প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নে অনুদান দিচ্ছে জাপান



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির (পিইডিপি-৪) আওতায় বাংলাদেশকে ৩৮ কোটি ৯৩ লাখ টাকা অনুদান দিচ্ছে জাপান সরকার। দুদেশের সরকারের মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

সোমবার রাজধানীর অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগে (ইআরডি) এ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের পক্ষে ইআরডি সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন ও জাপান সরকারের পক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি চুক্তিতে সই করেন।

প্রাথমিক ও গণ-শিক্ষা মন্ত্রণালয় ২০১৮ থেকে ২০২৩ এর মধ্যে ‘দি ফোর্থ প্রাইমারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম (পিইডিপি-৪)’ বাস্তবায়ন করছে। প্রোগ্রামটির আওতায় কারিকুলাম সংশোধন ও পাঠ্যবই উন্নয়ন, শিক্ষক প্রশিক্ষণ ও পেশাগত উন্নয়ন অব্যহতকরণ, পদ্ধতি এবং বাজেটের জন্য জাপানের অনুদানটি দেয়া হয়েছে।

জাপান এর আগে ২০১১ থেকে ২০১৮ মেয়াদে ‘থার্ড প্রাইমারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম (পিইডিপি৩)’ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য ২৪৯০ মিলিয়ন জাপানি ইয়েন (১৯৮ কোটি টাকার সমান) অনুদান দিয়েছে।

২০১৮ সাল থেকে বাস্তবায়িত ‘দি ফোর্থ প্রাইমারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম (পিইডিপি-৪)’ প্রকল্পের প্রথম ও
দ্বিতীয় বছরের জন্য জাপান ১ হাজার মিলিয়ন জাপানি ইয়েন (আনুমানিক ৭৫.৬৫ কোটি টাকা বা ৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) অনুদান দিয়েছে।

জাপান বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী দেশ। ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত নানা উন্নয়ন খাতে বাংলাদেশকে ১৬ দশমিক ১৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ ও অনুদান দিয়েছে জাপান সরকার। মেট্রোরেলের মতো নানা মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নেও বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছে জাপান।

বড় ব‍্যবসায়িরা বেশি ঋণখেলাপি হন: এফবিসিসিআই



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

এফবিসিসিআই সভাপতি জসিম উদ্দিন বলেন, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উদ‍্যোক্তাদের ঋণ দিতে চায় না ব‍্যাংক। তারা দাবি করে এরা ঋণখেলাপি হবে। কিন্তু বড় ব‍্যবসায়িরাই বেশ ঋণখেলাপি হন। ছোটরা ঠিকই ঋণের টাকা পরিশোধ করে দেন। 

শনিবার (২২ জানুয়ারি ) মতিঝিলের এফবিসিসিআই অডিটোরিয়ামে 'দেশের ব‍্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় চেম্বারের ভূমিকা, সমস্যা ও সম্ভাবনা' শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। 

জসিম উদ্দিন বলেন, করোনার মধ্যে ব‍্যবসায়িরা যেন ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেন সেজন‍্য দুটি প্রণোদনা প‍্যাকেজ দেন প্রধানমন্ত্রী। বড় ব‍্যবসায়িদের জন‍্য এক লাখ ৮৭ হাজার কোটি টাকার প‍্যাকেজ ও এসএমই উদ‍্যোক্তাদের জন‍্য ২২ হাজার কোটি টাকার প‍্যাকেজ। বড় ব‍্যবসায়িরা প্রণোদনার টাকা পেলেও এসএমই উদ‍্যোক্তারা পদে পদে বাধার সম্মুখীন হয়েছে। প্রণোদনা প‍্যাকেজের মাত্র ২০ শতাংশ ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। 

