চালকের অভাবে নিষ্ক্রিয় কুবির পরিবহন বাস



কুবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুমিল্লা
চালকের অভাবে নিষ্ক্রিয় কুবির পরিবহন বাস

চালকের অভাবে নিষ্ক্রিয় কুবির পরিবহন বাস

  • Font increase
  • Font Decrease

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব বাস থাকলেও চালকের অভাবে নিষ্ক্রিয় অবস্থায় পড়ে আছে ৩টি বাস। এতে যাতায়াতে ভোগান্তিতে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।

কুবি পরিবহন পুলের তথ্যমতে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিবহনের জন্য আছে আটটি শিক্ষার্থী বাস। বর্তমানে সেখানে শিক্ষার্থী পরিবহনে ব্যবহৃত হচ্ছে ৫টি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পরিবহন পুলের সেকশন অফিসার মোঃ জাহিদুল আলম বলেন, চালক সংকটের কারণে ৩টি বাস ব্যবহৃত হচ্ছে না। এই সংকট নিরসনের জন্য আমি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জানিয়েছি।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী বায়েজিদ রিমন বলেন, প্রতিদিন যাতায়াতের সময় দেখা যায় অনেক শিক্ষার্থীরা বাসে কষ্ট করে দাঁড়িয়ে ও ভিড় করে যায়। অথচ কয়েকটা বাস চলেই না। প্রশাসনের এই বিষয়টিতে নজর দেয়া প্রয়োজন।

বাস চালকের সংকট বাকি চালকদের ওপর কোনও প্রভাব ফেলছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে বাস চালক মোহাম্মদ শফিক বলেন, ড্রাইভার সংকটের কারণে বাসে অতিরিক্ত শিক্ষার্থী উঠে। এতে কখনো কখনো শিক্ষার্থীরা বাস মিস করে, উঠতে পারে না। ফলে তারা কিছুটা আমাদের উপর ক্ষিপ্ত থাকে। এছাড়াও আমাদের উপর বাড়তি একটা চাপ থাকে শিক্ষার্থীদের ভালো মতো গন্তব্যে পৌঁছানোর।

বাস থাকার পরও ড্রাইভার নিয়োগ না দেয়া প্রসঙ্গে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির বলেন, আমি এ বিষয়ে অবগত নই। যদি ড্রাইভার সংকটের কারণে বাস না চলে তবে সেটা খুবই দুঃখজনক। আমরা বাস ভাড়া করে নিয়ে আসি শিক্ষার্থী পরিবহনের জন্য। অথচ আমাদের বাস আছে, ড্রাইভার সংকটের কারণে চলছে না। আগামী রবিবার আমি এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

ঢাবি ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা: একই নম্বর পেয়েও হলেন ১ম, ২য় ও ৩য়



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত ফলে শীর্ষ তিনজন একই নম্বর পেলেও একটি প্রক্রিয়ায় তাদের মধ্যে ১ম, ২য় ও ৩য় ক্রম নির্ধারণ করা হয়েছে।

ঢাবির এ বছরের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় আসির আনজুম খান, খালিদ হাসান তুহিন ও জারিফা তাবাসসুম একই নম্বর পেয়েছেন।

সোমবার (৪ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনস্থ অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফলাফল প্রকাশ করেন।

প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, যিনি প্রথম হয়েছেন- আসির আনজুম এমসিকিউতে পদার্থ বিজ্ঞানে ১৩.৭৫, রসায়নে ১৫, গণিতে ১৫, জীব বিজ্ঞানে ১৩.৭৫ নম্বর পেয়েছেন। এছাড়া লিখিত অংশে পদার্থ বিজ্ঞানে ১০, রসায়নে ৯, গণিতে ১০, জীব বিজ্ঞানে ৮.৫ নম্বর মিলিয়ে মোট ৯৫ নম্বর এবং এসএসসি ও এইচএসসির জিপিএ’র নম্বর মিলিয়ে মোট ১১৫ পেয়েছেন।

অন্যদিকে ঢাবির ‘ক’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় ২য় স্থান অর্জনকারী খালিদ হাসান তুহিন পদার্থ বিজ্ঞানে ১৩.৭৫, রসায়নে ১৫, গণিতে ১৫, জীব বিজ্ঞানে ১৩.৭৫ নম্বর পেয়েছেন। এছাড়া লিখিত অংশে পদার্থ বিজ্ঞানে ১০, রসায়নে ৯.৫, গণিতে ৯, জীব বিজ্ঞানে ৯ নম্বর মিলিয়ে মোট ৯৫ নম্বর এবং এসএসসি ও এইচএসসির জিপিএ’র নম্বর মিলিয়ে মোট ১১৫ পেয়েছেন।

