জিপিএইচ ইস্পাতের বার্ষিক সাধারণ সভা সম্পন্ন, লভ্যাংশ অনুমোদন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
জিপিএইচ ইস্পাতের বার্ষিক সাধারণ সভা সম্পন্ন।

জিপিএইচ ইস্পাতের বার্ষিক সাধারণ সভা সম্পন্ন।

  • Font increase
  • Font Decrease

জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেডের ১৪তম বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) সম্পন্ন হয়েছে। শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ প্রদানের প্রস্তাব অনুমোদন।

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে এজিএম অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কোম্পানির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলমগীর কবির।

সভায় আরও যোগ দেন- ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমাস শিমুল, পরিচালকগণ- মোঃ আশরাফুজ্জামান, মোঃ আব্দুল আহাদ, মোঃ আজিজুল হক, স্বতন্ত্র পরিচালক এম এ মালেক, মুখতার আহমদ, নির্বাহী পরিচালক (গ্রুপ) এবং কোম্পানি সচিব আবু বকর সিদ্দিক এফসিএমএ, নির্বাহী পরিচালক (ফাইনান্স অ্যান্ড বিজনেস ডেভলাপমেন্ট) কামরুল ইসলাম এফসিএ, নির্বাহী পরিচালক (সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং) শোভন মাহবুব শাহবুদ্দিন (রাজ), উপদেষ্টা (অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষণ) আরাফাত কামাল এফসিএ এবং প্রধান অর্থ কর্মকর্তা এইচ এম আশরাফ উজ জামান এফসিএ এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ। এছাড়াও সভায় বহু সংখ্যক শেয়ারহোল্ডার ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে যোগ দেন।

উক্ত সভায় জিপিএইচ ইস্পাত লি. এর ৩০ জুন সমাপ্ত বছরের আর্থিক প্রতিবেদন, সংশ্লিষ্ট নিরীক্ষা প্রতিবেদন এবং পরিচালনা পর্ষদের প্রতিবেদন সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভোটে গৃহীত ও অনুমোদিত হয়। এছাড়া সভায় ২০১৯-২০ অর্থবছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ঘোষিত ৫ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদিত হয়।

স্বাগত ভাষণে সভার সভাপতি মোঃ আলমগীর কবির বলেন, বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ এবং প্রতিকূলতার মুখে জিপিএইচ ইস্পাত ধারাবাহিকভাবে বিপণন সরবরাহ ও ভ্যালু চেইনসমূহকে সহজতর করে চলেছে। তীব্র প্রতিযোগিতার কারণে জিপিএইচ ইস্পাত তার প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা, কৌশল এবং নতুন পণ্য উদ্ভাবনের বিষয়ে বিশেষ জোর দিচ্ছে। তিনি আরো বলেন, দায়িত্বশীল ব্যবসায়িক আচরণের মাধ্যমে জিপিএইচ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। মহামারি পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে তিনি রফতানিসহ সর্বক্ষেত্রে সরকারি প্রণোদনা কামনা করেন।

জিপিএইচ গ্রুপ চেয়ারম্যান ও জিপিএইচ ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম কোভিড-১৯ উদ্ভূত বৈশ্বিক ও অভ্যন্তরীণ অর্থনীতিতে প্রচন্ড আঘাতের কথা উল্লেখ করেন। এই চ্যালেঞ্জের মধ্যেও আমরা বিশ্বের সর্বাধুনিক কোয়ান্টাম ইলেক্ট্রিক আর্ক ফার্ণেস প্রযুক্তি পরীক্ষামূলক উৎপাদন করে শীঘ্রই বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করবো। এই সময়কালে জিপিএইচ পদ্ধতিগত সমাধানে নীতি গ্রহণ করা হয়েছে যা শিল্পে ইকোসিস্টেমকে শক্তিশালী করেছে। কোম্পানির টেকসই উন্নয়ন অর্জনে ম্যানেজমেন্ট একসাথে কাজ করে চলেছে। সংকোচিত মার্কেটে শীর্ষস্থানীয় অবস্থান সুদৃঢ় করার জন্য বাজারমুখী প্রযুক্তি, গুনগতমান উদ্ভাবনপূর্বক ব্যবসায়ে লাভজনকতা রক্ষার বিষয়সমূহ অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।

তিনি জিপিএইচ এর কর্মরত মানব সম্পদকে কোভিড-১৯ সুরক্ষা দেয়ার বহুমুখী পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করেন। তাছাড়া জিপিএইচ ইস্পাত জেলা প্রসাশন ও সিভিল সার্জনের মাধ্যমে উপজেলা পর্যায়ে, নগরীর ফিল্ড হাসপাতাল সমূহে ও সরকারি হাসপাতাল গুলোতে রিফিল পদ্ধতিতে ১ হাজার অক্সিজেন সিলিন্ডার বিতরণ করেছে।

পরিশেষে জিপিএইচ’এর অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মাদ আলমাস শিমুল বলেন, আমরা একটা আন্তর্জাতিক মানের টিম নিয়ে রাউন্ড দ্যা ক্লক কাজ করছি। চীনের মত দেশে বিলেট রপ্তানী করে বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছি। তিনি বাংলাদেশ সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও রেগুলেটরি বডি সমূহ এবং প্রিন্ট এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াকে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

শেয়ারহোল্ডারদের প্রশ্নের উত্তর দেন- ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, সার্বিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন নির্বাহী পরিচালক (এফ অ্যান্ড বিডি) কামরুল ইসলাম, এফসিএ।

আলোচনায় শেয়ারহোল্ডারবৃন্দ কোম্পানির সার্বিক কার্যক্রমে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং কোম্পানির পরিচালকগণের প্রতি অনুরোধ রাখেন যাতে এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকে এবং ভবিষ্যতে অধিক পরিমাণে লভ্যাংশ প্রদান করতে পারে।