উৎসে কর কমানোর ইঙ্গিত এনবিআর সদস্যের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
এনবিআর

এনবিআর

  • Font increase
  • Font Decrease

আসছে বছরে উৎসে কর কমানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) আয়কর নীতি বিভাগের সদস্য মো. আলমগীর হোসেন। তিনি বলেন, ‘উৎসে কর কমানোর চিন্তা চলছে। আগামী বাজেটে উৎসে কর কমানোর ঘোষণাটি আসতে পারে।’

শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) রাজধানীর বিজয়নগরে পল্টন টাওয়ারে অর্থনীতি বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন ইকোনোমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ) কার্যালয়ে আয়োজিত এক কর্মশালায় তিনি এসব কথা বলেন। ‘রিটার্ন ফরম পূরণ ও আয়কর’ শীর্ষক কর্মশালাটি যৌথভাবে আয়োজন করে ইআরএফ ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গোল্ডেন বাংলাদেশ। এতে সভাপতিত্ব করেন ইআরএফ সভাপতি শারমিন রিনভি।

মো. আলমগীর হোসেন বলেন, ‘সাধারণত বছর বছর উৎসে কর বাড়ানোর চেষ্টা করে এনবিআর। আর প্রভাবশালী ব্যবসায়িক সংগঠন প্রতিবছরই উৎসে কর কমানো নিয়ে দৌড়ঝাঁপ করে। উৎসে কর হ্রাস-বৃদ্ধি নিয়ে একধরনের ঠাণ্ডালড়াই নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে আসছে বছর সেটি বন্ধ হতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘কর ব্যবস্থাপনাকে ডিজিটালাইজ করার অংশ হিসেবে অনলাইনে কর প্রদানে বিশেষ গুরুত্ব দিতে যাচ্ছে আয়কর বিভাগ। আগামী বছর রিটার্ন দাখিলে কিছু ক্ষেত্রে অনলাইনে করদাতার আয়কর রিটার্ন দাখিল বাধ্যতামূলক করার আলোচনা হচ্ছে। আগামী জুনের মধ্যে নতুন আয়কর আইনের একটি ভিত্তি দাঁড়িয়ে যাবে। আইনটি বাংলায় সহজবোধ্য করে তৈরি করা হচ্ছে। এ ছাড়া কর ফাঁকি রোধে বিআরটিএসহ একাধিক প্রতিষ্ঠানের তথ্যভান্ডারের সঙ্গে আয়কর বিভাগের যোগাযোগ স্থাপনের কাজও শেষ পর্যায়ে।’

এনবিআর সদস্য আলমগীর হোসেন বলেন, ‘আয়কর আইন, রিটার্ন এবং আয়কর প্রদানের ব্যবস্থা সহজ হলে করের আওতা বাড়বে। করদাতাদের মধ্যে করভীতি কমবে। করদাতা নিজেই রিটার্ন পূরণ ও জমা দিতে পারবেন। এ জন্য এনবিআর বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে।’

কর্মশালায় বক্তারা মাঠপর্যায়ে করভীতির বিষয়টি তুলে ধরে তা নিরসনে এনবিআরকে উদ্যোগ নেওয়ার পাশাপাশি কর আদায়সহ পুরো ব্যবস্থাপনা আরও সহজ ও করদাতাবান্ধব করার ওপর জোর দেন। অনুষ্ঠানে গোল্ডেন বাংলাদেশ প্রকাশিত নতুন পাঁচটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।