এছাড়া তৃতীয় স্থান অধিকারী জারিফা তাবাসসুমও ভর্তি পরীক্ষায় সব মিলিয়ে ১১৫ নম্বর পেয়েছেন। ভর্তি পরীক্ষায় তিনি পদার্থ বিজ্ঞানে ১২.৭৫, রসায়নে ১৫, গণিতে ১৪, জীব বিজ্ঞানে ১৩.৭৫ নম্বর পেয়েছেন। এছাড়া লিখিত অংশে পদার্থ বিজ্ঞানে ১০, রসায়নে ১০, গণিতে ৯.৫, জীব বিজ্ঞানে ১০ নম্বর।

এ ব্যাপারে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান জানান, ভর্তি পরীক্ষায় এক বা একাধিক পরীক্ষার্থী একই নম্বর পেলে বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় এইচএসসি পরীক্ষার এইচএসসির বিজ্ঞানের বিষয়গুলোর নম্বর অনুযায়ী মেধাতালিকা প্রণয়ন করা হয়।

ভর্তি পরীক্ষার সমন্বয়কারী ও ফার্মেসি অনুষদের ডিন অধ্যাপক সীতেশ চন্দ্র বাছার বিষয়টি স্পষ্ট করে বলেন, ভর্তি পরীক্ষায় আমরা তিনটি বিষয়ে নম্বর দেখেছি। পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন ও গণিতে কে নম্বর বেশি পেয়েছে, সেভাবেই তাদের মধ্য থেকে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ বছর ‘ক’ ইউনিটে আবেদন করেছিলেন ১ লাখ ১৫ হাজার ৬৮৯ জন। এরমধ্যে অংশগ্রহণ করেছেন ১ লাখ ১০ হাজার ৩৭৪ জন। যেখানে ভর্তির যোগ্য বিবেচিত হয়েছেন ১০ দশমিক ৩৯ শতাংশ পরীক্ষার্থী এবং অকৃতকার্য হয়েছে ৮৯ দশমিক ৬১ শতাংশ। ভর্তির যোগ্য বিবেচিত ১১ হাজার ৪৬৬ জনের মধ্যে শেষ পর্যন্ত এক হাজার ৮৫১ জন মেধাক্রম অনুযায়ী বিজ্ঞান অনুষদের বিভিন্ন বিভাগে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন।

;

বুয়েটের পর ঢাবিতেও প্রথম নটরডেমের আসির



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
আসির আনজুম খান

আসির আনজুম খান

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের অধীনে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে প্রথম হয়েছেন রাজধানীর নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থী আসির আনজুম খান। তার ভর্তি পরীক্ষার রোল নম্বর- ২১৩৩৯৯৫। তিনি পরীক্ষায় ৯৫ নম্বর পেয়ে প্রথম হয়েছেন।

আনজুম খান বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায়ও প্রথম স্থান অর্জন করেছেন। আসির সম্প্রতি প্রকাশিত মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায়ও ষষ্ঠ অবস্থানে আছেন। এ ছাড়া গাজীপুরে অবস্থিত ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির (আইইউটি) ভর্তি পরীক্ষায় অষ্টম হয়েছিলেন নটরডেম কলেজের এই শিক্ষার্থী।

সোমবার (৪ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনস্থ আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চ্যুয়াল শ্রেণিকক্ষে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করেন।

প্রকাশিত ফল থেকে জানা গেছে, আসির আনজুম এমসিকিউতে পদার্থ বিজ্ঞানে ১৩.৭৫, রসায়নে ১৫, গণিতে ১৫, জীব বিজ্ঞানে ১৩.৭৫ নম্বর পেয়েছেন। এছাড়া লিখিত অংশে পদার্থ বিজ্ঞানে ১০, রসায়নে ৯, গণিতে ১০, জীব বিজ্ঞানে ৮.৫ নম্বর মিলিয়ে মোট ৯৫ নম্বর এবং এসএসসি ও এইচএসসির জিপিএ’র নম্বর মিলিয়ে মোট ১১৫ পেয়েছেন।

এ বছর পাসের হার ১০ দশমিক ৩৯ শতাংশ। মোট ১ হাজার ৮৫১টি আসনের বিপরীতে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১১ হাজার ৪৬৬ জন। গতবছর ‘ক’ ইউনিটে ১০ দশমিক ৭৬ শতাংশ পরীক্ষার্থী ভর্তির যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হয়েছিলেন।

