২০২২-২৩ অর্থবছরের মুদ্রানীতি ঘোষণা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
২০২২-২৩ অর্থবছরের মুদ্রানীতি ঘোষণা

২০২২-২৩ অর্থবছরের মুদ্রানীতি ঘোষণা

  • Font increase
  • Font Decrease

বেসরকারি খাতে ১৪ দশমিক ১০ শতাংশ ঋণ বাড়ানোর প্রক্ষেপণ করে ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য সতর্কতামূলক মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়েছে। আগের অর্থবছরে এই লক্ষ্যমাত্রা ১৪ দশমিক ৮০ শতাংশ থাকায় নতুন মুদ্রানীতিতে এই ঋণ প্রবৃদ্ধি শূন্য দশমিক ৭০ শতাংশ কম ধরা হয়েছে। এ মুদ্রানীতি কিছুটা সংকোচনমুখী।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) বিকেলে মুদ্রানীতি ঘোষণা করেন গভর্নর ফজলে কবির। বর্তমান গভর্নর ফজলে কবিরের এটাই শেষ মুদ্রানীতি ঘোষণা। আগামী ৩ জুলাই তার মেয়াদ শেষ হবে।

মুদ্রানীতি ঘোষণাকালে ফজলে কবির বলেছেন, ‘বৈশ্বিক ও অভ্যন্তরীণ অর্থনীতির সর্বশেষ পরিস্থিতি এবং সম্প্রতি সংঘটিত দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বন্যার অর্থনৈতিক প্রভাব পর্যালোচনা করে প্রতীয়মান হয় যে, ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য মুদ্রানীতির মূল চ্যালেঞ্জ হবে টাকার অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক মান অর্থাৎ মূল্যস্ফীতি ও বিনিময় হারকে স্থিতিশীল রাখা। একই সঙ্গে, কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে চলমান অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার কার্যক্রমে সমর্থন অব্যাহত রাখাও আসন্ন মুদ্রানীতির জন্য অপরিহার্য বলে বিবেচিত হয়েছে। সে বিবেচনায় মূল্যস্ফীতি ও টাকার বিনিময় হারের ঊর্ধ্বমুখী চাপকে নিয়ন্ত্রণে রেখে কাঙ্ক্ষিত জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনে সহায়তা করার নিমিত্তে ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য সতর্কতামূলক মুদ্রানীতি ভঙ্গি অনুসরণ করা হয়েছে, যা কিছুটা সংকোচনমুখী। সে আলোকে পুরো অর্থবছরের জন্য অর্থ ও ঋণ কর্মসূচি প্রণয়ন করা হয়েছে।’

উল্লেখ্য, জাতীয় বাজেট বক্তৃতার তথ্য অনুযায়ী, ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য সরকারের কাঙ্ক্ষিত জিডিপি প্রবৃদ্ধি ও মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রাগুলো হলো যথাক্রমে ৭.৫ ও ৫.৬ শতাংশ। এ লক্ষ্য ঠিক রেখে নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়েছে।

পুরো ২০২২-২৩ অর্থবছরে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধির প্রক্ষেপণ করা হয়েছে ১৪ দশমিক ১০ শতাংশ। আগের মুদ্রানীতিতে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৪ দশমিক ৮০ শতাংশ। আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত বেসরকারি ঋণের প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য রাখা হয়েছে ১৩ শতাংশ ৬০ শতাংশ। চলতি জুন পর্যন্ত বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি হয়েছে মাত্র ১৩ দশমিক ১০ শতাংশ।

ঘোষিত নতুন মুদ্রানীতিতে সরকারের লক্ষ্যমাত্রার আলোকে ঋণ গ্রহণের প্রবৃদ্ধি ৩৬ দশমিক ৩ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে। মোট অভ্যন্তরীণ ঋণের প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১৮ দশমিক ২০ শতাংশ।

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ ও কাঙ্ক্ষিত প্রবৃদ্ধি অর্জনের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক মুদ্রানীতি প্রণয়ন ও প্রকাশ করে। দেশের আর্থিক ব্যবস্থাপনায় মুদ্রানীতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর মাধ্যমে অভ্যন্তরীণ ঋণ, মুদ্রা সরবরাহ, অভ্যন্তরীণ সম্পদ, বৈদেশিক সম্পদ কতটুকু বাড়বে বা কমবে, তার পরিকল্পনা তুলে ধরা হয়।

ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা

ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের উদ্যোগে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (১৫ আগস্ট) ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

ব্যাংকের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. নাজমুল হাসান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। ব্যাংকের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ও সিইও মুহাম্মদ মুনিরুল মওলার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. সেলিম উদ্দিন, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সোলায়মান ও রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মতিন।

