার- বাজেট বরাদ্দ ও ব্যবস্থাপনায় পরিবেশবান্ধব দিকগুলো।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক শফিক উজ জামান বলেন, প্রবৃদ্ধি বাড়লেই উন্নয়ন হয় না। যত প্রবৃদ্ধি তত পরিবেশ দূষণ। পরিবেশ রক্ষা করেই আমাদের জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনার চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে হবে।

পবার চেয়ারম্যান আবু নাসের খান বলেন, পরিবেশকে সমুন্নত রাখতে উন্নয়নের পাশাপাশি পরিবেশের উন্নয়নও করতে হবে। শুধু কাঠামোগত উন্নয়ন হলেই তার মানুষ ও প্রাণ প্রকৃতির জন্য নিরাপদ হবে না। আর যে উন্নয়ন মানুষমুখি নয় তা কখনও প্রকৃত উন্নয়ন নয়।

‘সরকারকে পরিবেশ উন্নয়নে আরো ইতিবাচক পদক্ষেপ নিতে হবে। এতে পরিবেশবাদীরা সরকারকে সব ধরনের সহযোগিতা করবে।’

জাতীয় প্রেসক্লাবে যৌথভাবে শনিবার (২৯ জুন) পবা ও বারসিক ‘জাতীয় বাজেট: পরিবেশ ও উন্নয়ন বিতর্ক’ শীর্ষক নাগরিক সংলাপের আয়োজন করে। সংলাপে বক্তারা এসব কথা বলেন। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গবেষক পাভেল পার্থ।

সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মো. রেজাউল করিম বাবলু বলেন, ২০০৮ সালে পলিথিন উৎপাদন নিষিদ্ধ হলেও দেশে বর্তমানে দুই লাখ ৬৫ হাজার মেট্রিক টন পলিথিন উৎপাদিত হচ্ছে। আজ পরিবেশ বিধ্বংসীরাই দেশের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করছে। কীটনাশক দিয়ে আমরা মাটির উর্বরতা নষ্ট করছি ও প্রাকৃতিক মাছ ধ্বংস করছি। কীটনাশক থেকে বের হয়ে আমাদের প্রাকৃতিক উপায়ে কৃষি উন্নয়নের চিন্তা করতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করার জন্য বিদেশি ষড়যন্ত্র আছে, এটি আমাদের বুঝতে হবে। আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছি কিন্তু পরিবেশের ভারসাম্যের ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছি। পরিবেশ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে ব্যক্তি থেকে সমাজ পর্যন্ত।

পবার চেয়ারম্যান আবু নাসের খানের সভাপতিত্বে সংলাপে আরও বক্তব্য দেন আইনজীবী হাসান তারিক চৌধুরী, প্রকৌশলী তোফায়েল আহমেদ, কবি শাহেদ কায়েস, মেনন চৌধুরী প্রমুখ।