বিদায় বলেই দিলেন ওয়েন রুনি

ওয়েন রুনি

গত অক্টোবরের ৩৩ -এ পা দিয়েছেন তিনি। বয়স তার হয়ে কথা বললেও ছন্দ হারিয়েছেন বেশ কিছুদিন ধরেই। জাতীয় দলেও মিলছিল না জায়গা। শেষ পর্যন্ত বাস্তবতা মনে নিয়েছেন ওয়েন রুনি। ইংল্যান্ডের হয়ে নিজের শেষ ম্যাচটা খেলে ফেলেছেন গত বৃহস্পতিবার রাতে। বিদায়ী ম্যাচে তার দল জিতলেও নিজে পাননি গোলের দেখা।

এর আগে সর্বশেষ ইংল্যান্ডের জার্সিতে খেলেন ২০১৬ সালে, নভেম্বরে। যেখানে স্কটল্যান্ডকে ৩-০ গোলে হারিয়েছিল তার দল।

২০১৭ সালেই জাতীয় দল থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন রুনি। পরে এই নভেম্বরের শুরুর দিকে ইংল্যান্ডের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলতে রাজি হন এই তারকা ফুটবলার। আর এই প্রীতি ম্যাচটির নাম দেওয়া হয়- ‘দ্যা ওয়েইন রুনি ফাউন্ডেশন ইন্টারন্যাশনাল’।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Nov/16/1542345134554.jpg

ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে যুক্তরাষ্ট্রকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। এই ম্যাচ দিয়েই শেষ হল ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি করা ফুটবলার রুনির ক্যারিয়ার। 

ম্যাচে অবশ্য প্রথম একাদশে ছিলেন না রুনি। অবশ্য ফর্মের কথা ভেবেই তাকে শুরুতে নামানোর কথা ভাবেন নি কোচ। তার মাঠে নামার আগেই ২-০ গোলে এগিয়ে যায় ইংলিশরা। ২৫তম মিনিটে জেসি লিনগার্ড এগিয়ে দেন দলকে। ২৭তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ড।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Nov/16/1542345157336.jpg

এরপর ৫৮তম মিনিটে বদলি নামেন রুনি। সম্মান জানিয়ে অধিনায়কের আর্মব্যান্ড দেওয়া হয় তাকে। জাতীয় দলের হয়ে রেকর্ড ৫৩ গোল করলেও এদিন নিশানা খুঁজে পাননি তিনি। তবে এরমধ্যে ৭৭তম মিনিটে ফের এগিয়ে যায় ইংলিশরা। এবার গোলদাতা ক্যালাম উইলসন। অভিষেক ম্যাচ খেলতে নেমেই গোল পেলেন তিনি।

ম্যাচে শেষে সতীর্থদের বিদায়ী শুভেচ্ছায় মাঠ ছাড়েন রুনি। সেই ২০০৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে আন্তর্জাতিক অভিষেক তার। এরপর ২০১৫ সালে ববি চার্লটনের ৪৯ গোলের রেকর্ড ভেঙে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে যান তিনি। সেই তৃপ্তি নিয়েই অবসরে গেলেন এই মহাতারকা। 

খেলা এর আরও খবর

//election count down