‘দেশের ৪৫ ভাগ মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেশ ভালো’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ প্রায় ১৭ কোটি মানুষের একটি বড় বাজার; এরমধ্যে প্রায় ৪৫ ভাগ মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেশ ভালো বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

তিনি বলেছেন, পার্শ্ববর্তী ভারত এবং চীন দুটি বড় বাজার। বাংলাদেশে প্রচুর দক্ষ জনশক্তি রয়েছে। এখানে বিনিয়োগের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার বিশেষ সুযোগ- সুবিধা প্রদান করছে।’

রোববার (২৯ মে) রাজধানীর হোটেল ‘ফরেন ডাইকেন্ট ইনভেস্টমেন্ট ফর লজিস্টিক সেক্টর’ শীর্ষক দিনব্যাপী আলোচনা সভার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আলোচনা সভার সহযোগিতা করেছেন নরডিক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির উদ্যোগে ডেনমার্ক, নরওয়ে ও সুইডেন অ্যাম্বাসি এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের হেড অব ডেলিগেশন।

বাংলাদেশ এখন শক্ত অর্থনৈতিক শক্তির ওপর দাঁড়িয়ে আছে জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে কম খরচে পণ্য উৎপাদন করে সহজেই অন্য দেশে রফতানি করা সম্ভব। দেশে উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান। আগামী ২০৩০ সালে এসডিজি অর্জনের মাধ্যমে ২০৪১ সালে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। বাণিজ্য বৃদ্ধির জন্য সরকার প্রয়োজনীয় এবং সময়োপযোগী জাতীয় লজিস্টিক নীতিমালা গ্রহণ করেছে। লজিস্টিক সেক্টর দেশের আমদানি ও রফতানির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘দেশে বিনিয়োগ এবং বাণিজ্য বৃদ্ধির জন্য সরকার প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে এবং ব্যবসাবান্ধব টেকসই পরিবেশ সৃষ্টির জন্য কাজ করে যাচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, নরডিক চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট তাহরিন আনাম, এইচএসবিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, ঢাকায় নিযুক্ত ডেনমার্কের অ্যাম্বাসেডর উইনি ইস্ট্রুপ পেটারসেন, নরওয়ের অ্যাম্বাসেডর ইসপেন রিকটার এসভেন্ডসেন, সুইডেনের অ্যাম্বাসেডর আলেকজেন্ড্রা বার্গ ভন লিনডি এবং ইউরোপিয়ন ইউনিয়নের হেড অব ডেলিগেশন চার্লেস হুইটলি।

হেডকোয়ার্টারে ওয়ার্ল্ড রেফ্রিজারেশন ডে উদযাপন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
হেডকোয়ার্টারে প্রোডাকশন প্ল্যান্ট পরিদর্শন করছেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’র এমডি ও সিইও গোলাম মুর্শেদ।

হেডকোয়ার্টারে প্রোডাকশন প্ল্যান্ট পরিদর্শন করছেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’র এমডি ও সিইও গোলাম মুর্শেদ।

  • Font increase
  • Font Decrease

***বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ইলেকট্রনিক্স পণ্যের উৎপাদন ও ব্যবসা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনা দিলেন ওয়ালটন সিইও

হেডকোয়ার্টারে ওয়ালটন পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ওয়ার্ল্ড রেফ্রিজারেশন ডে উদযাপন করলেন প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও গোলাম মুর্শেদ। সে সময় তিনি প্রিমিয়াম ক্যাটাগরির আইওটি বেজড আপকামিং মডেলের বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার মাধ্যমে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের উৎপাদন ও ব্যবসা সংক্রান্ত বিষয়ে ওয়ালটন সদস্যদের গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনা দেন সিইও গোলাম মুর্শেদ।

রোববার (২৬ জুন, ২০২২) গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হেডকোয়ার্টারে পৌঁছে প্রথমেই বেলুন উড়িয়ে ওয়ার্ল্ড রেফ্রিজারেশন ডে’র সূচনা করেন গোলাম মুর্শেদ। পরে তিনি রিসার্চ অ্যান্ড ইনোভেশন (আরঅ্যান্ডআই), মানবসম্পদ, মান নিয়ন্ত্রণ বিভাগসহ বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন প্রক্রিয়া পরিদর্শন করেন। তিনি প্রোডাকশন প্ল্যান্টে কর্মরত ওয়ালটন পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মত-বিনিময় করেন এবং পণ্যের উৎপাদন প্রক্রিয়ার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও দিক-নিদের্শনা দেন।


