ক্রিকেটের শিরোনাম এখন তামিম



আপন তারিক, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ভাঙা কবজি নিয়ে খেললেন তামিম ইকবাল

ভাঙা কবজি নিয়ে খেললেন তামিম ইকবাল

  • Font increase
  • Font Decrease

সংগ্রামী এক শতরান করে ম্যাচসেরা হওয়া মুশফিকুর রহীমও যেন ম্লান! হাসপাতাল থেকে ফিরে এসে ভাঙা কবজি নিয়েই মাঠে নেমে তামিম ইকবাল জন্ম দিলেন নতুন এক বীরত্ব গাঁথার! শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে শুরুতেই চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন এই ওপেনার। ব্যথায় কাবু তামিমকে দ্রুত নিয়ে যাওয়া হয় দুবাইয়ের স্থানীয় এক হাসপাতালে। সেখান থেকেই জানা যায় দুঃসংবাদ! বাঁ হাতের কবজি ভেঙে গেছে। এশিয়া কাপটাও শেষ!

কিন্তু এরপরই হাসপাতাল থেকে ফিরে দেশের প্রয়োজনে মাঠে নামলেন তামিম। এক হাতে ব্যাট করে মুশফিকুর রহীমকে সঙ্গ দিলেন। আর নিজে গড়লেন অনন্য এক দৃষ্টান্ত! এমন কীর্তির পর ক্রিকেটের শিরোনাম এখন একটাই-তামিম ইকবাল!

অন্তর্জালে তামিম বন্দনায় পঞ্চমুখ সবাই। উপচে উঠা আবেগ ফেসবুকের পাতায় পাতায়! এই তালিকায় আছেন খোদ মাশরাফি বিন মর্তুজাও। বাংলাদেশ অধিনায়ক লিখেছেন, ‘বাঁ হাত ভেঙেছে, কিন্তু ডান হাতে তুমি জিতে নিয়েছো লাখো হৃদয়। ক্রিকেট স্রেফ একটি খেলা... কখনও কখনও তা নয় তামিম।’

ভাঙা কবজি নিয়ে তামিমের এক হাতে ব্যাট করাটা ছিল বিস্ময়কর! এমন দেশপ্রেম সবাইকেই ভাবিয়েছে। তবে এমন পরিস্থিতিতে চোট নিয়ে মাঠে নামার সিদ্ধান্তটা নিয়েছিলেন খোদ তামিমই। মাশরাফি জানান, ‘দেখুন এই সিদ্ধান্তটা তামিমেরই ছিল। এটা ওর উপর ছেড়ে দেয়া যাক। আমি শুধু বলতে পারি, তামিমকে মনে রাখা উচিত এই ম্যাচের জন্য। এখানে যে কোনো কিছু ঘটে যেতে পারত। ওর ক্যারিয়ারের ব্যাপার ছিল। যেভাবে এক হাতে ব্যাট নিয়ে নামলো আমি মনে করি, সবার মনে রাখা উচিত ওকে। আমি আসলে তামিমকে বলার জন্য কোন ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। তামিমকে হ্যাটস অফ।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Sep/16/1537089733436.jpg

রোববার দুপুরে মাশরাফি তার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে লিখেন ‘দেশের জন্য তামিমের এমন দৃষ্টান্ত মানুষ কখনও ভুলবে না। Tamim Iqbal এখন একটা নাম না, তামিম এখন একটা অনুপ্রেরণা। বাংলাদেশ যখন ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ল ঠিক তখনি হাল ধরেন মিঃ ডিপেন্ডেবল Mushfiqur Rahim ও মিঠুন। তাদের দুজনের ব্যাটে ভর করে বাংলাদেশ পায় বড় সংগ্রহ। মুশিকে অভিনন্দন ১৪৪ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলার জন্য।’

তামিম ব্যাট করতে নামাতেই দল ভাল একটা পুঁজি পেয়েছে। অন্য প্রান্তে থাকা মুশফিকুর রহীমও আত্মবিশ্বাস পেয়েছেন। এরপর ৩২ রান এসেছে।

দুবাইয়ে ১৫০ বলে ১৪৪ রানের অসাধারন এক ইনিংস খেলেন মুশফিক। দলের বিপর্যয়ে মোহাম্মদ মিথুনকে নিয়ে ধরেন হাল। তাদের প্রশংসাটাও করেছেন মাশরাফি। বলছিলেন ‘মুশফিক ও মিঠুনকে কৃতজ্ঞতা জানাতে হবে। চাপের মধ্যে ওরা সত্যিই খুব ভালো ব্যাট করেছে। প্রথম ওভারে দুই উইকেট হারালে সবসময়ই চাপ থাকে। মুশফিক ও মিঠুন যেভাবে ব্যাট করেছে, সেটা ছিল অনন্য।’

তবে এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৩৭ রানে জয়ের পর তামিমই ছিলেন শিরোনামে। এমন সাহসিকতা কমই দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব! ভাঙা কবজি নিয়ে তাকে মাঠের বাইরে থাকবে হবে কমপক্ষে ৬ সপ্তাহ!