ঝুঁকিপূর্ণ পেশায় প্রতিবন্ধী শাহাদাত

মনিরুজ্জামান বাবলু, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, চাঁদপুর
শাহাদাত হোসেন। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

শাহাদাত হোসেন। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

শারীরিক প্রতিবন্ধী মো. শাহাদাত হোসেন (৩১)। তিনি চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৭ নং পাইকপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব ভাওয়াল গ্রামের বাসিন্দা। মা-বাবা-স্ত্রী ও তিন কন্যা সন্তান এবং চার বোন নিয়ে তার সংসার। বাবা মিরণ ছৈয়াল চার বছর ধরে প্যারালাইসিস রোগে ভুগছেন।

জানা গেছে, শাহাদাত হোসেন প্রতিবন্ধী হলেও সংসার চালাতে কারও কাছে হাত পাতেননি। উল্টো প্রবল ইচ্ছে শক্তি দিয়ে কাজ করে সংসার সামলাচ্ছেন। পেশায় তিনি এখন অটোরিকশা চালক। কর্মজীবন শুরু হয় নবম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায়। প্রথমে বাড়ির পাশে একটি ফ্লেক্সিলোডের দোকান দেন। দাখিল মাদরাসা থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়াও করেছেন তিনি। বাবা রিকশা চালাতেন। তিন বোনের বিয়ে হয়ে গেছে। সংসারে নিজের তিন কন্যা সন্তান আছে।

ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

 

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চাঁদপুর-কুমিল্লা মহাসড়কের রামগঞ্জ বিশ্বরোডের মোড়ে শাহাদাতের সঙ্গে দেখা হলে তিনি জানান, এক বছর আগে গ্রামীণ ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে অটোরিকশাটি কিনেছেন তিনি। এখনও পাঁচটি কিস্তি বাকি। তিনি প্রতিনিয়ত চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ, হাজীগঞ্জ ও লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলায় অটো চালান। দৈনিক ৬০০-৭০০ টাকা আয় করেন।

তিনি আরও জানান, জীবনে তার একমাত্র স্বপ্ন সন্তানদের শিক্ষিত করে তোলা। তার বড় মেয়ে স্কুলে ও মেজ মেয়ে মাদরাসায় পড়ে। তবে সরকারের কাছ থেকে প্রতি মাসে ৭০০ টাকা প্রতিবন্ধী ভাতা পান তিনি।

চাঁদপুর সাহিত্য মঞ্চের সভাপতি মাইনুল ইসলাম মানিক জানান, প্রতিবন্ধী হয়েও শাহাদাত দক্ষতার পরিচয় দিয়ে আসছে। শাহাদাতকে একাই সংসার সামলাতে হয়। তিনি নিজে প্রতিবন্ধী হয়েও ঝুঁকিপূর্ণ পেশা বেছে নিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

চাঁদপুর এর আরও খবর

এ সম্পর্কিত আরও খবর