দগ্ধ গোয়ালন্দ উপজেলা কর্মকর্তার মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী:
স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো. সাইফুল ইসলাম শামীম, ছবি: সংগৃহীত

স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো. সাইফুল ইসলাম শামীম, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো. সাইফুল ইসলাম শামীম (৪২) রহস্যজনকভাবে অগ্নিদগ্ধ হয়ে ঢাকা মে‌ডি‌কে‌ল ক‌লেজ হাসপাতা‌লে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

শুক্রবার (২৭ মার্চ) সকাল ৮টা ৪০ মিনিটের দি‌কে তি‌নি মারা যান। সাইফুল ইসলাম ফরিদপুর মধুখালী এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, সাইফুল ইসলাম শামীম প্রায় ৫ বছর যাবত উপজেলায় স্যা‌নিটারি ইন্সপেক্টর হিসেবে গোয়ালন্দে কর্মরত। তিনি গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক কোয়াটারের দ্বিতীয় তলার একটি রুমে একাই থাক‌তেন।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপুরের খাবার খেয়ে তিনি ঘুমিয়ে ছিলেন। হঠাৎ তার গোঙানির শব্দ শুনে পাশের রুমের লোকজন তার রুমের দরজা ভেঙে সারা শরীর আগুনে ঝলসানো অবস্থায় উদ্ধার করে। এ সময় তার রুম ধোঁয়ায় আছন্ন ছিল। এ অবস্থায় তাকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। পরবর্তী‌তে শুক্রবার সকালে তিনি মারা যান।

গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. আসিফ মাহমুদ ব‌লেন, অগ্নিদগ্ধের পর ওই স্যা‌নিটারি ইনস্পেক্টরকে ঢাকা মে‌ডি‌কে‌ল ক‌লেজ হাসপাতা‌লে পাঠা‌নো হ‌য়ে‌ছিল। শুক্রবার সকা‌লে চি‌কিৎসারত অবস্থায় তি‌নি সেখা‌নে মারা গে‌ছেন। ত‌বে কীভাবে সে অগ্নিদগ্ধ হ‌য়ে‌ছি‌লেন, সেটা এখ‌নো জানা যায়নি।

এদিকে, তার অগ্নিদগ্ধকে রহস্যময় বলে অভিযোগ করেছেন তার স্বজনেরা। নিহতের বড় শ্যালক সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী কাজী রহমান মানিক বার্তা২৪.কমকে বলেন, অগ্নিদগ্ধ হওয়ার ৫ মিনিট আগেও সে আমার মায়ের সাথে ও তার বন্ধুদের সাথে কথা বলেছেন।

তাছাড়া তাকে যখন অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয় তখন তার গলায় গামছা পেচানো ছিল। যা যথেষ্ট সন্দেহের। তার এই মৃত্যুর পেছনে রহস্য রয়েছে। এ ব্যাপারে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে মরদেহটির ময়না তদন্ত চলছে বলেও তিনি জানান।

আপনার মতামত লিখুন :