এর আগে, গত ১১ জুন বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সাতটি বিভাগীয় শহরে ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। বিজ্ঞান অনুষদের জন্য নির্ধারিত এ ইউনিটে মোট আসন রয়েছে ১ হাজার ৮৫১টি। এর বিপরীতে ১ লাখ ১৫ হাজার ৭০৮ জন শিক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন।

;

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল মঙ্গলবার



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের অধীনে প্রথম বর্ষে (স্নাতক সম্মান) ভর্তি পরীক্ষার ফল মঙ্গলবার (৫ জুলাই) প্রকাশ করা হবে।

সোমবার (৪ জুলাই) দুপুরে বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ফল প্রকাশ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) দুপুর ১টায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রশাসনিক ভবনস্থ অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে এই ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

এর আগে, গত ১১ জুন বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সাতটি বিভাগীয় শহরে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের জন্য নির্ধারিত এই ইউনিটে মোট আসন রয়েছে ১৩৩৬টি। এর বিপরীতে ৭৮ হাজার ২৯ জন শিক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের অধীন সামাজিক বিজ্ঞান, কলা, বিজ্ঞান, ব্যবসা শিক্ষা, আইন, আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস এবং জীববিজ্ঞান অনুষদ। সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনিস্টিটিউট, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজ এবং আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের অধীনে ৫৫টি বিভাগ রয়েছে।

;

ঢাবি ‘ক’ ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাসের হার ১০.৩৯



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের অধীনে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে।

সোমবার (৪ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনস্থ অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফলাফল প্রকাশ করেন।

এ বছর ‘ক’ ইউনিটে আবেদন করেছিলেন ১ লাখ ১৫ হাজার ৬৮৯ জন। এরমধ্যে অংশগ্রহণ করেছেন ১ লাখ ১০ হাজার ৩৭৪ জন। যেখানে ভর্তির যোগ্য বিবেচিত হয়েছেন ১০ দশমিক ৩৯ শতাংশ পরীক্ষার্থী এবং অকৃতকার্য হয়েছে ৮৯ দশমিক ৬১ শতাংশ। ভর্তির যোগ্য বিবেচিত ১১ হাজার ৪৬৬ জনের মধ্যে শেষ পর্যন্ত এক হাজার ৮৫১ জন মেধাক্রম অনুযায়ী বিজ্ঞান অনুষদের বিভিন্ন বিভাগে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন।

ফল জানা যাবে যেভাবে- ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা https://admission.eis.du.ac.bd ওয়েবসাইট থেকে পরীক্ষার ফলাফল জানতে পারবে। এছাড়া রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক অথবা টেলিটক নম্বর থেকে DU KA <roll no> টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে এসএমএস পাঠালে ফিরতি এসএমএসে ফলাফল জানা যাবে।

উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের আগামী ৬ জুলাই বিকাল ৩টা হতে ২১ জুলাই বিকাল ৩টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ফরম ও বিষয়ের পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ বিভিন্ন কোটায় আবেদনকারীদের ১৭ জুলাই হতে ২৪ জুলাইয়ের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কোটার ফরম ফার্মেসি অনুষদের ডিন অফিস হতে সংগ্রহ করতে হবে এবং যথাযথভাবে পূরণ করে উক্ত সময়ের মধ্যে ডিন অফিসে জমা দিতে হবে।

ফলাফল নিরীক্ষণের জন্য ১০০০ (এক হাজার) টাকা ফি প্রদান সাপেক্ষে আগামী ৬ জুলাই হতে ২১ জুলাই পর্যন্ত ফার্মেসি অনুষদের ডিন অফিসে আবেদন করা যাবে।

উল্লেখ্য, ‘ক’ ইউনিটে এক হাজার ৮৫১ আসনের বিপরীতে আবেদন করেছিল এক লাখ ১৫ হাজার ৬৮৯ জন। সেই হিসাবে প্রতি আসনের জন্য ভর্তিযুদ্ধে লড়েন ৬২ শিক্ষার্থী, যেখানে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়ে গড়ে প্রতি আসনের জন্য আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৪৮।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের অধীন বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ফার্মেসি, আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদ এবং পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউট, পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট, তথ্যপ্রযুক্তি ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধীনে ৩৩টি বিভাগ রয়েছে।

;