ওয়ালটন সিইও বলেন, এই মুহূর্তে বিশ্ব একটি কঠিন অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। কোভিড-১৯ মহামারি ক্ষতি কাটিয়ে বৈশ্বিক অর্থনীতি যখন ঘুরে দাঁড়ানো শুরু করেছে, তখন বৈশ্বিক ভূ-রাজনৈতিক সংকট এ পরিস্থিতিকে আরো নাজুক করেছে। যার প্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচামালের মূল্য এবং পরিবহন ব্যয় অনেক বেড়েছে। এদিকে ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমে গিয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও বন্যায় সিলেট বিভাগে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের ব্যবসায়। তবে খুব শিগগিরই এ পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে পারবো বলে আমরা আশা করছি।

তিনি বলেন, আমাদের রিসার্চ অ্যান্ড ইনোভেশন বিভাগ চমৎকার কাজ করছে। প্রোডাকশন প্ল্যান্টে আইওটি বেজড প্রিমিয়াম ক্যাটাগরির বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন চলছে। খুব শিগগিরই আমরা ক্রেতাদের হাতে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও ডিজাইনের অভিজাত মডেলের পণ্য তুলে দিতে পারবো। ক্রেতাদের জন্য আমরা ব্যাপক চমক নিয়ে আসছি।

রেফ্রিজারেশন দিবস উদযাপন বিষয়ে ওয়ালটন সিইও বলেন, শিল্পখাতে আমাদের কিছু দায়িত্ব আছে। যা আমরা এড়িয়ে যেতে পারি না। কারণ দিন দিন বৈশ্বিক উষ্ণায়ন চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা যখন একটা প্রোডাক্ট ডেভেলপ করি, তখন পরিবেশের কথা মাথায় রেখেই তা ডেভেলপ করি। আমাদের সব কাজে পরিবেশের সুরক্ষার বিষয়টি প্রাধান্য পায়।

ওয়ালটনের সদস্যদের উদ্দেশ্যে সিইও গোলাম মুর্শেদ বলেন, পরবর্তী প্রজন্মের উপযোগী বিশ^ আমাদের রেখে যেতে হবে। এটাই সাসটেইনেবিলিটি। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার ১৭টি লক্ষ্য যেন আমরা নিজেদের মধ্যে ধারণ করি। আমরা যখন কোনো কাজ করি, তখন মনে রাখতে হবে ওই ১৭টি লক্ষ্যের সঙ্গে আমি কোনো না কোনোভাবে সংযুক্ত। তাই এসডিজির গোলগুলোর সঙ্গে নিজেদের একীভূত করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, দায়িত্বশীলতা বড় একটি বিষয়। আমরা যেখানেই কাজ করি না কেন, দ্বায়িত্বশীল হয়ে কাজ করতে হবে। কাজটিকে ধারণ করতে হবে। আমাদের চিন্তাÑভাবনা ও কাজ যেন স্বচ্ছ থাকে এবং তা ভবিষ্যতের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হয়। যেখানেই যে কাজ করি না কেন, তা যেন মানুষের মঙ্গলজনক হয়, তাদের কাজে লাগে। আজকে আমরা যে ইনোভেশন করছি, তা ১০ বা ২০ বছর পর মানুষের জন্য কতটুকু উপকারী হবে, সে বিষয়টিতে যেন আমরা গুরুত্ব দেই। আমাদের প্রতিটি পণ্য যেন দীর্ঘ সময়ের জন্য সাসটেইনেবল হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটনের চিফ টেকনিক্যাল অফিসার মগ ইয়াং, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর কর্নেল (অব) শাহাদাত আলম, তানভীর রহমান, তাপস কুমার মজুমদার, ইউসুফ আলী, মোস্তফা নাহিদ হোসেন, ইয়াসির আল ইমরান, নিজাম উদ্দীন মজুমদার, মোহসিন সরদার, মাহফুজুর রহমান, তাহসিনুল হক ও শাহিনূর সুলতানা, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর তোফায়েল আহমেদ, শাহজালাল হোসেন লিমন, আব্দুল মালেক শিকদার, দিদারুল আলম খান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের এপ্রিলে সারা বিশ্বের ব্যবসায়িক সংগঠন এবং উদ্যেক্তারা ২৬ জুন বিশ্ব রেফ্রিজারেশন দিবস পালনের বিষয়ে একমত হয়। প্রতি বছর নানান আয়োজনে দিবসটি পালন করে আসছে ওয়ালটন। জাতিসংঘের পরিবেশবিষয়ক সংস্থার (ইউএনইপি) ওজোন অ্যাকশন বিভাগ রেফ্রিজারেশন দিবস পালনে সমর্থন দেয়। চলতি বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘কুলিং ম্যাটারস’।