তিনি বলেন, করোনার কারণে বিশ্বব‍্যাপী সাপ্লাই চেইন নষ্ট হয়ে গেছে। অনেক বড় বড় কোম্পানি পথে  বসে গেছে। আমাদের এখানেও অনেক ক্ষতি হয়েছে। গতবছর লকডাউনের কারণে অনেক কোম্পানি বসে ছিল। তারা এখনো ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেনি। এরমধ্যে ঋণ পরিশোধের জন‍্য চাপ দেয়া হচ্ছে। ঋণ পরিশোধের সময় যদি না বাড়ায় তাহলে অনেক কোম্পানি ঋণখেলাপি হয়ে যাবে।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, কাঁচামালের দাম বাড়ার কারণে শুল্ক বেশি দিতে হচ্ছে। এতে রাজস্ব বেশি আয় হচ্ছে। রাজস্ব আয় বাড়া খুশির সংবাদ কিন্তু ব‍্যবসায়িদের ক্ষতি করে বাড়াটা ভাল খবর নয়। কাঁচামালের দাম বাড়ায় পণ‍্যের দামও বেড়ে যাচ্ছে। যারা কর দিচ্ছে তাদের উপর সরকার আরও কর বাড়িয়ে দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই) এর সভাপতি আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী (পারভেজ), মহামারীর কারণে গতবছর ৯ মাস মন্দা গেছে। ব‍্যবসায়িরা ব‍্যবসায় করতে পারনি। ব‍্যাংকে ঋণের কিস্তির মেয়াদ না বাড়ালে তারা কিস্তি কিভাবে দিবে তাদেরতো হাতে টাকা নাই। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব‍্যাংক গভর্নর বিবেচনা করবে বলে আমি আশা করি।

ডিসিসিআই সভাপতি রিজওয়ান রহমান বলেন, শিল্পনীতি, ভ‍্যাট হয়রানি এটা নতুন নয়। অনেক আগে থেকেই চলে আসছে। আমরা স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও ভ‍্যাট অটোমেশনের দিকে যেতে পারিনি। ভ‍্যাট অটোমেশন না হলে ব‍্যবসায়িদের হয়রানি বন্ধ হবে না। 

কাউন্সিল অব চেম্বার প্রেসিডেন্টস এর সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবুর সভাপতিত্বে দেশের বিভাগীয় চেম্বার অব কমার্স ও জেলা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতিরা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। 

;

যমুনায় ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ভাইব্রেন্ট



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
যমুনায় ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ভাইব্রেন্ট

যমুনায় ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ভাইব্রেন্ট

  • Font increase
  • Font Decrease

যমুনা ফিউচার পার্কে একটি ফ্ল্যাগশিপ স্টোর খুলতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা গ্রুপের সহ‌যোগী প্রতিষ্ঠান ইউএস-বাংলা ফুটওয়ারের ব্র্যান্ড ভাইব্রেন্ট।

ইউএস-বাংলা ফুটওয়্যার লিমিটেডের সিইও রুহুল আমিন এবং যমুনা গ্রুপের পরিচালক আলমগীর আলম সম্প্রতি একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করেন।ব্র্যান্ডটির ইতিমধ্যে বাংলাদেশে ২১টি আউটলেট রয়েছে।

;

সাউথইস্ট ব্যাংকের ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স ২০২২’ অনুষ্ঠিত



Tabassum Tanjim
ছবি: সাউথইস্ট ব্যাংকের ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স

ছবি: সাউথইস্ট ব্যাংকের ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স

  • Font increase
  • Font Decrease

শনিবার (২২ জানুয়ারি) সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড ব্যাংকের ব্যবসায়িক অবস্থান ও মূল্যায়ন সম্পর্কিত ‘বিজনেস পলিসি এবং প্ল্যানিং কনফারেন্স ২০২২’ এর আয়োজন করে। সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান জনাব আলমগীর কবির, এফসিএ উক্ত কনফারেন্সে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন।

কনফারেন্সে, ভাইস চেয়ারপার্সন মিসেস দুলুমা আহমেদ, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্য জনাব আজিম উদ্দিন আহমেদ, পরিচালনা পর্ষদের পরিচালকবৃন্দ - মিসেস জোসনা আরা কাশেম, মিসেস রেহানা রহমান, জনাব মো: আকিকুর রহমান, বে-লিজিং এন্ড ইনভেষ্টমেন্ট লিমিটেডের পক্ষে জনাব এম. মনিরুজ্জামান খান, জনাব নাসির উদ্দিন আহমেদ, এশিয়া ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের পক্ষে জনাব মো. রফিকুল ইসলাম, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র পরিচালক জনাব সৈয়দ সাজেদুল করিম এবং স্বতন্ত্র পরিচালক জনাব ড. কাজী মেজবাহউদ্দিন আহমেদ ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন।

সাউথইস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম. কামাল হোসেন কনফারেন্সে সভাপতিত্ব করেন। সাউথইস্ট ব্যাংকের সকল শাখা প্রধান, উপশাখা প্রধান, বিভাগীয় প্রধান ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে আয়োজিত কনফারেন্সে সংযুক্ত হন। কনফারেন্সে ব্যাংকের সার্বিক অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয় এবং ২০২২ সালের বার্ষিক ব্যবসায়িক লক্ষ্য অর্জনের জন্য বিভিন্ন নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়।

;

দুবাইয়ে বিশ্বখ্যাত গ্লোবাল ইকোনোমিকসের পুরস্কার গ্রহণ করল ‘নগদ’



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
দুবাইয়ে বিশ্বখ্যাত গ্লোবাল ইকোনোমিকসের পুরস্কার গ্রহণ করল ‘নগদ’

দুবাইয়ে বিশ্বখ্যাত গ্লোবাল ইকোনোমিকসের পুরস্কার গ্রহণ করল ‘নগদ’

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের সেরা ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস-২০২১ পুরস্কার অর্জন করেছে ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’। যুক্তরাজ্যভিত্তিক বিশ্বখ্যাত অর্ধবার্ষিক ফাইন্যান্সিয়াল বিজনেস ম্যাগাজিন গ্লোবাল ইকোনোমিকস লিমিটেড এই পুরস্কার প্রদান করেছে।

গত ২০ জানুয়ারি দুবাইয়ের পাঁচতারকা হোটেল সাংরিলায় এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আয়োজন করে গ্লোবাল ইকোনোমিকস লিমিটেড। যেখানে বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

‘নগদ’-এর পক্ষে পুরস্কারটি গ্রহণ করেন ‘নগদ’-এর পরিচালক ফয়সাল চৌধুরী এবং ‘নগদ’-এর স্ট্র্যাটেজিক অ্যালায়েন্সের প্রধান কে এম আইরীন আজিজ।
এর আগে গত বছর ২০২১ সালের জুলাই মাসে ‘নগদ’-কে বেস্ট ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের (ডিএফএস) স্বীকৃতি দেয় গ্লোবাল ইকোনোমিকস লিমিটেড। আর সেই স্বীকৃতির অংশ হিসেবে সম্প্রতি ‘নগদ’ এই পুরস্কার গ্রহণ করল।

মূলত প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের মাধ্যমে ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশনের জন্য ‘নগদ’-কে বেস্ট ডিএফএস এর স্বীকৃতি দিয়েছে গ্লোবাল ইকোনোমিকস লিমিটেড। প্রকাশনাটি বাজারের সেরা প্রতিষ্ঠানগুলোকে এই গ্লোবাল ইকোনোমিকস অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে থাকে।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে যাত্রার পর থেকেই উদ্ভাবনী সেবার জন্য বিভিন্ন ধরনের স্বীকৃতি পেয়ে আসছে ‘নগদ’। এ ছাড়া দেশে প্রথমবারের মতো ই-কেওয়াইসি (আপনার গ্রাহককে জানুন) সেবাটি চালু করে ‘নগদ’।

পাশাপাশি দেশের মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে মিলে মাত্র কয়েক সেকেন্ডে এমএফএস অ্যাকাউন্ট খোলার প্রক্রিয়াও প্রথমবারের মতো চালু করে এই সেবাটি। অসাধারণ এই উদ্ভাবনটি গ্রাহকদের *১৬৭# ডায়াল করে খুব সহজেই ‘নগদ’ অ্যাকাউন্ট খোলার সুযোগ করে দিয়েছে।

এই অর্জনের বিষয়ে ‘নগদ’-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক বলেন, যাত্রার পর থেকেই আমরা উদ্ভাবনের মাধ্যমে গ্রাহকদের সাশ্রয়ী সেবা দিতে কাজ করে যাচ্ছি। এই অর্জন ‘নগদ’ এর জন্য একটি মাইলফলক। সামনের দিনে আরও উদ্ভাবনী কাজের মাধ্যমে ‘নগদ’ আরও বেশি বেশি স্বীকৃতি পাবে, সেই প্রত্যাশা করছি।

ডিজিটাল বাংলাদেশর ভিশন বাস্তবায়নে এই তিন বছরের যাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে ‘নগদ’, যার ফলে অসংখ্য স্বীকৃতি অর্জন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

এরমধ্যে ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে বেস্ট ফিনটেক স্টার্টআপের জন্য ইনক্লুসিভ ফিনটেক ফিফটি অ্যাওয়ার্ড, অর্থনৈতিক অন্তর্ভুক্তিতে অনন্য অবদানের জন্য প্রথম বাংলাদেশি এমএফএস প্রতিষ্ঠান হিসেবে ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স গ্লোবাল আইসিটি এক্সসিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০২০, বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপান্তরে অবদানের জন্য ২০২০ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলায় স্বীকৃতি পেয়েছে ‘নগদ’। ‘নগদ’-এ বর্তমানে গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি ৮০ লাখ এবং গড়ে লেনদেন হচ্ছে ৭৫০ কোটি টাকা।

;