ঢাবি সিনেট নির্বাচন: ৩৫টির ভেতরে ৩২টি পদ নীলদলের দখলে



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ঢাবি সিনেট নির্বাচন: ৩৫ টির ভেতরে ৩২টি পদ নীলদলের দখলে

ঢাবি সিনেট নির্বাচন: ৩৫ টির ভেতরে ৩২টি পদ নীলদলের দখলে

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) নীতিনির্ধারণী ফোরাম (ঢাবি) সিনেটে মোট ৩৫ পদের মধ্যে আওয়ামী লীগপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন নীলদল থেকে ৩২ জন প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। বিএনপি-জামায়ত সমর্থিত সাদাদল থেকে নির্বাচিত হয়েছেন ৩ জন।

মঙ্গলবার (২৪ মে) সকাল ৯টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এই নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হয়। নির্বাচনের ফল আনুষ্ঠনিকভাবে প্রকাশ করা হয়। নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মমতাজ উদ্দিন আহমেদ।

নীলদল থেকে নির্বাচিত প্রতিনিধিরা হলেন- সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আ ক ম জামাল উদ্দীন, টেলিভিশন, ফিল্ম অ্যান্ড ফটোগ্রাফি বিভাগের অধ্যাপক আবু জাফর মো. শফিউল আলম ভূঁইয়া, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক আবদুল বাছির, ব্যাংকিং অ্যান্ড ইনস্যুরেন্স বিভাগের অধ্যাপক আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ইসতিয়াক মঈন সৈয়দ, প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এ কে এম মাহবুব হাসান, ক্লিনিক্যাল ফার্মেসি অ্যান্ড ফার্মাকোলজি বিভাগের অধ্যাপক এস এম আবদুর রহমান, ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের অধ্যাপক কে এম সাইফুল ইসলাম খান, গণিত বিভাগের অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দার, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জিনাত হুদা, আবহাওয়া বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক তৌহিদা রশিদ, অঙ্কন ও চিত্রায়ণ বিভাগের অধ্যাপক নিসার হোসেন, ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক ফিরোজ আহমেদ, ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ফিরোজা ইয়াসমীন, উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মিহির লাল সাহা এবং ইসলাম শিক্ষা বিভাগের অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুর রশীদ।

আরও আছেন অর্গানাইজেশন স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড লিডারশিপ বিভাগের অধ্যাপক মুহাম্মাদ আবদুল মঈন, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ ফিরোজ জামান, পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক মো. আবদুর রহিম, ফলিত গণিত বিভাগের অধ্যাপক আবদুস ছামাদ, ডিজাস্টার সায়েন্স অ্যান্ড ক্লাইমেট রেজিলিয়েন্স বিভাগের অধ্যাপক মো. জিল্লুর রহমান, অপরাধবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মো. জিয়াউর রহমান, পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক মো. নিজামুল হক ভূঁইয়া, মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক মো. মাসুদুর রহমান, অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান, শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগের অধ্যাপক মো. রফিকুল ইসলাম, ফলিত গণিত বিভাগের অধ্যাপক মো. শফিকুল ইসলাম, রোবটিকস অ্যান্ড মেকাট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক লাফিফা জামাল, ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সিকদার মনোয়ার মুর্শেদ ওরফে সৌরভ সিকদার, আইন বিভাগের অধ্যাপক সীমা জামান এবং কম্পিউটারবিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু।

সাদাদল থেকে নির্বাচিত তিন প্রতিনিধি হলেন অধ্যাপক লুৎফর রহমান, অধ্যাপক ড. এবিএম ওবাইদুল ইসলাম ও অধ্যাপক ড. মামুন আহমেদ।

প্রসঙ্গত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে সদস্য সংখ্যা ১০৫। এর মধ্যে শিক্ষক প্রতিনিধির ৩৫টি পদ রয়েছে। তাদের মেয়াদ তিন বছর। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটে সবশেষ শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচন হয়েছিল ২০১৭ সালের ২২ মে। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন নীল দল ও বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।

সেই নির্বাচনে নীল দলের ৩৩ জন আর সাদা দলের ২ জন জয়ী হয়েছিলেন। এবার নীলদল থেকে ৩২ জন আর সাদাদল থেকে নির্বাচিত হয়েছেন তিনজন।

শিক্ষক হেনস্থার প্রতিবাদে জবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন



জবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
শিক্ষক হেনস্থার প্রতিবাদে জবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

শিক্ষক হেনস্থার প্রতিবাদে জবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

