ঢাবিতে ছাত্রলীগের হামলা, নারী শিক্ষার্থীদের লাঞ্ছনার অভিযোগ

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
হামলার অভিযোগে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

হামলার অভিযোগে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্নীতি ও ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে চলমান আন্দোলনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ উঠেছে। হামলায় চোখে গুরুতর আঘাত পেয়েছেন আসিফ মাহমুদ নামে এক ছাত্র। এছাড়াও নারী শিক্ষার্থীরা লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন আন্দোলনকারীরা।

হামলায় চোখে গুরুতর আঘাত পাওয়া আসিফ মাহমুদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

বুধবার (১৮ সেপ্টম্বর) ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন কার্যালয়ের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসাবে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিতে গেলে ছাত্রলীগের কর্মীরা আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা চালায়। হামলার বিচার চেয়ে স্লোগান দিলে দ্বিতীয় দফায় আবারও হামলা করে ছাত্রলীগ।

আরও পড়ুন: শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, উত্তপ্ত ঢাবি ক্যাম্পাস

সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে নিয়মিত শিক্ষার্থীদের স্বার্থ সংরক্ষণকারী সব নিয়ম বহাল রাখার দাবিতে স্মারকলিপি দিতে ডিন কার্যালয়ের সামনে আগে থেকেই অবস্থান করছিলেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তাদের দাবি উদ্দেশ্য-প্রণোদিতভাবে তাদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন আন্দোলনকারীরা। তবে শিক্ষার্থীদের ওপর কোন ধরনের হামলার ঘটনা ঘটেনি দাবি করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।


‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’ ব্যানারের অন্যতম সমন্বয়ক বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হাসান বলেন, আমরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অহিংস আন্দোলন করে আসছি। পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসাবে দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিতে গেলে ছাত্রলীগের কর্মীরা আমাদের ওপর হামলা করেন। হামলার বিচার চাই বলে স্লোগান দেওয়ায় দ্বিতীয় দফায় আবারও হামলা করেন তারা। আন্দোলনকারী নারী শিক্ষার্থীদের লাঞ্ছিত করেছেন ছাত্রলীগ কর্মীরা। তাদের হামলায় চোখ ফেটে রক্তক্ষরণ হয়ে আসিফ মাহমুদ নামে এক শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

আন্দোলনকারীদের ওপর হামলার ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগের কোন সম্পৃক্ততা নেই দাবি করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে। এটার সঙ্গে ছাত্রলীগের কোন সম্পর্ক নেই।

সাদ্দাম আরও বলেন, তাদের (আন্দোলনকারী) কর্মসূচি ছিল সাড়ে ১১টায়। তারা ১২টায় গিয়েছেন উদ্যেশ্য-প্রণোদিতভাবে।

ছাত্র ফেডারেশন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার এক নেতা দাবি করেন, হামলাকারীরা সবাই ছাত্রলীগের বিভিন্ন হলের বাছাই করা নেতাকর্মী, যাদের কাজ মারামারি করা।

হামলার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন, ছাত্র-ছাত্রীরা এক ধরনের অস্থিতিশীল অবস্থা সৃষ্টি করেছে ক্যাম্পাসে। এটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’ ব্যানারে চলমান আন্দোলনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন, ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রফ্রন্ট এবং ডাকসু নির্বাচন অংশ নেওয়া স্বতন্ত্র জোটের নেতাকর্মীরা অংশ নিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :