মশিউর রহমান কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

মাহমুদ আল হাসান রাফিন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, নীলফামারী
মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজ, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজ, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নীলফামারী শহরের স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগে বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) নীলফামারী সদর উপজেলার উত্তর চওড়া বড়গাছা স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলামকে উক্ত কলেজে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগের জন্য মনোনীত করা হয়েছে।

জানা যায়, গত ২২ জুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সুপারিশকৃত ও ২৪ জুন সিন্ডিকেট সভায় অনুমোদিত এবং ২৯ জুনের সিনেট সভায় অনুসমর্থিত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী কোনো ডিগ্রি কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগের ক্ষেত্রে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে ন্যূনপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ/শ্রেণিসহ স্নাতক পর্যায়ে পাঠদানকারী কোনো কলেজের অধ্যক্ষ/উপাধ্যক্ষ/অধ্যাপক/সহযোগী অধ্যাপক/সহকারী অধ্যাপকগণ আবেদন করতে পারবেন।

সেই হিসেবে অধ্যক্ষ পদে আবেদনকারীকে অবশ্যই ১৫ বছরের ডিগ্রি পর্যায়ের কলেজে পাঠদানের অভিজ্ঞতার পাশাপাশি ডিগ্রি কলেজে উপাধ্যক্ষ হিসেবে তিন বছর অথবা সহকারী অধ্যাপক হিসেবে পাঁচ বছরের অভিজ্ঞতার কথা বলা হলেও নীলফামারী মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজ কর্তৃপক্ষ এই বিধির তোয়াক্কা করেননি।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি নিখিল রঞ্জন বিশ্বাস ও ডিজি প্রতিনিধি নীলফামারী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ দেবী প্রসাদ রায়ের কাছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উল্লেখিত নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা বিষয়টি এড়িয়ে যান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কলেজের বেশ কয়েকজন শিক্ষক বলেন, 'নতুন বিধিতে নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান থাকলে কলেজের বেশ কয়েকজন শিক্ষক অধ্যক্ষ পদে আবেদন করতে পারতেন জেনেই তড়িঘড়ি করে নিয়মনীতি উপেক্ষা করে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে কলেজ কর্তৃপক্ষ।'

তারা জানান, ডিগ্রি পর্যায়ে পাঠদানের কোনো অভিজ্ঞতা না থাকলেও শহীদুল ইসলামকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগের জন্য মনোনীত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ তহমিনা খাতুনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত লিখুন :