  • Font increase
  • Font Decrease

নড়াইলে কথিত ধর্ম অবমাননাকারীকে আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগে মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসেকে হেনস্তা করা এবং সাভারের আশুলিয়ায় কলেজ শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে হত্যা এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ও পদার্থ বিজ্ঞানী ডক্টর অরুণ কুমারকে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে হেনস্থা করায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে জগ্ননাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার চত্বরে শিক্ষক সমিতি উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে এই নিন্দা প্রস্তাব ও দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানানো হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, শিক্ষকদের হেনস্তা, লাঞ্চিত এবং হত্যা এটা আমাদের জাতির জন্য কলঙ্ক। পিতামাতার পরেই যে শিক্ষকদের অবস্থান সেখানে তাদের এ অপমান সহ্য করার মত নয়। তাই আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বলবো অতি দ্রুত দোষীদের বিচারের মুখোমুখি করে একটা দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে যেন পরবর্তীতে আর কেউ শিক্ষকদের এভাবে অপমান হেনস্তা করতে সাহস না করে।

এসময় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন বলেন শিক্ষকরা যেভাবে হেনস্থার শিকার হচ্ছেন তা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরোধী। যেসব ঘটনা ঘটছে তা আমাদের জন্য অত্যন্ত লজ্জার। আমরা অনেক কিছু অর্জন করেছি, কিন্তু এইসব ঘটনা যখন বিশ্বে প্রচারিত হবে তখন আমদের মানসম্মান কোথায় যাবে? তাই আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে শিক্ষকদের বিরুদ্ধে এ ধরনের হেনস্তার প্রতিবাদে কাজ করে যেতে হবে। আমাদের একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে এ সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

এছড়াও এ প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন থেকে শিক্ষক হত্যা, নির্যাতন ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়। সভায় আশুলিয়ার চিত্রশাইল এলাকার হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারের শারিরীক হেনস্থা ও হত্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়। একইসঙ্গে নড়াইলে ইউনাইটেড ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসের গলায় জুতার মালা পরিয়ে লাঞ্ছিত করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশের একজন খ্যাতিমান পদার্থবিজ্ঞানী ও শিক্ষাবিদ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. অরুণ কুমার বসাক এর সম্পত্তি দখল করে বিগত ১৮ বছর ধরে হয়রানি করছেন তার প্রতিবেশী এর ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনা এবং বসাক স্যারের জায়গা দখলমুক্ত করে তাঁকে দ্রুত বুঝে দেয়ার জোর দাবি করা হয়।

উক্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আবুল কালাম মোঃ লুৎফর রহমান এর সঞ্চালনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনষ্টিটিউটের পরিচালকবৃন্দ, বিভাগীয় চেয়ারম্যানবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

;

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস শুক্রবার



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস শুক্রবার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস শুক্রবার

  • Font increase
  • Font Decrease

আগামীকাল শুক্রবার (১ জুলাই) ১০২তম বর্ষে পদার্পণ করবে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। ‘গবেষণা ও উদ্ভাবন: ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমিয়া সহযোগিতা’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ১০২তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়টির জনসংযোগ দফতরের পরিচালক মাহমুদ আলম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ওইদিন সকাল ১০টায় শারীরিক শিক্ষা কেন্দ্রের খেলার মাঠে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।

কর্মসূচি অনুযায়ী সকাল ১০টার পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হল ও হোস্টেল থেকে শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ শোভাযাত্রা সহকারে শারীরিক শিক্ষা কেন্দ্রের খেলার মাঠে সমবেত হবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা এবং বিশ্ববিদ্যালয় ও হলসমূহের পতাকা উত্তোলন, পায়রা উড়ানো, কেক কাটা এবং সংগীত বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে থিম সং পরিবেশিত হবে।

সকাল ১১টায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে ‘গবেষণা ও উদ্ভাবন: ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমিয়া সহযোগিতা’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ।

উল্লেখ্য, ১৯২১ সালে পহেলা জুলাই ৮৪৭ জন শিক্ষার্থী, তিনটি অনুষদ এবং ১২টি বিভাগ নিয়ে যাত্রা করা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

;

ঢাবিতে র‌্যাগ ডে’র পরিবর্তে শিক্ষা সমাপনী উৎসব, মানতে হবে ৮ নিয়ম



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ঢাবিতে র‌্যাগ ডে’র পরিবর্তে শিক্ষা সমাপনী উৎসব

ঢাবিতে র‌্যাগ ডে’র পরিবর্তে শিক্ষা সমাপনী উৎসব

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) গেল বছরের সেপ্টেম্বরে একাডেমিক কাউন্সিলে র‌্যাগ ডে অনুষ্ঠানকে নিষিদ্ধ করে। এবার এ অনুষ্ঠানটির নতুন নামকরণ করা হয়েছে ‌‘শিক্ষা সমাপনী উৎসব’। স্নাতক শেষে শিক্ষা সমাপনী উৎসবের জন্য নতুন ৮টি নিয়ম চূড়ান্ত করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সিনেট সিন্ডিকেট।

