ফাগুনের ঝড়ো বৃষ্টিতে আম চাষিদের মাথায় হাত

মো.তারেক রহমান, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম,চাঁপাইনবাবগঞ্জ
ফাগুনের ঝড়ো বৃষ্টিতে আম চাষিদের মাথায় হাত

ফাগুনের ঝড়ো বৃষ্টিতে আম চাষিদের মাথায় হাত

  • Font increase
  • Font Decrease

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বুধবার (৪ মার্চ) দুপুর হতে শুরু হয়েছে মুষলধারা বৃষ্টি। জেলার অধিকাংশ এলাকায় বৃষ্টি হয়েছে। তার মধ্যে শিবগঞ্জ উপজেলায় জেলার সব চাইতে বেশি বৃষ্টি দেখা যায়।

ফাগুনের এ বৃষ্টি যেন চাঁপাইনবাবগঞ্জে হতাশা বয়ে এনেছে। যার প্রভাব পড়েছে জেলার প্রধান অর্থকারী ফসল আমে। ফলে এখানকার আম চাষিদের মাথায় হাত উঠবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন আম সংশ্লিষ্টরা।

শিবগঞ্জের আম চাষি ইসমাইল খান শামিম জানান, অঝোর বৃষ্টিতে আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়ে যাবে। বিশেষ করে যে সব আম গাছে আমের মুকুল ফুটেছে ওইসব গাছের মুকুল পচে ঝরে যাবে। এ ছাড়া মুকুল পচে বিভিন্ন রোগবালাই বাসা বাধবে। তার দাবি-বৃষ্টির কারণে আমের মুকুলে হপার পোকার আক্রমণ বাড়বে। মুকুলে ছত্রাক পোকার আক্রমণ বাড়বে। যা কোনভাবেই নির্মূল করা সম্ভব নয়।

কানসাট এলাকার আম বাগান মালিক শহিদুল হক হায়দারি জানান, জলবায়ুর প্রভাবে চলতি মৌসুমে আমের মুকুল তেমনটা ফুটেনি। এমনকি অধিকাংশ গাছ শুধু পাতায় ভরে রয়েছে। যে সব বাগানে মুকুল এসেছিল-বৃষ্টিতে অধিকাংশই নষ্ট হয়ে যাবে। ফলে কৃষকদের কাঙ্ক্ষিত আম ফলন নিয়ে চিন্তায় পড়তে হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষি সম্প্রসার অধিদফতরের উপ পরিচালক মুঞ্জুরুল হুদা বলেন, কিছু দিন আগে যে মুকুলগুলো ফুটেছিল-সেগুলো নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কম। তার পরেও ফাগুনের বৃষ্টির পরে যদি আবহাওয়া ভাল না হয় তবে কিছুটা ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় চলতি বছর ৩৩ হাজার হেক্টর জমিতে ২ লাখ ৩৯ হাজার মেট্রিক টন আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। যা গত বছরের চেয়ে ৪০ হাজার মেট্রিক টনের কম।

আপনার মতামত লিখুন :