শিক্ষকদের কর্মবিরতিতে অচল প্রাথমিক বিদ্যালয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, রাজবাড়ি
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের ডাকা কর্মসূচি পালন করছেন রাজবাড়ীর পাঁচটি উপজেলার ৪৮২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। ফলে বিদ্যালয়ে ছাত্র-শিক্ষক সবাই উপস্থিত থাকলেও কোনও পাঠদান করানো হচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার (১৭) অক্টোবর সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া কর্মবিরতি চলবে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত। এই কর্মসূচি অনুযায়ী শিক্ষকরা বিদ্যালয়ে উপস্থিত হলেও তারা শ্রেণীকক্ষে যাচ্ছেন না। শুধু শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিয়ে ক্লাসরুম ত্যাগ করছেন।

বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস খান টুটুল বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'প্রধান শিক্ষকদের জাতীয় বেতন স্কেলের ১০তম গ্রেড ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন দেওয়ার দাবিতে আমরা কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী দিনব্যাপী কর্মবিরতি পালন করছি।'

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির রাজবাড়ী জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. নাজমুল ইমাম ও সদর উপজেলার শিক্ষক সমিতির সভাপতি মানিক বিশ্বাস বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে গত ১৪ অক্টোবর ২ ঘণ্টা, ১৫ অক্টোবর ৩ ঘণ্টা, ১৬ অক্টোবর অর্ধদিবস ও আজ পূর্ণদিবস কর্মবিরতি কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে।'

তিনি আরও বলেন, 'রাজবাড়ী জেলায় প্রতিষ্ঠিত সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। আমাদের দাবি না মানা হলে ২৩ অক্টোবর ঢাকাতে মহাসমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি পালন করা হবে।'

শিক্ষকদের কর্মবিরতির বিষয়ে জানতে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হোসনে ইয়াসমিন করিমীর মোবাইলে যোগাযোগ করা হলেও পাওয়া যায়নি।

তবে জেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ীর পাঁচটি উপজেলাতে মোট ৪৮২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এরমধ্যে পাংশাতে ১২১টি, কালুখালীতে ৭৬টি, বালিয়াকান্দিতে ৯৯টি, সদরে ১৩৫টি ও গোয়ালন্দ উপজেলাতে রয়েছে ৫১টি।

আপনার মতামত লিখুন :