লোকাচারবিদ্যাকে বাংলার সমমান দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কর্তৃক স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে লোকাচারবিদ্যা (ফোকলোর) বিভাগকে বাংলা বিভাগের সমমান মর্যাদা দেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা দ্রুত এ সিদ্ধান্ত বাতিলের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে ১৫ দিনের আল্টিমেটাম দেন।

বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে শিক্ষার্থীরা।

অনতিবিলম্বে এই অযৌক্তিক ও অন্যায় সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে প্রজ্ঞাপন জারি করতে ইউ.জি.সি.-কে ২১ অক্টোবর পর্যন্ত সময় বেধে দেয় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। অন্যথায় ২১ অক্টোবর থেকে সমগ্র বাংলাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে লাগাতার ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন ও বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা দেয় তারা।

ইউ.জি.সি'র সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক ও অন্যায্য দাবী করে শিক্ষার্থীরা বলেন, ফোকলোর সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অংশ হয়েও কিভাবে বাংলা বিভাগের সমমান মর্যাদা চায়, তা আমাদের বোধগম্য নয়। এর আগে তারা ইচ্ছে করেই সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের সঙ্গে একীভূত হয়েছিল। আমরা ফোকলোরের বিরুদ্ধে নই। আমরা ইউজিসির অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে। কেননা বাংলা সাহিত্য আর ফোকলোর এক নয়।

শিক্ষার্থীরা 'ইউজিসির উদ্ভট সিদ্ধান্ত মানি না-মানব না, এক দফা এক দাবি, বাংলা বিভাগে স্বতন্ত্র নিয়োগ দাবি, ফোকলোর যদি বাংলা হয়, বাংলার তবে কি দাম রয়, দাবি মোদের একটাই, ফোকলোর মুক্ত বাংলা চাই' বলে স্লোগান দেন।

প্রসঙ্গত, গত ৫ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন 'রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়- এর ফোকলোর বিভাগের চাকুরির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনে অন্তর্ভুক্তিকরণ' বিষয়টিকে সামনে নিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের গ্র্যাজুয়েট/পোস্টগ্র্যাজুয়েট বাংলা বিভাগের গ্র্যাজুয়েট/পোস্টগ্র্যাজুয়েট হিসেবে বিবেচনা করে বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন-এ অন্তর্ভুক্তিপূর্বক কোড বরাদ্দের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষে বিশেষজ্ঞ মতামত প্রদান করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর একটি অনুলিপি পাঠায়। এর প্রেক্ষিতে বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থীরা এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায়।

আপনার মতামত লিখুন :