বিদ্যালয়ের গাছ ও ইট বিক্রি করে অর্থ ভাগাভাগি!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, চাঁদপুর
গাছ ও ইট বিক্রি করে অর্থ ভাগাভাগি করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে, ছবি: সংগৃহীত

গাছ ও ইট বিক্রি করে অর্থ ভাগাভাগি করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার ৬৮নং জাকনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের পুরাতন ও নবাগত সদস্যদের বিরুদ্ধে গাছ ও ইট বিক্রি করে অর্থ ভাগাভাগি করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ উঠেছে, বিদ্যালয়ের সভাপতি ইদ্রিস বেপারী, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পরিচয়ে সাবেক ইউপি সদস্য মো. ছায়েদ খান এবং প্রধান শিক্ষক শরূপা বেগমসহ কয়েকজন মিলে এই অর্থ ভাগাভাগি করে নিয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঝাকনী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রোকন মিজি এসব অনিয়মের প্রশ্রয়দাতা হিসেবে কাজ করছেন। স্থানীয় মো. আমির হোসেনের কাছে গাছ ও গ্রামের দুলাল গাজীর কাছে ইট বিক্রয় করেছে চক্রটি। তিনটি তাল গাছ বাবদ প্রায় ৩০ হাজার টাকা এবং অন্যান্য গাছ ও ইট বিক্রি করা হয়েছে আরও প্রায় ৩০ হাজার টাকা।

স্থানীয়রা জানান, বিদ্যালয়ের বর্তমান সভাপতি মো. ইদ্রিছ বেপারি বার্ধক্যজনিত কারণে শয্যাশায়ী। ফলে সায়েদ খান নিজেকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পরিচয় দিয়ে আসছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শরুপা বেগম সভাপতি ইদ্রিস বেপারীর বরাত দিয়ে বলন, ‘নতুন ভবনের কাজ করতে গাছ কাটা হয়েছে। তবে টাকার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।’

গাছ ক্রেতা আমির হোসেন বলেন, ‘আমি বিদ্যালয়ের গাছ কিনেছি। গাছের টাকা বিদ্যালয়ের সভাপতি ইদ্রিস বেপারীর হাতে দেওয়া হয়েছে।’

বিদ্যালয়ের সভাপতি হাজী ইদ্রিছ বেপারী বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন অসুস্থ। তবে মাত্র এক হাজার টাকায় গাছ বিক্রয় করা হয়েছে।’

জানতে চাইলে হাজীগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বুলবুল বলেন, ‘এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষা অফিসারকে খোঁজ নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।’

আপনার মতামত লিখুন :