বেনাপোল কাস্টমসে বাণিজ্যিক স্বচ্ছতায় বিকম সফটওয়্যার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বেনাপোল (যশোর)
বেনাপোল কাস্টমসে বাণিজ্যিক স্বচ্ছতায় বিকম সফটওয়্যার

বেনাপোল কাস্টমসে বাণিজ্যিক স্বচ্ছতায় বিকম সফটওয়্যার

  • Font increase
  • Font Decrease

আমদানি রপ্তানি বাণিজ্যকে গতিশীল, রাজস্ব ফাঁকি রোধ ও শুল্কায়নে স্বচ্ছতা বাড়াতে “বিকম” নামে একটি নতুন সফটওয়্যার উদ্বোধন করেছে বেনাপোল কাস্টমস হাউস।

মঙ্গলবার (০৪ মে) দুপুরে বেনাপোল কাস্টমস হাউজে এ সফটওয়্যার চালু করা হয়। কাস্টমস ভবন স্থাপনের পর এ প্রথম এ প্রযুক্তি স্থাপন হলো। এতে ডিজিটালের দিক দিয়ে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল বেনাপোল কাস্টম হাউস।

কাস্টমস সুত্র জানায়, আমদানি রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাক ও পণ্যের তথ্য সংগ্রহ করতে ইতিপূর্বে সীমান্তের শুণ্য রেখায় কার্গো শাখায় কাস্টমস,বন্দর ও বিজিবি যৌথভাবে এনট্রি করতো। ফলে একটি ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করতে প্রায় আধা ঘণ্টা সময় লাগতো। বর্তমানে বিকম সফটওয়্যারের মাধ্যমে বারকোড ব্যবহার করায় সময় লাগছে মাত্র ৫ মিনিট। ভারতীয় এসব ট্রাকের অবস্থান ও কোন শেডে পণ্য আনলোড হচেছ তা মুহূর্তেই জানা যাবে বিকমের মাধ্যমে।দেশের যে কোন স্থানে অবস্থান করেও আমাদনি রফতানি পণ্যবাহি ট্রাকের সুনির্দিষ্ট স্থান নির্ণয় করা, বাকেয়া রাজস্ব, ব্যাংক গ্যারান্টি , আন্ডারটেকিং ও সিএন্ডএফ এজেন্ট লাইসেন্স এর সকল তথ্য একযোগে জানাবে এ সফটওয়্যার।

বেনাপোল কাস্টমস হাউজের অতিরিক্ত কশিনার ড. নেয়ামুল ইসলাম জানান, বাংলাদেশে এই প্রথম কাস্টমস হাউসে বিকম সফটওয়্যারে বাণিজ্যক কার্যক্রম তদারকি শুরু হয়েছে। বর্তমানে ১৫ টি মডিউলের মাধ্যমে আমদানি রপ্তানি বাণিজ্য গতিশীল,স্বচ্ছতা ও প্রতিদিন পাসপোর্ট যাত্রীদের যাতায়াত মনিটরিং, চোরাচালানকারী পণ্য আটকসহ কাস্টমস ও বন্দরের সার্বিক ব্যবস্থাপনা পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়া বন্দরের গুদামে সংরক্ষিত বাজেয়াপ্ত মালামাল গুলোর অবস্থান নিশ্চিত করা এবং পণ্যের রাসায়নিক পরীক্ষার ফলাফল জালিয়াতি করা সম্ভব নয় এ ধরনের সফটওয়্যারে। তাছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ রাসায়নিক পণ্য ডিটেক্ট করাও সম্ভব দ্রুত।