বক্তব্য দেন ডাইরেক্টর মো. জয়নাল আবেদীন ও প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল আলম। দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন ব্যাংকের শরী‘আহ সুপারভাইজরি কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন তালুকদার। ব্যাংকের ডাইরেক্টর প্রফেসর ড. মো. সিরাজুল করিম, প্রফেসর মো. কামাল উদ্দিন, সৈয়দ আবু আসাদ, মো. কামরুল হাসান, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সালেহ জহুর, প্রফেসর ড. মো. ফসিউল আলম, খুরশীদ উল আলম এবং মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন এতে অংশগ্রহণ করেন।

আরও বক্তব্য দেন ব্যাংকের অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ কায়সার আলী, মো. ওমর ফারুক খান ও জে. কিউ. এম. হাবিবুল্লাহ। ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন নির্বাহী, জোনপ্রধান ও শাখাসমূহের ব্যবস্থাপকসহ কর্মকর্তাবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ১৪ আগস্ট দেশব্যাপী ব্যাংকের ১৬টি জোন ও ৩৮৪টি শাখার উদ্যোগে পৃথক পৃথক আলোচনা ও দোয়ার আয়োজন করা হয়।

;

ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ

ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ

  • Font increase
  • Font Decrease

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড এর উদ্যোগে ১৫ আগস্ট সোমবার জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ব্যাংকের ডাইরেক্টর মোঃ জয়নাল আবেদীন এবং ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ও সিইও মুহাম্মদ মুনিরুল মওলা ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

এ সময় ব্যাংকের অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ কায়সার আলী, মোঃ ওমর ফারুক খান ও জে. কিউ. এম. হাবিবুল্লাহ, এফসিএস, ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মোঃ নাইয়ার আজম, মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন মজুমদার, আবুল ফয়েজ মুহাম্মাদ কামালউদ্দিন ও মুহাম্মদ শাব্বির, চীফ হিউম্যান রিসোর্সেস অফিসার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী, ক্যামেলকো তাহের আহমেদ চৌধুরী ও আইবিটিআরএর প্রিন্সিপাল এসএম রবিউল হাসানসহ ব্যাংকের  নির্বাহী ও কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

;

সোনালী, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকে নতুন এমডি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাষ্ট্রমালিকানাধীন সোনালী, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকে নতুন এমডি নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

রোববার (১৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ এক প্রজ্ঞাপনে এ তিন ব্যাংকে নতুন এমডি নিয়োগের তথ্য জানায়।

প্রজ্ঞাপনে জানা যায়, রূপালী ব্যাংকের নতুন এমডি হয়েছেন ওই ব্যাংকেরই ডিএমডি মোহম্মদ জাহাঙ্গীর, সোনালী ব্যাংকের নতুন এমডি হয়েছেন বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশনের এমডি আফজাল করিম এবং অগ্রণী ব্যাংকের নতুন এমডি হয়েছেন সোনালী ব্যাংকের ডিএমডি মুরশেদুল কবীর।

তাদের তিন বছরের জন্য এ পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

;

আন্তঃব্যাংক ডলার বেচাকেনার নির্দেশ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশে ডলার বাজার স্থিতিশীল করতে ব্যাংক থেকে ব্যাংকে বা আন্তব্যাংক ডলার বেচাকেনার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। পাশাপাশি বিদেশে আটকে থাকা রফতানির বিল দ্রুত দেশে আনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রোববার (১৪ আগস্ট) বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) ও বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ ডিলারস অ্যাসোসিয়েশনের (বাফেদা) বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, দেশে ডলারের সংকট কাটিয়ে ওঠার জন্যই এবিবি ও বাফেদার সঙ্গে আজকের বৈঠক। কীভাবে বাজার স্থিতিশীল করা যায়, সেই বিষয়ে তাদের কাছ থেকেও কিছু পরামর্শ নেওয়া হয়েছে। আবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকেও কিছু নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এবিবি ও বাফেদা কথা দিয়েছে, দ্রুত সময়ের মধ্যে ডলারের মার্কেট স্থিতিশীল হবে। আর কেন্দ্রীয় ব্যাংক যে নির্দেশনা তাদেরকে দিয়েছে, তার মধ্যে একটি হলো- ব্যাংকগুলোকে তাদের রফতানি বিল দ্রুত দেশে এনে নগদায়ন করতে হবে। অন্যটি হলো- নিজেদের মধ্যে আন্তঃব্যাংক লেনদেন কার্যকর করা।

মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমদানি কমানোর জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক যে সব নির্দেশনা দিয়েছে এটা কার্যকর হতে শুরু করেছে। অলরেডি ৩১ শতাংশ আমদানি কমে এসেছে। আশাকরি আগামী দুই-এক মাসের মধ্যে ডলার বাজার পরিস্থিতি স্থিতিশীল হয়ে যাবে।

;