;

বিপ্রপার্টির গ্রাহকদের সহজ হোম লোন সুবিধা দিতে সিটি ব্যাংকের সাথে চুক্তি



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
বিপ্রপার্টির গ্রাহকদের সহজ হোম লোন সুবিধা দিতে সিটি ব্যাংকের সাথে চুক্তি

বিপ্রপার্টির গ্রাহকদের সহজ হোম লোন সুবিধা দিতে সিটি ব্যাংকের সাথে চুক্তি

  • Font increase
  • Font Decrease

বিপ্রপার্টির গ্রাহকদের হোম লোন নেয়ার ক্ষেত্রে আকর্ষণীয় রেট এবং বিশেষ সার্ভিস প্রদান করার লক্ষ্যেই সিটি ব্যাংকের সাথে বিপ্রপার্টির এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে সম্প্রতি।

এই চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে সিটি ব্যাংক বিপ্রপার্টির বিশেষ হোম লোন ফাইন্যান্সিং পার্টনার হিসেবে যুক্ত হচ্ছে, যেখানে সিটি ব্যাংক বিপ্রপার্টির গ্রাহকদের জন্য দ্রুততম সময়ে এবং সহজ শর্তে হোম লোনের সুযোগ করে দিবে। এছাড়া বিপ্রপার্টির সকল গ্রাহকদের বিশেষ সুদের হার প্রদান করার সাথে দ্রুত সময়ে হোম লোনের প্রক্রিয়া সমাপ্ত করা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের ক্যাম্পেইন এবং প্রমোশনাল অফারের সুবিধাও প্রদান করবে সিটি ব্যাংক।

যেখানে বিপ্রপার্টির পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন বিপ্রপার্টির কমার্শিয়াল এবং অপারেশনস এর ডিরেক্টর অনীক সীমান্ত, প্রোডাক্ট এবং গ্রোথ এর জেনারেল ম্যানেজার খান তানজিল আহমেদ এবং মর্টগেজ সল্যুশনস এর ম্যানেজার কাজী সারোয়ার জাহান সানি।

এছাড়া সিটি ব্যাংক এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন এসইভিপি ও রিটেইল ব্যাংকিং এর প্রধান মোহাম্মদ অরুপ হায়দার, ইভিপি- প্রোডাক্টস্‌, সেগমেন্টস্‌ এবং ডিরেক্ট অ্যাকুইজিশনস্ এর প্রধান সুবির কুমার কুন্ডু, এসএভিপি- ডেভেলপার রিলেশনশিপ এর প্রধান এ.কে.এম রোকনুজ্জামান খন্দকার এবং ডেভেলপার রিলেশনশিপ এর ম্যানেজার মোহাম্মদ কামরুল হাসান। 

বাংলাদেশের ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানগুলোর সাথে এ ধরনের চুক্তি স্বাক্ষরে বিপ্রপার্টি একমাত্র প্রতিষ্ঠান, যারা গ্রাহকদের সেরা সার্ভিস দিতে সদা সচেষ্ট। আর এরই ধারাবাহিকতায় গ্রাহকদের জন্য সহজে হোম লোন এর প্রক্রিয়া সম্পাদনে বিপ্রপার্টি প্রপার্টির মূল্য নির্ধারণ এবং বন্ধকী প্রপার্টি সমূহের লিগ্যাল ভেরিফিকেশনে সিটি ব্যাংককে সহায়তা করবে।

;

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা দিল ইসলামী ব্যাংক



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা দিল ইসলামী ব্যাংক

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা দিল ইসলামী ব্যাংক

  • Font increase
  • Font Decrease

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড বন্যার্তদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা অনুদান প্রদান করেছে।

সোমবার (২৭ জুন) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. নাজমুল হাসান ও ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ও সিইও মুহাম্মদ মুনিরুল মওলার নিকট থেকে অনুদানের এ চেক গ্রহণ করেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত ছিলেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকসের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম মজুমদার উপস্থিত ছিলেন।

;

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা দিল এসআইবিএল



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা দিল এসআইবিএল

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা দিল এসআইবিএল

  • Font increase
  • Font Decrease

বন্যার্তদের সাহায্যার্থে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড (এসআইবিএল)।

সোমবার (২৭ জুন) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউসের নিকট অনুদানের চেক হস্তান্তর করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. মো. মাহবুব উল আলম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী (চলতি দায়িত্ব) আবু রেজা মো. ইয়াহিয়া।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দেন।

এ সময় বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি)- এর চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন ব্যাংকের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

;