বাংলা একাডেমির ফেলোশিপ পেলেন সাত বিশিষ্ট ব্যক্তি



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় ‘বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ-২০২০’ পেলেন সাতজন বিশিষ্ট ব্যক্তি। তারা হলেন- ডা. সারওয়ার আলী (মুক্তিযুদ্ধ), নুরুল ইসলাম নাহিদ (শিক্ষা), নুহ-উল-আলম লেনিন (সমাজদর্শন ও সাহিত্য), অধ্যাপক ডা. একে আজাদ খান (চিকিৎসাসেবা), লিয়াকত আলী লাকী (সংস্কৃতি), জুয়েল আইচ (জাদুশিল্প) এবং মনজুরুল আহসান বুলবুল (সাংবাদিকতা)।

শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে সাধারণ পরিষদের ৪৩তম বার্ষিক সভায় এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এছাড়াও ওই সভায় শিল্পী সাধন ঘোষকে বাংলা একাডেমি প্রবর্তিত রবীন্দ্র পুরস্কার-২০২০, প্রাবন্ধিক রফিক কায়সারকে সাহিত্যিক মোহম্মদ বরকতুল্লাহ প্রবন্ধসাহিত্য পুরস্কার-২০২০, শিশুসাহিত্যিক শাহরিয়ার কবীর চৌধুরীকে শিশুসাহিত্য পুরস্কার-২০২০ এবং প্রাবন্ধিক জুলফিকার মতিনকে সা’দত আলি আখন্দ সাহিত্য পুরস্কার-২০২০-এ ভূষিত করা হয়েছে।

পুরস্কার ও ফেলোশিপপ্রাপ্ত গুণীজন এবং তাঁদের প্রতিনিধিদের হাতে পুরস্কারের অর্থমূল্য, সম্মাননাপত্র, সম্মাননা-স্মারক ও ফুলেল শুভেচ্ছা তুলে দেন বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান এবং মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

সভায় বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, ‘বৈশ্বিক মহামারি করোনার আগ্রাসনে গোটা বিশ্ব ও বাংলাদেশ বিপর্যস্ত। তারপরও যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে একাডেমি গুরুত্বপূর্ণ নানা কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছে। এ বছরের সাধারণ সভা সীমিত পরিসরে হলেও সবার অংশগ্রহণে তা হয়ে উঠেছে তাৎপর্যপূর্ণ।’

জাতীয় অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান বলেন, ‘বাঙালির প্রাণের প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমিকে ঘিরে বাংলাদেশের মানুষের প্রত্যাশার অন্ত নেই। এই প্রত্যাশা অত্যন্ত সঙ্গত, কারণ বাংলা একাডেমি প্রকৃতই বাঙালি জাতিসত্তা ও বুদ্ধিবৃত্তিক উৎকর্ষের প্রতীক প্রতিষ্ঠান।’