হিজাব নিষিদ্ধের প্রতিবাদে ডেনমার্কে বিক্ষোভ চলছেই



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

হিজাব পরে শপিং মলে যাওয়ায় ডেনমার্কের এক তরুণীকে ১৫৬ ডলার জরিমানা করা হয়েছে। ২৮ বছর বয়সী ওই নারীকে শপিং মলে দেশটির পুলিশ হিজাব খুলতে বললে তিনি রাজি হননি। এতে করে এ জরিমানা করা হয় তাকে।

শুক্রবার (৩ আগস্ট) কোপেনহেগেনের হরশোম শহরে এ ঘটনা ঘটে।

সম্প্রতি দেশটিতে হিজাব পরায় নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়েছে। নিষেধাজ্ঞার পর এই প্রথম কাউকে অভিযুক্ত করা হল।

উল্লেখ্য, জনসম্মুখে মুখ ঢাকা কাপড় তথা হিজাব পরিধান করলে জরিমানার কথা উল্লেখ করে চলতি বছরের জুন মাসে একটি আইন অনুমোদন করে ডেনমার্কের পার্লামেন্ট। যা গত ১ আগস্ট থেকে কার্যকর করা হয়েছে।

আইন অনুমোদনের দিন থেকে মুসলমানরা এর প্রতিবাদ করে আসছেন। আর আইন কার্যকরের দিন থেকে চলছে বিক্ষোভ। শনিবার ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেন এবং দেশটির দ্বিতীয়-বৃহত্তম শহর আহাসে প্রায় দেড়হাজারের মতো ডেনিশ নাগরিক দেশটিতে মুখ ঢেকে চলাচলে নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদ করেছেন।

কোপেনহেগেনে প্রতিবাদকারীরা নেকাব পরে বিক্ষোভে অংশ নেন। শহরটির গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষিণের পর মানববন্ধন করেন প্রতিবাদকারীরা। সবমিলিয়ে প্রায় তিন ঘণ্টার মতো রাজপথে অবস্থান করেন প্রতিবাদকারীরা।

বিক্ষোভকারীরা বলছে, নতুন এ আইনের কারণে অনেক মুসলিম নারীর নাগরিক অধিকার লঙ্ঘিত হবে।

ওই আইনে বলা হয়েছে, কাউকে যদি জনসম্মুখে বোরকা পরা অবস্থায় দেখা যায় তাহলে তাকে সর্বনিম্ন ১ হাজার ক্রোন বা ১৫৭ মার্কিন ডলার থেকে সর্বোচ্চ ১০ হাজার ক্রোন বা ১ হাজার ৫৬৫ মার্কিন ডলার পর্যন্ত জরিমানা করা হবে।

ডেনমার্কে অনেক মুসলিম নারী চোখ ছাড়া সমগ্র শরীর বোরকায় ঢেকে রাখেন। আর অধিক রক্ষণশীলরা চোখের খোলা স্থানটিতে স্বচ্ছ কাপড়ে আচ্ছাদিত বোরকা পরেন। এভাবেই তারা সন্তানদের স্কুল নিয়ে যান, শপিং মল থেকে শুরু করে অন্য সব কাজ সম্পাদন করেন।

কিন্তু নতুন এ আইনের ফলে তাদেরকে মুখ খোলা রেখে চলতে হবে। এতে করে অনেকের পক্ষেই বাড়ির বাইরে যাওয়া অসম্ভব হয়ে উঠবে।

ডেনমার্কের ৫৭ লাখ বাসিন্দার মধ্যে প্রায় পাঁচ শতাংশ মুসলমান।