বুধবার (২৯ জুন) রাতে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেট সভায় এ সংক্রান্ত নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক হুমায়ূন কবীর।

তিনি বলেন, র‌্যাগ ডে নিষিদ্ধ করে একটি নীতিমালা করা হয়েছিল সেটি আজ চূড়ান্ত হয়েছে। এখন থেকে এটি ‘শিক্ষা সমাপনী উৎসব’ নামে চলবে এবং এ ক্ষেত্রে ৮টি নিয়মও মানতে হবে।

নিয়মগুলো হলো- র‌্যাগ ডের পরিবর্তে একদিনের এ অনুষ্ঠানটির নামকরণ হবে ‘শিক্ষা সমাপনী উৎসব’, সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় চেয়ারম্যান বা ইনস্টিটিউটের পরিচালক ও ছাত্র উপদেষ্টা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সভা করে অনুষ্ঠানসূচি চূড়ান্ত করবে, নিজ নিজ বিভাগ বা ইনস্টিটিউটের ভবন চত্বরে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান করা যাবে, টিএসসিতে সমবেত হয়ে পথচারীদের চলাচল স্বাভাবিক রেখে র‍্যালি করা যাবে এবং ক্লাস চলাকালীন উচ্চস্বরে বাদ্য-বাজনা পরিহার করতে হবে।

এছাড়াও বিভাগ বা ইনস্টিটিউটের সংশ্লিষ্টতায় দুপুরে অথবা রাতে আপ্যায়নের ব্যবস্থা করা যাবে, শিক্ষা সমাপনী উৎসবের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান রাত ১০টার মধ্যে শেষ করতে হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয় এমন কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, র‌্যাগ ডে নয়, শিক্ষা সমাপনী উৎসব হবে। সবকিছু নিয়মের মাধ্যমে পরিচালিত হবে।

উল্লেখ্য, বুধবার (২৯ জুন) রাতে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেট সভা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের একজন কর্মকর্তাকে পদাবনতি করা হয়েছে বলেও জানা গেছে।

এর আগে, বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে র‌্যাগ ডে অনুষ্ঠানকে নিষিদ্ধ করে। পরে উপ-উপাচার্যকে (প্রশাসন) প্রধান করে গঠিত কমিটি নয়টি নীতিমালা তৈরি করে সিন্ডিকেটে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করে।

;

অভিযোগ নিষ্পত্তিতে তথ্য বাতায়ন ও ট্রান্সক্রিপ্ট সহজীকরণের তৈরি সফটওয়্যার ঢাবির



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
অভিযোগ নিষ্পত্তিতে তথ্য বাতায়ন ও ট্রান্সক্রিপ্ট সহজীকরণের তৈরি সফটওয়্যার ঢাবির

অভিযোগ নিষ্পত্তিতে তথ্য বাতায়ন ও ট্রান্সক্রিপ্ট সহজীকরণের তৈরি সফটওয়্যার ঢাবির

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটদের ট্রান্সক্রিপ্ট প্রদান সেবা সহজীকরণের লক্ষ্যে ট্রান্সক্রিপ্ট সফটওয়্যার প্রবর্তন করা হয়েছে। এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের সেবা গ্রহণ সংক্রান্ত অভিযোগ নিষ্পত্তি ও আপিল নিষ্পত্তির লক্ষ্যে তথ্য বাতায়ন (এপিএ লিংক) চালু করা হয়েছে।

বুধবার (২৯ জুন) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান অধ্যাপক আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই ট্রান্সক্রিপ্ট সফটওয়্যার ও তথ্য বাতায়ন উদ্বোধন করেন।

এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইনোভেশন টিমের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. ইসতিয়াক এম সৈয়দ, রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার, আইসিটি সেলের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসিফ হোসেন খান, অর্গ্যানাইজেশন স্ট্র্যাটেজি এন্ড লিডারশীপ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. রাশেদুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান তথ্য বাতায়ন ও ট্রান্সক্রিপ্ট সফটওয়্যার প্রবর্তনের সঙ্গে জড়িতদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক কার্যক্রমকে ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনার ক্ষেত্রে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোজন। এর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও প্রশাসনিক কাজে আরও গতিশীলতা আসবে, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে এবং সেবার মান বাড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটরা eco.du.ac.bd সাইটে লগইন করে অনলাইনে ট্রান্সক্রিপ্ট সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই সেবা কার্যক্রম চালু করা হলো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইনোভেশন টিমের তত্ত্বাবধানে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের অফিস এবং কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিস যৌথভাবে ট্রান্সক্রিপ্ট শাখা অটোমেশন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছে। এছাড়া, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) কমিটি এবং আইসিটি সেল যৌথভাবে তথ্য বাতায়ন (এপিএ লিংক) প্রস্তুত করেছে।

;